বেতনের জন্যই বিএনপি এসেছিল: তোফায়েল

0
32
Print Friendly, PDF & Email

টানা ৮৩ কার্যদিবস অনুপস্থিতির পর সোমবার সংসদের ১৮তম অধিবেশনে যোগ দেয় বিএনপি।

সভা-সমাবেশের ওপর নিষেধাজ্ঞার প্রতিবাদে মওদুদ আহমেদ পয়েন্ট অব অর্ডারে বক্তব্য দেয়ার পর তার নেতৃত্বেই ওয়াক আউট করেন বিরোধী সাংসদরা।

এর পরই সংসদে দাঁড়িয়ে তোফায়েল বলেন, “আজকে প্রমাণ হয়ে গেছে, বেতন ভাতা ও সদস্য পদ রাখতে তারা (বিএনপি) সংসদে এসেছেন। আর আট দিন অনুপস্থিত থাকলে তাদের সদস্য পদ বাতিল হয়ে যেতো।“

এদিকে বিরোধী দলীয় নেতা খালেদা জিয়া মাগরিবের বিরতির পর আর অধিবেশন কক্ষে ফেরেননি।

মওদুদকে উদ্দেশ্য করে তোফায়েল বলেন, মওদুদ আহমেদ কোনো ধরনের হস্তক্ষেপ ছাড়াই বক্তব্য দিয়েছেন। তারপরও তারা ওয়াক আউট করেছেন।

“মওদুদ সাহেব এখন বিরোধী দলীয় নেতার পাশে বসেন। ওনার কী মনে আছে উনি যখন আইন শিখাচ্ছিলেন, এরশাদ সাহেব তখন পদত্যাগ করেন। ৯১ সালে কী জাতীয় পার্টিকে সমাবেশ করতে দেয়া হয়েছিলো?”

‌‌বিএনপির সাংসদ মাহবুবউদ্দিন খোকন ‘সুষ্ঠু ও অবাধ নির্বাচনের স্বার্থে কেয়ারটেকার সরকার পদ্ধতি পুর্নবহাল করা হোক’ এই মুলতবি প্রস্তাব দিলেও সোমবার বিরোধীদলের সংসদীয় দলের বৈঠকের পর তা প্রত্যাহার করা হয়।

এ প্রসঙ্গে তোফায়েল আহমদ বলেন, “কার্যউপদেষ্টার বৈঠকে যখন সিদ্ধান্ত হলো, তারা আলোচনা করতে চাইলে আমরা রাজি। তখন তারা চলে গেলো।”

হেফাজতে ইসলামের সমাবেশের আগের দিন একই জায়গায় বিএনপির মহাসমাবেশ থেকে খালেদা জিয়ার আল্টিমেটাম এবং হেফাজতের ধ্বংসাত্মক কর্মকাণ্ডের কথা উল্লেখ করে তিনি বলেন, “উনি (খালেদা জিয়া) ভেবেছিলেন, তারা ৫ তারিখ অবস্থান করবে, আর ৬ তারিখ সব তছনছ করে দেবে।

তোফায়েল বলেন, “জনাব মওদুদ আহমেদ এ ধরনের সভা-সমাবেশ করার অনুমতি চান? এ ধরনের সভা-সমাবেশের অনুমতি দেয়া যায় না।”

“আজকে সিগনেচার করে চলে গেলেন, আর ইচ্ছে করলে নাও আসতে পারেন। আর দেখা নাও হতে পারে।”

শেয়ার করুন