পুলিশকে হতে হবে ধৈর্যশীল ও মানবিক: প্রধানমন্ত্রী

0
132
Print Friendly, PDF & Email

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সর্বোচ্চ আন্তরিকতা ও সততার সঙ্গে দায়িত্ব পালনের জন্য পুলিশ বাহিনীর সদস্যদের প্রতি আহ্বান জানিয়ে বলেছেন, অন্যায় করলে কাউকে ছাড় দেওয়া হবে না। তিনি বলেন, দায়িত্ব পালনে পুলিশকে হতে হবে ধৈর্যশীল ও মানবিক। খবর বাসস ও ইউএনবির।
প্রধানমন্ত্রী গতকাল বৃহস্পতিবার সারদায় ৩০তম বিসিএস (পুলিশ) ব্যাচের সহকারী পুলিশ সুপারদের (এএসপি) শিক্ষা সমাপনী কুচকাওয়াজে ভাষণদানকালে এসব কথা বলেন। তিনি বলেন, সব ধরনের আইন ও পেশাগত বাধ্যবাধকতা মেনেই আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যদের যথাযথভাবে তাঁদের দায়িত্ব পালন করতে হবে। যেখানে শৃঙ্খলাজনিত বিষয় সংশ্ল্লিষ্ট, সেখানে সরকার কাউকে ছাড় দেবে না।
পুলিশ বাহিনীকে জনগণের বন্ধু হিসেবে অভিহিত করে শেখ হাসিনা বলেন, আইনশৃঙ্খলা রক্ষা, সামাজিক শান্তি বজায় রাখা ও সন্ত্রাসবাদ দমন এবং সব সময় জনগণের সেবা করা হচ্ছে পুলিশের পবিত্র দায়িত্ব। তাদের বিপদগ্রস্ত মানুষের পাশে বন্ধুর মতো দাঁড়াতে হবে।
প্রধানমন্ত্রী নবীন কর্মকর্তাদের উদ্দেশে বলেন, ‘তোমাদের বিপদগ্রস্ত মানুষের পাশে বিশ্বস্ত বন্ধুর মতো দাঁড়াতে হবে। বিশেষ করে নারী ও শিশুর প্রতি যেন কোনো অবহেলা না হয়, সেদিকে সর্বোচ্চ দৃষ্টি রাখতে হবে।’
এক বছরের কোর্স সম্পন্নকারী মোট ৩৭ জন প্রবেশনারি এএসপি কুচকাওয়াজে অংশ নেন। কুচকাওয়াজ পরিচালনা করেন প্যারেড কমান্ডার এএসপি লিমন রায়। প্রশিক্ষণার্থীদের মধ্যে প্রধানমন্ত্রীর কাছ থেকে মো. শাকিল আহমেদ বেস্ট হর্সম্যানশিপ এবং শেখ মো. আবদুল্লাহ বিন কালাম বেস্ট ইন একাডেমিক ও বেস্টম্যান কাপ পদক গ্রহণ করেন।
প্রধানমন্ত্রী পুলিশ বাহিনীর নতুন সদস্যদের প্রতি কর্মজীবনের প্রতিটি ক্ষেত্রে স্বচ্ছতা ও জবাবদিহির মাধ্যমে শিক্ষা সমাপনী দিনের শপথের মর্যাদা সমুন্নত রাখার আহ্বান জানান। এর আগে পুলিশের একটি চৌকস দল প্রধানমন্ত্রীকে গার্ড অব অনার প্রদান করে। তিনি প্যারেড পরিদর্শন ও অভিবাদন গ্রহণ করেন। পরে তিনি একাডেমির চত্বরে একটি গাছের চারা রোপণ করেন।

শেয়ার করুন