‘চিকিৎসা শেষে ফিরবেন তারেক’

0
99
Print Friendly, PDF & Email

একাধিক গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি থাকা অবস্থায় লন্ডনে অবস্থানরত বিএনপির জ্যেষ্ঠ ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমান চিকিৎসা শেষে বাংলাদেশে ফিরবেন।’চিকিৎসা শেষে ফিরবেন তারেক’
রোববার নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে বক্তব্য রাখছেন দলের চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা শামসুজ্জামান দুদু। ছবি: সমকাল
 
তারেকের মা ও বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়ার উপদেষ্টা শামসুজ্জামান দুদু রোববার দুপুরে একথা বলেছেন।  গত পাঁচ বছর ধরে লন্ডনে অবস্থানরত তারেককে ইন্টারপোলের মাধ্যমে গ্রেফতার করে দেশে ফেরাতে দুপুরেই পরোয়ানা জারি করে ঢাকার একটি আদালত।
 
এর পরপর সাংবাদিকদের তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়া জানান দুদু। ২০০৭ সালে সেনা সমর্থিত তত্ত্বাবধায়ক সরকার ক্ষমতায় আসার পর গ্রেফতার হন তারেক রহমান।
 
ওই তত্ত্বাবধায়ক সরকারের আমলেই জামিন পেয়ে চিকিৎসার জন্য লন্ডন যাওয়া তারেক আর দেশে আসেননি। চাঁদাবাজি, দুর্নীতি, ঘুষ, কর ফাঁকিসহ মোট ১৪টি মামলা রয়েছে তার বিরুদ্ধে।
 
বর্তমান সরকারের আমলে ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা মামলায় সম্পূরক অভিযোগপত্রে আসামি করা হয় তারেক রহমানকে। এছাড়া অর্থপাচারের নতুন মামলাও হয় তার বিরুদ্ধে। দু’টি মামলাতেই গ্রেফতারি পরোয়ানা জারির পর তাকে পলাতক দেখিয়ে সাক্ষ্যগ্রহণ চলছে।
 
রোববার গ্রেফতারি পরোয়ানা জারির তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়ায় শামসুজ্জামান দুদু বলেন, “সরকার প্রতিহিংসার বশবর্তী হয়ে এই গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করেছে।”
 
শামসুজ্জামান দুদুর দাবি
সরকার প্রতিহিংসার বশবর্তী হয়ে এই গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করেছে।
তারেক রহমান আইন মেনেই বিদেশে গিয়েছেন উল্লেখ করে দুদু বলেন, “চিকিৎসা শেষে তিনি দেশে ফিরে আসবেন।”
 
তিনি বলেন, ‘তাকে হেয় প্রতিপন্ন করার জন্য এবং ব্যক্তিত্বকে ক্ষুন্ন করার জন্য এই পরোয়ানা’
 
গত পাঁচ বছর ধরে লন্ডনে থাকা তারেক গত ২১ মে যুক্তরাজ্য বিএনপির ৪২টি ইউনিটের নেতাদের সঙ্গে মতবিনিময়ের মাধ্যমে প্রকাশ্য রাজনীতিতে আসেন।
 
এ নিয়ে রাজনৈতিক অঙ্গনে ব্যাপক আলোচনার সৃষ্টি হয়। তাকে দেশে ফিরিয়ে ‘ব্যবস্থা’ নেয়ার দাবি ওঠে ক্ষমতাসীন জোটের পক্ষ থেকে। সরকারের পক্ষ থেকে ইতিমধ্যে তারেকের ওই মতবিনিময়েকে আইন-বহির্ভূত হিসাবে চিহ্নিত করা হয়েছে।
 
অন্যদিকে, তারেককে বাংলাদেশের ‘ভবিষ্যৎ প্রধানমন্ত্রী বিবেচনা’ করে তার সম্পর্কে ‘ভেবেচিন্তে’ কথা বলার আহ্বান জানিয়েছেন বিএনপিনেতারা।

শেয়ার করুন