গার্মেন্ট বাজারে তলায় নয়, নেতৃত্বে থাকতে চাই : ড. মুহাম্মদ ইউনূস

0
98
Print Friendly, PDF & Email

নোবেল জয়ী অর্থনীতিবিদ ড. মুহাম্মদ ইউনূস বলেছেন, নানা রকম মতামত থাকতে পারে। বিভক্তি থাকতে পারে। কিন্তু লক্ষ্য এক থাকতে হবে। রানা প্লাজার বিপন্নদের সহায়তার প্রশ্নে সংহতি থাকতে হবে। আমরা গার্মেন্ট বাজারের তলায় নয়, নেতৃত্বে থাকতে চাই। দুনিয়াতে মাথা উঁচু করে থাকতে চাই। সোমবার পিপিআরসি আয়োজিত সাভার ট্র্যাজেডি, শ্রমিকদের কল্যাণ ও চলমান অর্থনৈতিক সংকটে করণীয়’ শীর্ষক এক জাতীয় সংলাপে তিনি এসব কথা বলেন। রানা প্লাজার ঘটনায় বিদেশীদের কাছে আমাদের ভাবমূর্তি ক্ষুন্ন হয়েছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, আমাদের ক্ষমতা বিদেশীদেরকে বুঝিয়ে দিতে হবে। যেসব ক্রেতা চলে গেছে তাদেরকে ফিরিয়ে আনতে হবে। যারা ফিরে যেতে চাচ্ছে তাদেরকে বুঝাতে হবে। বাংলাদেশের পোশাক শ্রমিকদের কৃতদাস আখ্যা দিয়ে পোপের দেয়া বক্তব্য অসত্য প্রমাণ করতে হবে। এ জন্য কৃতদাস নয়, মানুষ হিসাবে বেঁচে থাকার জন্য প্রয়োজনীয় মজুরি নির্ধারণ করতে হবে।

ড. ইউনূস বলেন, বাংলাদেশ বিশ্বের দ্বিতীয় বৃহত্তম পোশাক রপ্তানিকারক দেশ। এটি গৌরববোধ করার মতো একটি বিষয়। তিনি বলেন, দেশের পোশাক শিল্পের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট প্রায় ৪০ লাখ নারী শ্রমিক আধুনিক বাংলাদেশের ভিত্তিস্থাপন করছেন। তাই তাদের কথা ভুলে গেলে চলবে না। ভবিষ্যত বাংলাদেশ গড়ার লক্ষ্যে আমাদেরকে এই ভিত্তি আরও শক্ত করতে হবে। তাদেরকে আধুনিক মানুষ হওয়ার সুযোগ দিতে হবে। সঠিক মজুরি দিতে হবে। আমাদের সুযোগ রয়েছে।
সাভারের ভবন ধসের ঘটনার বিষয়ে ড. ইউনূস বলেন, এ ঘটনা থেকে শিক্ষা নিয়ে ভবিষ্যতে যাতে এ ধরনের ঘটনা আর না ঘটে সে লক্ষ্যে আমাদের এগিয়ে যেতে হবে। এ ঘটনার জন্য আমরা সবাই দোষী। আমরা যদি দোষ মেনে নেই, আত্মসমালোচনা করি; তাহলেই আমরা শুদ্ধ হতে পারতাম। তাই কাউকে দোষ না দিয়ে, কারও জন্য বসে না থেকে সবাইকে নিজ নিজ অবস্থানে থেকে এগিয়ে যাওয়ার জন্য আহ্বান জানান তিনি।
ড. ইউনূস আরও বলেন, আমরা পোশাক শিল্প, পোশাক কারখানার শ্রমিক ও বাংলাদেশকে রক্ষা করতে চাই। এই তিনটিই একসঙ্গে রক্ষা করতে হবে। সংহতিপূর্ণ জাতি হিসেবে আমাদের গড়তে হবে।
আলোচনায় মার্কিন রাষ্ট্রদূত ড্যান ডব্লিউ মজীনা, অধ্যাপক রেহমান সোবহান, গোলাম কাদের, মাহবুবুর রহমান, জামিলুর রেজা চৌধুরী, মাহমুদুল হক, শিরিন আক্তার, নাসির উদ্দিন, ওয়াজেদুল ইসলাম খান, ইউরোপীয় ইউনিয়নের ফার্স্ট সেক্রেটারি অ্যান্ড্রু বারনার্ড, স্থপতি মোবাশ্বার হোসেন, মোস্তাফিজুর রহমান, বিজিএমইএর সাবেক সভাপতি মহিউদ্দিন, মামুনুর রশিদ, সাভারের এনাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের চেয়ারম্যান মো. এনামুর রহমান, গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের ডা. জাফর উল্লাহ চৌধুরী, বিজিএমইএ সভাপতি আতিকুল ইসলাম প্রমুখ আলোচনায় অংশ নেন।

শেয়ার করুন