ঢালাওভাবে কোন বিচারপতি সম্পর্কে মন্তব্য করবেন না: প্রধান বিচারপতি

0
65
Print Friendly, PDF & Email

প্রধান বিচারপতি মো. মোজাম্মেল হোসেন বলেছেন, বাংলাদেশের বিচারাঙ্গন ও বিশেষ কোন বিচারকের সম্পর্কে কথা বলতে হলে প্রধান বিচারপতির কাছে বলুন। ঢালাওভাবে কোন বিচারপতি বা বিচারক সম্পর্কে মন্তব্য করবেন না। ঢালাওভাবে অভিযোগ তুলে বিচারাঙ্গনকে বিতর্কিত করবেন না। মানুষের শেষ ভরসাস্থলকে তার জায়গায় থাকতে দিন। এখানে মানুষ ইনসাফ পায়। ব্যক্তি বিশেষের বিরুদ্ধে অভিযোগ থাকলে প্রধান বিচারপতিকে জানান। ব্যবস্থা নেয়া হবে। সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির ছয়বারের সভাপতি মরহুম শামসুল হক চৌধুরীর ৮ম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে আলোচনাসভা ও দোয়া অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। গতকাল বিকালে সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির শহীদ শফিউর রহমান মিলনায়তনে সভায় সভাপতিত্ব করেন, শামসুল হক চৌধুরী স্মৃতি পরিষদের সভাপতি জ্যেষ্ঠ আইনজীবী আবদুল বাসেত মজুমদার। সভায় বক্তব্য দেন জ্যেষ্ঠ আইনজীবী এবিএম নুরুল ইসলাম, সাবেক মন্ত্রী ব্যারিস্টার আমিনুল হক, জেড আই খান পান্না, কেএম সাইফুদ্দিন, বশির আহমেদ, শ.ম রেজাউল করিম, মাহবুব আলী ও রবিউল আলম বুদু প্রমুখ। আলোচনায় অংশ নিয়ে সিনিয়র আইনজীবী এবিএম নুরুল ইসলাম বিচারাঙ্গনের দুর্নীতি নিয়ে কিছু মন্তব্য করেন। এ বক্তব্যের প্রেক্ষিতে প্রধান বিচারপতি এসব মন্তব্য করেন। প্রধান বিচারপতি মো. মোজাম্মেল হোসেন বলেন, এক প্রবীণ আইনজীবী কিছু মন্তব্য করেছেন। যেটা শোকসভায় অপ্রাসঙ্গিক। যদি তার অসুবিধা থাকে তাহলে তিনি অভিযোগ করতে পারেন। কিন্তু আমার জানা মতে রেজিস্ট্রার দপ্তরে এ ধরনের কোন অভিযোগ আসেনি। আইনজীবীকে উদ্দেশ্যে করে প্রধান বিচারপতি বলেন, ‘আপনারা দল-মত নির্বিশেষে সবাই সুপ্রিম কোর্টবারের সদস্য। আপনাদের একটাই পরিচিতি, আইনজীবী। এটা আমি, বিশ্বাস করি। বিচারপতিদের অনেক সীমাবদ্ধতা রয়েছে। বিচারকরা অন্ধ। অসুবিধা থাকা সত্ত্বেও বিচারকেরা নিজেদের কথা নিজেরা বলতে পারেন না। তাদের অবস্থা একটা মরা লাশের মতো। বিচারকরা কোন প্রতিবাদ করতে পারেন না। তাদের সে সুযোগ নেই। তবে সকল বিচারক বিচারের ক্ষেত্রে স্বাধীন। নির্দেশনা অনুযায়ী তারা বিচার করেন না।’ প্রধান বিচারপতি আরও বলেন, আদালতের প্রতি মানুষের আস্থা আছে। মানুষ ন্যায় বিচার পাচ্ছে। যদি ন্যায় বিচার না-ই পেত তাহলে বিচারাঙ্গনে এত মানুষ আসত না। এত নতুন আইনজীবী এ পেশায় আসত না। এ অঙ্গনে কোন দুর্নীতির কথা আসলে, কারা দুষ্কৃতকারী  (অ্যাবেটর) তাদের পয়েন্ট আউট করা বিজ্ঞ আইনজীবীদের দায়িত্ব।

শেয়ার করুন