মান্নানকে ১৮ দলের সমর্থন মহাজোটের আজমত উল্লাহ : গাজীপুর সিটিতে মনোনয়নপত্র দাখিলের শেষ দিন আজ

0
41
Print Friendly, PDF & Email

নবগঠিত গাজীপুর সিটি করপোরেশন (জিসিসি) নির্বাচনে আজ মনোনয়নপত্র দাখিলের শেষ দিন। এদিকে মেয়র পদে ১৮ দলের সমর্থন পেলেন বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা অধ্যাপক এম এ মান্নান। আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন জোটের সমর্থন ঘোষণা করা হয়েছে অ্যাডভোকেট আজমত উল্লাহ খানের প্রতি। অবশ্য আওয়ামী লীগের আরেক নেতা গাজীপুর সদর উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান জাহাঙ্গির আলমও প্রতিদ্বন্দ্বিতায় থাকছেন।
১৮ দলীয় জোটনেত্রী ও বিএনপির চেয়ারপারসনের গুলশানের কার্যালয়ে এ নিয়ে এক সভায় গত বুধবার রাতে সাবেক প্রতিমন্ত্রী ও বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা অধ্যাপক এম এ মান্নানকে সমর্থন দেয়া হয়েছে। একই সঙ্গে আগামী সংসদ নির্বাচনে গাজীপুর- ২ আসনে ১৮ দলীয় জোটের প্রার্থী হিসেবে হাসান উদ্দিন সরকারের নাম ঘোষণা করা হয় বলে জানা গেছে।
মঙ্গলবার রাতে বিএনপির চেয়ারপারসনের গুলশানের কার্যালয়ে এ উপলক্ষে অনুষ্ঠিত এক বৈঠক শেষে দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর ও দলের স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্রিগেডিয়ার (অব.) আ স ম হান্নান শাহ যৌথভাবে দুইজনের প্রার্থিতার ঘোষণা দেন। এ ঘোষণার মধ্য দিয়ে সিটি করপোরেশন নির্বাচনকে কেন্দ্র করে গাজীপুর বিএনপির হাসান-মান্নান দ্বন্দ্বের অবসান হলো। দলের এ ঘোষণার পর গাজীপুর সিটি করপোরেশন (জিসিসি) নির্বাচনে মেয়র পদে ঐক্যবদ্ধভাবে নির্বচানে নামছে বিএনপি।
গতকাল বিকালে ঢাকায় জাতীয় প্রেস ক্লাবে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য হান্নান শাহ অধ্যাপক এম এ মান্নানের প্রতি সমর্থনের কথা ঘোষণা করেন। সম্মিলিত নাগরিক কমিটির প্রার্থী হিসেবে তার প্রতি এ সমর্থন দেয়া হয়েছে বলে সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়।
এদিকে গাজীপুর সিটি করপোরেশন নির্বচানে বিএনপির বিজয় নিশ্চিত করতে সব দ্বিধা-দ্বন্দ্ব ও ভেদাভেদ ভুলে গিয়ে অধ্যাপক এম এ মান্নানের পক্ষে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করার জন্য দলের নির্বাহী কমিটির সদস্য সাবেক এমপি আলহাজ হাসান উদ্দিন সরকার সর্বস্তরের নেতাকর্মীদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন। গতকাল সকালে দলীয় নেতাকর্মীরা তার বাসভবনে দেখা করতে এলে তিনি এ আহ্বান জানান। এ সময় তিনি বলেন, গত ১৭ বছরে টঙ্গীতে উন্নয়নের নামে যে লুটপাট ও দুর্নীতি হয়েছে, আসন্ন সিটি নির্বাচনে জনগণ ভোটের মাধ্যমে এর সমুচিত জবাব দেবে।
অবশ্য এরই মধ্যে ১৮ দলভুক্ত সম্মিলিত ইসলামী ফোরাম নেতা হেফাজতে ইসলামের জেলা সাধারণ সম্পাদক মাওলানা ফজলুর রহমান মনোনয়নপত্র তুলেছেন। এছাড়া এর আগে ১৮ দলের সমর্থন চূড়ান্ত না হওয়ায় মেয়র পদে মনোনয়নপত্র তুলেছেন বিএনপির কেন্দ্রীয় দুই নেতাসহ দলের পাঁচ নেতা। মনোনয়নপত্র জমা দেয়ার শেষ তারিখ আজ ৬ জুন।
জিসিসি নির্বাচনে মান্নানকে বিএনপির সমর্থন নিরপেক্ষতা প্রমাণে ইসি ব্যর্থ- হান্নান শাহ : আসন্ন গাজীপুর সিটি করপোরেশন (জিসিসি) নির্বাচনে সম্মিলিত নাগরিক কমিটির প্রার্থী অধ্যাপক এম এ মান্নানকে বিএনপি নেতৃত্বাধীন ১৮ দলীয় জোট সমর্থন দিয়েছে। গতকাল সন্ধ্যায় জাতীয় প্রেস ক্লাবে এক সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে আনুষ্ঠানিকভাবে এ সমর্থনের কথা জানান বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্রিগেডিয়ার জেনারেল (অব.) আ স ম হান্নান শাহ। প্রার্থী হতে ইচ্ছুক বিএনপির নির্বাহী সদস্য হাসান উদ্দিন সরকারও এ সমর্থন অনুষ্ঠানে অংশ নিয়ে অধ্যাপক মান্নানের পক্ষে কাজ করার ঘোষণা দেন।
এ সময় হান্নান শাহ সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে বলেন, এ নির্বাচনে জনগণ ভোট দিতে পারলে গাজীপুর মহানগর সম্মিলিত নাগরিক কমিটির প্রার্থী মান্নান জয়ী হবেন। তিনি নির্বাচন কমিশনের নিরপেক্ষতায় প্রশ্ন তুলে বলেন, এই নির্বাচন কমিশন নিরপেক্ষতা প্রমাণে অতীতে ব্যর্থ হয়েছে। এখনও অনেক ক্ষেত্রেই সরকারের ক্রীড়নক হয়ে কাজ করছে বলে তিনি অভিযোগ করেন। সরকার যাতে কোনো ধরনের কারচুপি করতে না পারে সেই দিকে সজাগ থাকতে জনগণের প্রতি তিনি আহ্বান জানান।
বিএনপির জাতীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য হাসান উদ্দিন সরকার নিজে প্রার্থী হচ্ছেন না জানিয়ে বলেন, আমরা আলোচনার মাধ্যমে বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার পরামর্শে ১৮ দলের প্রার্থী হিসেবে এম এ মান্নানকে গাজীপুর সিটি নির্বাচনে প্রার্থী করেছি। প্রতিটি ওয়ার্ডে জোট সমর্থিত একক প্রার্থী দেয়া হবে বলে সংবাদ সম্মেলন থেকে জানানো হয়।
এ সময় এম এ মান্নান বলেন, আধুনিক সিটি করপোরেশন গড়ে তুলতে আমরা ঐক্যবদ্ধ হয়েছি। গাজীপুরবাসীর সমর্থনে আমি সম্মিলিত নাগরিক কমিটির প্রার্থী হয়েছি। বিএনপিসহ ১৮ দলও সমর্থন দিয়েছে। এলাকাবাসীর ভোটে বিজয়ী হলে সবাইকে নিয়ে গাজীপুরকে আধুনিক নগরী হিসেবে গড়ে তোলার আগ্রহের কথা জানান তিনি।
সমর্থন প্রদান অনুষ্ঠান ও সংবাদ সম্মেলনে আরও উপস্থিত ছিলেন বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক ও গাজীপুর জেলা সভাপতি ফজলুল হক মিলন, উপজেলা চেয়ারম্যান এস এম শাহান শাহ আলম, জেলা বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক আলহাজ নাজিম উদ্দিন চেয়ারম্যান, সদর উপজেলার সাধারণ সম্পাদক সুরুজ আহমদ প্রমুখ।

শেয়ার করুন