বন্দর প্রকল্প বিতর্ক: অবস্থান পরিষ্কার করলো দিল্লি

0
55
Print Friendly, PDF & Email

আন্তঃসরকার আচরণ ভঙ্গের কোনো অভিসন্ধি নয়া দিল্লির নেই বলেও আশ্বস্ত করেছেন তিনি।

সোমবার পররাষ্ট্র সচিব মো. শহিদুল ইসলামের সঙ্গে তার কার্যালয়ে ‘নিয়মিত’ সাক্ষাতের পর এক প্রশ্নের জবাবে পঙ্কজ শরণ এ কথা জানান।

নারায়ণগঞ্জে একটি অভ্যন্তরীণ কন্টেইনার বন্দর স্থাপনের জন্য ‘প্রযুক্তিগত-বাণিজ্যিক সম্ভাব্যতা’ যাচাইয়ে গত ১০ মে ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের ওয়েবসাইটে একটি বিজ্ঞাপন প্রকাশিত হয়। এর পরপরই পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে ভারতের কাছে এ বিষয়ে ব্যাখ্যা চাওয়া হয়। ভারতীয় হাইকমিশন বিষয়টি স্পষ্ট করেছেন বলে গণমাধ্যমে প্রকাশিত খবরে বলা হয়েছে।

পঙ্কজ শরণ বলেন, “বিষয়টি ছিল ভারতীয় একটি কোম্পানির কাছে একটি বাংলাদেশি কোম্পানির সরাসরি বিদেশি বিনিয়োগের প্রস্তাব। ভারতীয় কোম্পানিটি মনে করেছে, বিনিয়োগের সিদ্ধান্ত নেয়ার আগে তাদের সম্ভাব্যতা যাচাই করা দরকার।”

এ ধরনের বিনিয়োগ বা বিনিয়োগের সিদ্ধান্ত এর আগে নেয়া হয়নি জানিয়ে হাইকমিশনার বলেন, “যদি আমরা বা সংশ্লিষ্ট কোম্পানি বিনিয়োগ প্রস্তাব গ্রহণ করে তাহলে বাংলাদেশ সরকারের জাতীয় আইন, নীতিমালা ও পদ্ধতিগুলো সম্পূর্ণভাবে মেনেই তা করা হবে।”

তিনি বলেন, “বাংলাদেশের সার্বভৌমত্বকে সম্পূর্ণরূপে শ্রদ্ধা করে ভারত।”

বৈঠকে ভারতের সঙ্গে ঋণচুক্তির আওতায় এবং বিসিআইএমের (বাংলাদেশ, চীন, ভারত ও মিয়ানমার) সহযোগিতার আওতায় চলমান প্রকল্পগুলোসহ অনেকগুলো দ্বিপক্ষীয় বিষয়ে আলোচনা হয়।

শেয়ার করুন