গার্মেন্ট কারখানায় ছদ্মবেশে মার্কিন সাংবাদিক

0
63
Print Friendly, PDF & Email

সাভারে রানা প্লাজা ধসে হাজারের বেশি পোশাককর্মীর প্রাণহানির ঘটনা বাংলাদেশের গার্মেন্ট খাতের প্রতি পশ্চিমা গণমাধ্যমের আগ্রহ আগের যেকোনো সময়ের তুলনায় অনেক বাড়িয়ে দিয়েছে।গার্মেন্ট কারখানায় ছদ্মবেশে মার্কিন সাংবাদিক
 
কারখানায় ভবিষ্যৎ দুর্ঘটনা এড়াতে পশ্চিমা ক্রেতা প্রতিষ্ঠান, আন্তর্জাতিক শ্রম সংস্থা এবং বাংলাদেশি সংশ্লিষ্ট মহলগুলো ইতিমধ্যে একটি সমঝোতা স্মারক তৈরি করেছে। পাশাপাশি পশ্চিমা গণমাধ্যমে বাংলাদেশি গার্মেন্ট নিয়ে নানা ধরনের প্রতিবেদন প্রকাশ হচ্ছে নিয়মিতই।
 
এতে সর্বশেষ সংযোজন ক্রেতার ছদ্মবেশে মার্কিন সিবিএস টেলিভিশনের সাংবাদিকদের বাংলাদেশি একটি গার্মেন্ট কারখানা পরিদর্শন।
 
সম্প্রতি বাংলাদেশে আসা সিবিএসের কয়েকজন সাংবাদিক গোপনে কারখানার ভেতরের দৃশ্যও ধারণ করেছেন।
সিবিএস টেলিভিশনের গোপনে ধারণ করা ভিডিও দেখতে ক্লিক করুন

টেলিভিশনটির ওয়েবসাইটে প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, তারা মন্ডে অ্যাপারেলস নামে একটি কারখানায় যান ক্রেতার ছদ্মবেশে। সেখানে এক হাজার চারশ কর্মী কাজ করেন।
 
কারখানাটিতে র‌্যাংলারের জন্য শার্ট এবং অ্যাসিক্সের জন্য খেলাধুলার উপযোগী পোশাক তৈরি করা হচ্ছিল।
 
কারাখানার ব্যবস্থাপক ছদ্মবেশি সাংবাদিকদের জানান, তাদের কারখানার ওয়ালমার্টের অনুমতি নেই। তবে অন্য একটি প্রতিষ্ঠানের মাধ্যমে তারা ওয়ালমার্টের জন্য ১০ লাখ বক্সার শর্টস তৈরি করছেন।
 
গার্মেন্ট কারখানায় ছদ্মবেশে মার্কিন সাংবাদিক
সিবিএস বলছে, কারখানার প্রধান মাসুদুল হক চৌধুরী তাদের জানান, ভবনে ১৩টি অগ্নিনির্বাপণ যন্ত্র আছে বলে জানালেও সেগুলো যথাস্থানে পাওয়া যায়নি।
 
গত ২৪ এপ্রিল সাভারে নয় তলা রানা প্লাজা ধসে ১১শর বেশি পোশাককর্মীর প্রাণহানির পর বাংলাদেশের গার্মেন্ট কারখানার নিরাপত্তা নিয়ে সোচ্চার হয়ে উঠেছে পশ্চিমা বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান ও সংগঠন। গত নভেম্বরে সাভারে আরেক কারখানায় আগুনে শতাধিক পোশাককর্মীর প্রাণহানির দুর্ঘটনাটিও রানা প্লাজা ধসের পর আবার নতুন করে আলোচনায় উঠে এসেছে।

শেয়ার করুন