তত্ত্বাবধায়ক ব্যবস্থা না দিলে সরকারকে মৃত্যুর ঘন্টা শুনতে হবে : মাহবুবুর রহমান

0
110
Print Friendly, PDF & Email

বিএনপি’র স্থায়ী কমিটির সদস্য সাবেক সেনাপ্রধান লেফটেনেন্ট জেনারেল (অব.) মাহবুবুর রহমান বলেছেন, সিটি করপোরেশন নির্বাচনে সরকারের অবস্থা তছনছ হয়ে গেছে। এটা তারা বুঝতে পেরেছে। তাই তাদের মন্ত্রীদের কেউ এটাকে বলেছেন ‘বিপদ সংকেত’ আবার কেউ বলেছেন ‘মহাবিপদ সংকেত’। আর তত্ত্বাবধায়ক না দিলে শিগগিরি আওয়ামী লীগ সরকার ও তাদের নেত্রীর মৃত্যুর ঘণ্টা শুনতে হবে।

আজ বুধবার জাতীয় প্রেস ক্লাবে ‘জাতীয়তাবাদী দেশ বাঁচাও মানুষ বাঁচাও’ আয়োজিত নির্দলীয় নিরপেক্ষ তত্ত্বাবধায়ক সরকারের অধীনে আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচন শীর্ষক আলোচনা সভায় তিনি এসব কথা বলেন।

বিএনপির এ শীর্ষ নেতা বলেন, সরকারের এ তছনছ অবস্থা থেকে বেরিয়ে আসতে হলে তত্ত্বাবধায়ক দিতে হবে। সিটি নির্বাচনের মাধ্যমে তত্ত্বাবধায়কের দাবি আরো বেগবান হয়েছে। সরকারের দুর্নীতির কারণে জনগণ ভোটের মাধ্যমে মুখ ফিরিয়ে নিয়েছে।

‘তত্ত্বাবধায়ক চাইলে নির্বাচন হবে না’- সংসদে প্রধানমন্ত্রীর এমন কথার কঠোর সমালোচনা করেন জেনারেল মাহবুব। তিনি বলেন, নির্বাচন না হলে আপনারা ক্ষমতায় থাকবেন কিভাবে? আর একথা একটা স্বৈরাচারী মনোভাবের বক্তব্য। আর এটাই যদি সত্যি হয় তাহলে আপনাদের নৈতিক অবস্থানও থাকে না।

তিনি বলেন, বাংলাদেশে যদি গণতন্ত্র রাখতে হয় তাহলে অবাধ সুষ্ঠু নির্বাচন হতে হবে। আর তা হতে পারে নির্দলীয় নিরপেক্ষ তত্ত্বাবধায়ক সরকারের অধীনে একটি নির্বাচনের মাধ্যমে। আর গণতন্ত্র বাঁচলে দেশ বাঁচবে মানুষ বাঁচবে।

অনুষ্ঠানে, সংগঠনের সভাপতি কে এম রকিবুল ইসলাম রিপন, বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা ব্যারিস্টার এম হায়দার আলী, রুহুল আলম চৌধুরী, বিএনপি’র বন ও পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক কর্নেল শাহজাহান মিলন, জাতীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য ইসমাঈল হোসেন বেঙ্গল, মেজর মাহবুব, এবিএম মোশারফ, হেলেন জেরিন খানসহ অন্যরা বক্তব্য রাখেন।

শেয়ার করুন