ধেয়ে আসছে ‘মহাসেন’

0
57
Print Friendly, PDF & Email

সমুদ্র বন্দরগুলোকে আপাতত তিন নম্বর স্থানীয় সতর্কতা সঙ্কেত দেখাতে বলেছে আবহাওয়া অধিদপ্তর।

আবহাওয়া অধিপ্তরের কর্তব্যরত আবহাওয়াবিদ হাফিজুর রহমান শনিবার দুপুরে বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে জানান, এস্পেক (ইএসসিএপি) প্যানেল শ্রীলংকার এক প্রাচীন রাজার নামে এ ঘূর্ণিঝড়ের নাম দিয়েছে ‘মহাসেন’।

তথ্য সংরক্ষণ ও বোঝানোর সুবিধার জন্য ঝড়গুলোর নাম দেয়া হয়, এজন্য আগেই নাম ঠিক করা থাকে।  

হাফিজুর রহমান জানান, দক্ষিণ-পূর্ব বঙ্গোপসাগর ও তৎসংলগ্ন এলাকায় অবস্থানরত গভীর নিম্নচাপটি সামান্য উত্তর-পশ্চিম দিকে সরে গিয়ে ঘনীভূত হয়ে ঘূর্ণিঝড় ‘মহাসেন’-এ পরিণত হয়ে একই এলাকায় অবস্থান করছে। এটি আরো ঘনীভূত হয়ে উত্তর-উত্তরপশ্চিম দিকে অগ্রসর হতে পারে।

যুক্তরাষ্ট্রের সামরিক বাহিনী সাইক্লোনের আশঙ্কা প্রকাশ করে বলেছে, তা আগামী মঙ্গলবার মিয়ানমারের রাখাইন প্রদেশ এবং এর সংলগ্ন বাংলাদেশের ওপর দিয়ে বয়ে যেতে পারে।

এই সময় বাতাসের বেগ ঘণ্টায় ১৬৬ কিলোমিটার পর্যন্ত উঠতে পারে বলে যুক্তরাষ্ট্রের নৌ ও বিমান বাহিনীর যৌথ টাইফুন সতর্কতা কেন্দ্রের পূর্বাভাসে বলা হয়েছে।

আবহাওয়া অধিদপ্তর জানিয়েছে, শনিবার সন্ধ্যা ছয়টায় চট্টগ্রাম সমুদ্রবন্দর থেকে ১ হাজার ৬০০ কিলোমিটার দক্ষিণে, কক্সবাজার সমুদ্রবন্দর থেকে ১ হাজার ৫১০ কিলোমিটার দক্ষিণে এবং মংলা সমুদ্রবন্দর থেকে ১ হাজার ৫৯০ কিলোমিটার দক্ষিণ-দক্ষিণপূর্বে অবস্থান করছিল ঘূর্ণিঝড় “মহাসেন”।

ঘূর্ণিঝড়ের কেন্দ্রে ৫৪ কিলোমিটারের মধ্যে বাতাসের এক টানা সর্বোচ্চ গতিবেগ ঘণ্টায় ৬২  কিলোমিটার, যা দমকা অথবা ঝড়োহাওয়ার আকারে ৮৮ কিলোমিটার পর্যন্ত বাড়ছে।

সাগরে মাছ ধরার নৌকা ও ট্রলারগুলোতে উপকূলের কাছাকাছি থেকে সাবধানে চলাচল করতে বলা হয়েছে।

সাগর মাঝারি ধরনের উত্তাল থাকায় চট্টগ্রাম, কক্সবাজার ও মংলা সমুদ্র বন্দরকে তিন নম্বর স্থানীয় সতর্কতা সঙ্কেত দেখিয়ে যেতে বলেছে আবহাওয়া অধিদপ্তর।

শেয়ার করুন