স্বপ্ন পূরণের পথে থাইল্যান্ড, থাইল্যান্ড ১:০ ফিলিপাইন

0
64
Print Friendly, PDF & Email

পার্থক্যটা বিস্তর। তারপরেও ঢাকায় পা রেখেই থাইল্যান্ডকে হারানোর প্রত্যাশা করেছিলেন ফিলিপাইন কোচ আরনে নিয়েরাস। প্রথম ম্যাচে ইরানকে ৬-০ গোলে হারিয়ে তার সেই প্রত্যাশা বেড়ে যায় কয়েকগুণ। গতকাল বাংলাদেশকে ৯ গোলে হারানো থাইল্যান্ডের বিপক্ষে সেই প্রত্যাশা তারা পূরণ করতে পারেনি ফিলিপাইনের মেয়েরা। থাইল্যান্ডের কাছে তারা হেরে গেছে ০-১ গোলে। এই জয়ে এএফসি মহিলা এশিয়ান কাপের চূড়ান্ত পর্বে ওঠার সম্ভাবনা উজ্জল হলো থাইল্যান্ডের। শেষ ম্যাচে ইরানের সঙ্গে ড্র করতে পারলেই চূড়ান্ত পর্বের টিকেট পাবে থাই মেয়েরা। আর ফিলিপাইনকে মূলপর্বে খেলতে হলে ইরানের কাছে থাইল্যান্ডের বড় হার প্রত্যাশার সঙ্গে বাংলাদেশকেও বড় ব্যবধানে হারাতে হবে তাদের।
প্রথম খেথলায় বড় জয়ে চুড়ান্ত পর্বে ওঠার সম্ভাবনা থাকায় দু’দলই আক্রমনাত্মক মনোভাবে খেলা শুরু করে কাল। তবে তাগিদটা যেন বেশি ছিল ফিলিপাইনের। প্রথমার্ধেই বার কয়েক প্রতিপক্ষের সীমানায় আক্রমণ শানায় ফিলিপাইনের মেয়েরা। দশম মিনিটে নাম থং সামবাতের পেছনে দেয়া বলে গোলে শট নেন উইলাপর্ন বুথডাং। দূর্ভাগ্য তার, বল ক্রসবারে লেগে ফেরত আসে। পরের মিনিটেও তার আরেকটা সুযোগ খোয়ান নিসা রমইয়েন। তবে থাই মেয়েদের আক্ষেপ কাটে ৩৭ মিনিটে। আনুতসারা মাইজারিনের মাঝমাঠ থেকে বাড়ানো বল ধরবেন কিনা সিদ্ধান্ত নিতে বিলম্ব করেন ফিলিপিনো গোলরক্ষক মারিয়া চারিজ্জি। ছুটে এসে পেনাল্টি বক্সের ঠিক ভেতরে ঢুকে প্লেসিং করে বল গোলে পাঠান নিসা (১-০)। দল সাজানো আক্রমণাত্মক হলেও প্রথম ৪৫ মিনিটে ফিলিপিনোদের আক্রমণ মাত্র একটা। বেশ কয়েকটি সুযোগ নষ্ট করেন ফিলিপাইনের স্ট্রাইকার জেসে আন্নে সুগ। জোয়ানা ভায়া হপলিনের ঠেলে দেয়া বল ধরে দুই থাই ডিফেন্ডারকে কাটিয়েও শট নেন তিনি লক্ষ্যহীন! দ্বিতীয়ার্ধেও দুবার নিশ্চিত গোলের সুযোগ হারান তিনি। ৬৫ মিনিটে হিথার কুকের ভাসানো বল পোস্টের খুব কাছে থেকেও ভলি করতে পারেননি সুগ। ৮৫ মিনিটে নাতাশা ক্লাউদিনের বাড়ানো বল তার প্লেসিংয়ে থাই গোলরক্ষক ওয়ারাপর্ন বুনসিংয়ের বুকে লেগে ফেরত আসে। ৮৭ মিনিটে নাতাশার দেয়া বলে মারিয়া শিপের শট সাইড নেটে জড়ায়। তবে শেষ পনের মিনিট থাইল্যান্ডকে বেশ চেপে ধরেছিল। দূর্ভাগ্য, গোল পায়নি শারীরিক সক্ষমতায় এগিয়ে থাকা ফিলিপিনো মেয়েরা। আর ১-০ গোলে জিতে চুড়ান্তপর্বের পথে বড় বাঁধা টপকায় থাইল্যান্ড।

 

শেয়ার করুন