সাঙ্গাকারার ঝড়ে আশা বাঁচিয়ে রাখলো শ্রীলঙ্কা

0
64
Print Friendly, PDF & Email

কুমার সাঙ্গাকারার অপরাজিত সেঞ্চুরির সুবাদে ইংল্যান্ডকে সাত উইকেটে হারিয়েছে শ্রীলংকা। চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফিতে হাই-স্কোরিং ম্যাচে গত বৃহস্পতিবার রাতে অনুষ্ঠিত ম্যাচে ১৩৫বলে সাঙ্গাকারার অপরাজিত ১৩৪ রানের সুবাদে শ্রীলংকা এ গ্র�পের ম্যাচে স্বাগতিক ইংলিশদের পরাজিত করে। এই জয়ের ফলে টুর্নামেন্ট টিকে থাকার আশা বাঁচিয়ে রাখল লংকানরা।
শ্রীলঙ্কাকে ১৭ বল হাতে রেখে সাত উইকেটের বড় জয় এনে দিয়ে বাঁচালেন দলকে।
অথচ শুরুতে মোটেও অনুমান করা যায়নি এতো বড় ব্যবধানে জয় পাবে শ্রীলঙ্কা। চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফিতে ইংল্যান্ডের ছুড়ে দেয়া ২৯৪ রানের টার্গেট মোটেও কম ছিলনা।
শ্রীলঙ্কার বিপদের কাণ্ডারী ও স্থিরতার মূর্তপ্রতীক সাঙ্গাকারা উইকেটে আসেন ১০ রানে প্রথম উইকেট পড়ে যাওয়ার পর। এরপর শুধু হতাশই করেছেন ইংল্যান্ডের বোলারদের। দ্বিতীয় উইকেটে তিলকারতে� দিলশানকে নিয়ে গড়েন ৯২ রানের জুটি। তৃতীয় উইকেট জয়াবর্ধনেকে নিয়ে গড়েন ৮৫ রানের জুটি। আর খেলা শেষ করেন নুয়ান কুলাসেকারাকে নিয়ে। চতুর্থ জুটিতে তারা খেলেন ১১০ রানের অপরাজিত ইনিংস। সাঙ্গাকারা ১১১ বলে পূরণ করেন ব্যক্তিগত ১৫তম ওয়ানডে সেঞ্চুরি।
পিঞ্চ হিটার নুয়ান কুলাসেকারা ৫৮ রানে অপরাজিত থাকেন। সাঙ্গাকা-কুলাসেকারা চতুর্থ উইকেট জুটিতে ৭১ বলে যোগ করেন ম্যাচ জয়ী ১১০ রান।
ওয়ানডে ক্রিকেটে ইতোপূর্বে মাত্র দু’টি হাফ সেঞ্চুরী করা কুলাসেকারা পাঁচটি বাউন্ডারী ও তিনটি ওভার বাউন্ডারী হাকিয়ে ইংলিশ বোলারদের হতাশায় ডোবান।
ইংলিশ পেসার জেমস এন্ডারসন দু’টি উইকেট পেলেও অপর দুই পেসার স্টুয়ার্ট ব্রড ও টিম ব্রেসনান ছিলেন উইকেট শূন্য।
ব্রড ৮.১ ওভারে ৬৭ এবং ব্রেসনান ১০ ওভারে দেন ৬৩ রান।
ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে এটিই ছিল সাঙ্গাকারার প্রথম ওয়ানডে সেঞ্চুরি। শেষ পর্যন্ত ১২টি চারের সাহায্যে ১৩৫ বলে খেলেন ১৩৪ রানের অনবদ্য ইনিংস। ১৭ বল হাতে রেখেই দলকে পৌঁছে দেন জয়ের বন্দরে।
জনাথন ট্রটের ৭৬ এবং ৫৫ বলে জো রুটের করা ৬৮ রানের সুবাদে ইংলিশরা বড় রান সংগ্রহ করে।
অধিনায়ক এলিস্টার কুক করেন ৫৯ রান। মাত্র ৫ রানের বিনিময়ে শ্রীলংকা চার উইকেট তুলে নিলে ৪৮তম ওভারে ইংল্যান্ডের স্কোর দাঁড়ায় ২৫৪-৭। শেষ ওভারে রবি বোপারা একাই তুলে নেন ২৮ রান।
শেষ ওভারে লংকান পেসার সামিন্দা এরাঙ্গার বলে তিন ছক্কা, দুই বাউন্ডারী এবং একবার ২ রান নিয়ে বোপারা শেষ পর্যন্ত ১৩ বলে ৩৩ রানে অপরাজিত থাকেন।
পানশালায় অস্ট্রেলিয়ান ব্যাটসম্যান ডেভিড ওয়ার্নারের হাতে লাঞ্ছিত হওয়া রুট ৫টি বাউন্ডারী হাঁকান।
স্কোর কার্ড :
ইংল্যান্ড :
এ কুক এলবিডব্লিউ ব হেরাথ ৫৯
আই বেল ক পেরেরা ব এরাংগা ২০
জে ট্রট এলবিডব্লিউ ব হেরাথ ৭৬
জে রুট ক জয়াবর্ধন ব মালিঙ্গা ৬৮
ই মরগান এলবিডব্লিউ ব মালিঙ্গা ১৩
জে বাটলার ক সাঙ্গাকারা ব কুলাসেকেরা ০
আর বোপারা নট আউট ৩৩
টি ব্রেসনান ব এরাংগা ৪
এস ব্রড নট আউট ৭
অতিরিক্ত (লেবা-১০, ও-৩) ১৩
মোট (৭ উইকেট, ৫০ ওভার) ২৯৩
উইকেটের পতন : ১-৪৮ (বেল), ২-১৩১ (কুক), ৩-২১৮ (ট্রট), ৪-২৪৯ (রুট), ৫-২৪৯ (মরগান), ৬-২৪৯ (বাটলার),৭-২৫৪ (ব্রেসনান)।
ব্যাট করেননি : জি সোয়ান, জে এন্ডারসন।
বোলিং : কুলাসেকারা ১০-০-৪২-১, মালিঙ্গা ১০-২-৫৮-২, এরানগা ১০-০-৮০-২, ম্যাথুস ৬-০-২৮-০, হেরাথ ১০-০-৪৬-২, দিলশান ৪-০-২৯-০।
শ্রীলংকা :
কে পেরেরা ক বোপারা ব এন্ডারসন ৬
টি দিলশান ক রুট ব সোয়ান ৪৪
কে সাঙ্গাকারা নট আউট ১৩৪
এম জয়াবর্ধন ক (বদলী) বেয়ারস্টো ব এন্ডারসন ৪২
এন কুলাসেকারা নট আউট ৫৮
অতিরিক্ত : (লেবা-৬, ও-৭) ১৩
মোট (৩ উইকেট, ৪৭.১ ওভার) ২৯৭
উইকেটের পতন : ১-১০ (পেরেরা), ২-১০২ (দিলশান), ৩-১৮ (জয়াবর্ধনে)।
ব্যাট করেননি : এ চান্দিমাল, এ ম্যাথুস, এইচ থিরিমানে, আর হেরাথ, আর এরাংগা, এল মালিঙ্গা।
বোলিং : এন্ডারসন ১০-০-৫১-২, ব্রড ৮.১-০-৬৭-০, ব্রাসনান ১০-০-৬৩-০, রুট ৩-০-২৭-০, সোয়ান ১০-০-৫০-১, বোপারা ৬-০-৩৩-০।
শ্রীলংকা ৭ উইকেটে জয়ী।
টস : শ্রীলংকা।

শেয়ার করুন