৩০ দিনের মধ্যে ছেড়ে দিতে হবে সড়ক ভবনের এ ব্লক

0
99
Print Friendly, PDF & Email

৩০ দিনের মধ্যে সড়ক ভবনের এ ব্লক সুপ্রিম কোর্টের কাছে হস্তান্তরের নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট।
এক আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে বিচারপতি আশফাকুল ইসলাম ও বিচারপতি আশরাফুল কামালের হাইকোর্ট বেঞ্চ মঙ্গলবার এ আদেশ দেন।

এ বিষয়ে পরবর্তী আদেশের জন্য ১১ জুলাই দিন ধার্য করেছেন আদালত।

আদালতে আবেদনের পক্ষে ছিলেন, অ্যাডভোকেট মনজিল মোরসেদ।

প্রসঙ্গত, ৫৫ একর এলাকা আওতায় নিয়ে ১৯১০ সালে নির্মিত হয় তৎকালীন গভর্নর হাউজ। পরে ১৯৪৭ সালে এটিতে পাকিস্তান সুপ্রিম কোর্ট স্থাপন করা হয়। এরপর ১৯৭১ সালে বাংলাদেশ সুপ্রিম কোর্ট ওই ৫৫ একর জমির অধিকারী হয়।

১৯৭৫ সালে সামরিক সরকার এসে এ জমি থেকে শিশু একাডেমীকে ৩ একর এবং ১৯৭৯ সালে সড়ক ও জনপথ বিভাগকে ৮ একর জমি লিজ দেয়।

এ অবস্থায় সুপ্রিম কোর্টের জমি ফিরিয়ে দিতে ২০১১ সালের ৩১ জানুয়ারি হিউম্যান রাইটস অ্যান্ড পিস ফর বাংলাদেশের পক্ষে অ্যাডভোকেট আসাদুজামান সিদ্দিকী ও অ্যাডভোকেট ইখলাস উদ্দিন ভূঁইয়া জনস্বার্থে সম্পত্তি উদ্ধারে রিট মামলা দায়ের করেন।

এ আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে ২০১১ সালের ১০ মার্চ হাইকোর্ট শিশু একাডেমী ও সড়ক ভবনের অধীনে থাকা সুপ্রিম কোর্টের সম্পত্তি ৯০ দিনের মধ্যে ফিরিয়ে দিতে বলেন।

ওই আদেশের বিরুদ্ধে উভয় প্রতিষ্ঠান আপিল করে। শুনানি শেষে একই বছরের ২৮ জুলাই বর্তমান প্রধান বিচারপতি মো. মোজাম্মেল হোসেনের নেতৃত্বে সাত সদস্যের বেঞ্চ উভয় আবেদনই খারিজ করে দেন।

এরপর চলতি বছরের শুরুতে সওজ পুরো জমি বুঝিয়ে না দিয়ে অংশ বিশেষ বুঝিয়ে দিতে  সুপ্রিম কোর্টকে চিঠি দেয়।

ওই সময় সুপ্রিম কোর্টের জমিতে দেয়াল তৈরির কাজ শুরু করলেও শেষ পর্যন্ত সুপ্রিম কোর্টের রেজিস্ট্রার একেএম শামসুল ইসলামসহ কর্মকর্তাদের আপত্তির মুখে এবং যোগাযোগমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের নির্দেশে দেয়াল ভেঙ্গে ফেলেছে সড়ক ও জনপথ অধিদফতর (সওজ)।

এরপর সুপ্রিম কোর্টের রায় বাস্তবায়ন না করে বাঁধা সৃষ্টির অভিযোগে অ্যাডভোকেট আসাদুজ্জামান সিদ্দিকী আদালত অবমাননার একটি আবেদন করেন।

এর পরিপ্রেক্ষিতে যোগাযোগ সচিবসহ চারজনকে তলব করে সব জমি বুঝিয়ে দেওয়ার নির্দেশ দেন আদালত। এ আদেশের পরিপ্রেক্ষিতে সড়ক ভবনের বি ও সি ব্লক সুপ্রিম কোর্টের কাছে হস্তান্তর করা হয়। তবে এ ব্লক হস্তান্তরে সময় আবেদন করে সওজ। এর পরিপ্রেক্ষিতে আদালতের দেওয়া সময় পার হয়ে গেলও এ ব্লক বুঝিয়ে না দেওয়ায় মঙ্গলবার বিষয়টি হাইকোর্টে উপস্থাপন করেন আবেদনকারীরা।

মনজিল মোরসেদ জানান, আদালতে বিষয়টি উপস্থাপন করা হলে ৩০ দিনের মধ্যে এ ব্লক সুপ্রিম কোর্টের রেজিস্ট্রারের কাছে হস্তান্তরের নির্দেশ দেন আদালত। 

শেয়ার করুন