উদ্যোক্তা হওয়ার পথ

0
94
Print Friendly, PDF & Email

এখনকার উদ্যমী তরুণেরা আর আগের মতো নয়টাপাঁচটা অফিসে বসে কলম পিষতে চান না তাঁরা চ্যালেঞ্জ নিতে ভালোবাসেন, নিজের সৃজনশীলতাকে কাজে লাগিয়ে নতুন কিছু উদ্ভাবন করতে ভালোবাসেন চাকরি নামের সোনার হরিণের পেছনে ছুটতে ছুটতে জীবনের শ্রেষ্ঠ সময়টুকু হারিয়ে না ফেলে তাঁরা চান উদ্যোক্তা হয়ে অন্যদের চাকরি দিতে কিন্তু উদ্যোক্তা হতে চাইলেই কি উদ্যোক্তা হওয়া যায়? কীভাবে ব্যবসায় পরিকল্পনা করতে হবে, কীভাবে বিনিয়োগকারীদের কাছে নিজের ব্যবসাকে আকর্ষণীয় করে তুলে ধরতে হবে, কীভাবে বাজারের হালচাল বুঝে সঠিক সময়ে সঠিক পণ্য বা সেবা ক্রেতার কাছে পৌঁছে দিতে হবে, এমন অনেক কিছু জানতে হয় তরুণ শিক্ষার্থীদের এসব ব্যবহারিক জ্ঞান অভিজ্ঞতা দিয়ে উদ্যোক্তা হতে সাহায্য করার জন্য কাজ করছে বেশ কিছু ব্যতিক্রমী প্রতিষ্ঠান বিশেষত তরুণদের প্রযুক্তিভিত্তিক ব্যবসায়ে আগ্রহী করে তোলার লক্ষ্যে কাজ করে যাচ্ছেসেতু গত ১৮ মে ঢাকার ধানমন্ডির এডওয়ার্ড এম কেনেডি সেন্টারে সেতু আয়োজন করে দুই মিনিটে ব্যবসায় ভাবনা উপস্থাপনের এক ভিন্নমাত্রিক প্রতিযোগিতাপিচ টু উইন
পিচ টু উইন প্রতিযোগিতায় কলেজবিশ্ববিদ্যালয় পড়ুয়া শিক্ষার্থী তরুণ উদ্যোক্তারা বিচারকমণ্ডলী দর্শকদের সামনে মাত্র দুই মিনিটে নিজেদের ব্যবসায় পরিকল্পনার খুঁটিনাটি তুলে ধরেন শুনে একটু খটকাই লাগে প্রথমে, মাত্র দুই মিনিটে একটি পূর্ণাঙ্গ ব্যবসাকে কীভাবে তুলে ধরা যায়? বিচারকমণ্ডলী খোলাসা করেন, ‘এলিভেটর পিচপ্রতিযোগিতার ধরনটিই এমন, যেখানে প্রতিযোগীকে এক কিংবা দুই মিনিটে ঝটপট ব্যবসার মূল ধারণাটা উপস্থাপন করতে হয় ধরা যাক, লিফটে উঠতে গিয়ে কোনো এক নামকরা বিনিয়োগকারীর সঙ্গে একজন তরুণ উদ্যোক্তার দেখা হয়ে গেল! হাতে সময় আছে এক কি দুই মিনিট, তারপরই লিফট থেকে বেরিয়ে যাবেন ধনাঢ্য বিনিয়োগকারী এই সামান্য সময়টুকু কাজে লাগিয়ে তাকে এমন আকর্ষণীয়ভাবে আইডিয়াটি বলতে হবে, যাতে তিনি উদ্যোক্তার সঙ্গে কাজ করতে আগ্রহী হয়ে ওঠেন
বিশ্বের নানা বিশ্ববিদ্যালয়ে অনেক দিন ধরে রকম প্রতিযোগিতা আয়োজিত হয়ে এলেও বাংলাদেশে ধারনা নতুন
পিচ টু উইনপ্রতিযোগিতায় অংশ নেয় মোট ৬৫টি দল আর ফাইনালিস্ট হিসেবে অংশ নেয় ২১টি দল অংশগ্রহণকারী অনেকেই জীবনে প্রথমবারের মতো ব্যবসায় পরিকল্পনা উপস্থাপন করছেন, তাও ছয়জন ঝানু উদ্যোক্তা প্রতিষ্ঠিত ব্যবসায়ীর সামনে! হাতে সময় নিয়ে বুঝিয়ে বলার এখানে কোনো সুযোগ নেই যেন বাস্তবজীবনে কীভাবে সুযোগের সর্বোচ্চ সদ্ব্যবহার করে তুখোড় উদ্যোক্তা হওয়া যায়, তারই প্রশিক্ষণ পর্ব
প্রতিযোগিতায় একের পর এক দারুণ সব আইডিয়া উপস্থাপন করে উপস্থিত সবাইকে অভিভূত করে ফেলেন সম্ভাবনাময় তরুণ এই উদ্যোক্তারা শিশুদের জন্য কম খরচে নতুন ধরনের সুষম খাদ্যপুষ্টিগুণ’, শহরের বাড়ি কিংবা অ্যাপার্টমেন্টের বর্জ্য থেকে বায়োগ্যাস উৎপাদনের জন্যস্মার্ট গ্যাস প্ল্যান্ট’, বাসার ছাদে সবজি চাষের প্রকল্পআরবান ফার্মিং’, গরুর দুধের বিকল্পসয়ামিল্ক’, আখের ছোবড়া থেকে বানানো জৈব সারইকোলাইজার’-এর মতো নিত্যনতুন উদ্ভাবন আর আকর্ষণীয় উপস্থাপনা ছিল সত্যিই উপভোগ্য উপস্থিত উদ্যোক্তা বিনিয়োগকারীদের অনেকে এসব ব্যবসায় আইডিয়াকে বাস্তবে রূপ দিতে একসঙ্গে কাজ করারও আগ্রহ প্রকাশ করেন
প্রতিযোগিতা শেষে ৫০ হাজার পুরস্কার জিতে নেন নর্থসাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ের অর্থনীতি বিভাগের শিক্ষার্থী মাহবুবুর রহমানের পরিকল্পনাইনফোবাংলা আইডিয়াটি ব্যাখ্যা করতে গিয়ে মাহবুব বলেন, ‘বাংলাদেশে প্রয়োজনের সময় হাতের নাগালে তথ্য খুঁজে পাওয়া একটি বিরাট সমস্যা পাসপোর্ট করতে কী কী কাগজ প্রয়োজন হবে বা ড্রাইভিং লাইসেন্স নিতে হলে কীভাবে আবেদন করতে হবে, এমন প্রশ্নের নির্ভরযোগ্য উত্তর খুঁজে পেতে হয়রান হয়ে পড়েন সাধারণ মানুষ শুধু তা নয়, ভুল তথ্যের জন্য ভোগান্তির শিকার হওয়াও আমাদের দেশে নতুন কিছু নয় তথ্য সম্পর্কিত সব সমস্যার সমাধান করবেইনফোবাংলাকল সেন্টার ওয়েবসাইট কোনো তথ্যের প্রয়োজনে নির্দিষ্ট নম্বরে ফোন করলেই জানা যাবে নির্ভরযোগ্য উত্তর, যদি তৎক্ষণাৎ ইনফোবাংলায় পর্যাপ্ত তথ্য না থাকে, তাহলে পরবর্তী ২৪ ঘণ্টার মধ্যে তা জোগাড় করে তারাই ফোন করবে তথ্য অনুসন্ধানকারীকে প্রয়োজনীয় তথ্যের জন্য আর এখানেসেখানে ছুটতে হবে না, বাঁচবে সময় অর্থমাহবুবের পরিকল্পনা মুগ্ধ করে বিচারকমণ্ডলী উপস্থিত সবাইকে
তবে দুই মিনিটের বক্তব্যে ৫০ হাজার টাকা জিতে ফেলাটা এত্ত সহজ ছিল না! মাত্র .১৩ নম্বরের ব্যবধানে দ্বিতীয় স্থান অর্জন করেন কম্পিউটার সায়েন্স বিষয়ে ব্র্যাক বিশ্ববিদ্যালয়ের স্নাতক সাব্বির হোসেন তাঁর আইডিয়ার নাম ছিলমিডিয়াবাবল
তরুণ উদ্যোক্তারা এমন একটি প্ল্যাটফর্ম পেয়ে দারুণ খুশি বাংলাদেশ ইউনিভার্সিটি অব প্রফেশনালসের (বিইউপি) বিবিএ প্রথম বর্ষের শিক্ষার্থী সৌমিক আসওয়াদ নাইমা রশিদ জানান, ‘আমাদের পরিকল্পনাটি অভিজ্ঞ উদ্যোক্তা ব্যবসায়ীদের সামনে উপস্থাপন করায় আমরা অনেক কিছু শিখতে পেরেছি ছাড়া তাঁরা অনেক গুরুত্বপূর্ণ পরামর্শও দিয়েছেন পরিকল্পনাটি বাস্তবে রূপ দিতে তাঁদের উৎসাহ আমাদের সত্যিই অনুপ্রাণিত করেছে

 

শেয়ার করুন