হাসপাতালের ভবন নির্মাণে নিম্নমানের নির্মাণ সামগ্রী ব্যবহারের অভিযোগ

0
183
Print Friendly, PDF & Email

সিরাজগঞ্জের তাড়াশ উপজেলা ¯^াস্থ্য কমপ্লেক্সের ২টি নতুন ভবন নির্মাণে অতি নিম্নমানের নির্মাণ সামগ্রী ব্যবহারের অভিযোগ উঠেছে। প্রতিকার চেয়ে এলাকাবাসী ¯^াস্থ্য মন্ত্রী সহ সরকারি বিভিন্ন দপ্তরে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন।
¯^াস্থ্য মন্ত্রী বরাবরে লিখিত অভিযোগে জানা গেছে, চলতি অর্থ বছরের ¯^াস্থ্য বিভাগের অর্থায়নে তাড়াশ উপজেলা ¯^াস্থ্য কমপ্লেক্সের ২টি নতুন ভবন নির্মাণ করা হচ্ছে। প্রায় ৯ কোটি টাকা বরাদ্দের উক্ত কাজের নির্মাণাধীন ঠিকাদার নিয়মনীতি উপেক্ষা করে অতি নিম্নমানের নির্মাণ সামগ্রী ব্যবহার করছেন। বিশেষ করে যে পাথর গুলো ব্যবহার করা হচ্ছে তা অতি নিম্নমানের বলে অভিযোগ উঠেছে।
তাড়াশ উপজেলার সোনাপাতিল গ্রামের বাসিন্দা মোঃ জাহিদ হাসান তার লিখিত অভিযোগ পত্রে অভিযোগ করেন, ঘটনাটি নিয়ে তাড়াশ উপজেলা ¯^াস্থ্য ও প.প. কর্মকর্তা, উপজেলা নির্বাহী অফিসার, সিরাজগঞ্জ সিভিল সার্জন ও জেলা প্রশাসক কে অবগত করা হলে, তারা মন্ত্রণালয়ে যোগাযোগ করার পরামর্শ দেন। এছাড়াও তিনি তার অভিযোগ পত্রে উল্লেখ করেন ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান কাজ শুরু করলেও কাজের কোন তথ্য স¤^লিত বিল বোর্ড টাংগানো হয়নি। এবং সিডিউল বর্হিভূত পি, চুনা, এলসি ও সিঙ্গেল পাথর সহ নিম্নমানের নির্মাণ সামগ্রী ব্যবহার করা হচ্ছে।
এ বিষয়ে সরেজমিনে ঘটনাস্থলে গিয়ে অভিযোগের সত্যতা পাওয়া যায়। দেখা যায় বোল্ডার পাথর কাটার পরিবর্তে ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান নিম্নমানের বিভিন্ন সাইজের পাথর এনে নির্মাণ কাজে ব্যবহার করছে। এছাড়াও প্রাক্কলিত ব্যয় স¤^লিত কোন সাইন বোর্ডও টাংগানো হয়নি। ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানের লোকজনের সাথে কথা বলতে চাইলে তারা সাংবাদিকদের সাথে কথা বলতে রাজি হয়নি।  
এ প্রসঙ্গে কথা হয় সিরাজগঞ্জ সিভিল সার্জন ডাঃ মাইনুদ্দিন মিয়ার সাথে। তিনি বলেন, অভিযোগ পাইনি। তবে আপনাদের কাছ থেকে জানলাম। এখন প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।
অভিযোগ প্রসঙ্গে মুঠোফোনে ওই কাজের তদারকির দায়িত্বে থাকা ¯^াস্থ্য বিভাগের প্রকৌশলী জাকির হোসেনের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, নিয়ম অনুযায়ী অবশ্যই বিল বোর্ড দিতে হবে। এবং বোল্ডার পাথর ভেঙ্গে কাজে লাগাতে হবে। আমি এ বিষয়ে ঠিকাদারের সাথে কথা বলে ব্যবস্থা গ্রহণ করব।

শেয়ার করুন