হৃদরোগ ঠেকাবে ইনজেকশন!

0
123
Print Friendly, PDF & Email

শুধু একটা ইনজেকশন- ব্যস, সব সমস্যার সমাধান। আক্রান্ত হৃৎপিণ্ড ধীরে ধীরে ছন্দ ফিরে পেতে থাকবে।
দারুণ এক আশার খবর শোনাচ্ছেন বিজ্ঞানীরা। হদরোগ-সংক্রান্ত এ খবরটা শোনামাত্র স্বস্তিতে নড়েচড়ে বসবে পৃথিবীজুড়ে কোটি কোটি মানুষ। বর্তমানে যে চিকিৎসা চালু আছে, তার কিছুই আর দরকার হবে না।হৃদরোগ ঠেকাবে ইনজেকশন!

শুধু একটা ইনজেকশন- ব্যস, সব সমস্যার সমাধান। আক্রান্ত হৃৎপিণ্ড ধীরে ধীরে ছন্দ ফিরে পেতে থাকবে। মেরামত হতে থাকবে তার ক্ষতিগ্রস্ত অংশগুলো। ব্রিটিশ হার্ট ফাউন্ডেশনের (বিএইচএফ) মেডিকেল ডিরেক্টর প্রফেসর পিটার ওয়েসবার্গ বলেছেন, “হৃৎপিণ্ডবিষয়ক বিজ্ঞানের ক্ষেত্রে এটা নতুন ক্ষেত্রগুলোর একটা। এটা এক যুগান্তকারী আবিষ্কার। এর মাধ্যমে হৃদরোগে মৃত্যুর ঝুঁকি অর্ধেকে নেমে আসবে। কমে আসবে হার্ট ট্রান্সপ্ল্যান্টের হারও।”

লন্ডনের ডেইলি এক্সপ্রেসের রিপোর্টে জানানো হয়েছে এমনটা।

ইনজেকশনটা এখনও পুরোপুরি ব্যবহার উপযোগী হয়নি। আরও কিছু কাজ করতে হবে এর ওপর। গবেষকদের আশা, এটা যদি ঠিকমতো কাজ করে, তাহলে আট বছরের মধ্যে পৃথিবীর সব দেশেই পাওয়া যাবে।

প্রফেসর ওয়েসবার্গ বলেছেন, “বিএইচএফের গবেষণাগারে এটা নিয়ে বছরের পর বছর কাজ করা হয়েছে এবং এটা এখন একটা প্রতিশ্রুতিশীল আবিষ্কার হিসেবে প্রকাশিত হতে যাচ্ছে।”

গবেষকরা বলেছেন, এ ইনজেকশন আসলে এক ধরনের জিন থেরাপি। এ জিন হৎপিণ্ডের নষ্ট হয়ে যাওয়া রক্তসঞ্চালন প্রক্রিয়াগুলোকে পুনরুজ্জীবিত ও কর্মক্ষম করে তোলে। জিন থেরাপি হচ্ছে হার্ট সায়েন্স বা হৃৎপিণ্ডবিষয়ক বিজ্ঞানের এক নবতর সংযোজন। এটা হচ্ছে প্রযুক্তির সর্বশেষ নমুনা, যা ব্রিটিশ হার্ট ফাউন্ডেশন হৃদরোগের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে ব্যবহার করতে যাচ্ছে। অতিরিক্ত অ্যালকোহল সেবন, রোগ কিংবা ইনফেকশনের ফলে হৎপিণ্ডের কোষের ক্ষতি হতে পারে। এ ক্ষতি পোষাতেই জিনটির রয়েছে দারুণ ক্ষমতা। একবার যদি কোনোভাবে হৎপিণ্ডের কোষগুলো ক্ষতিগ্রস্ত হয়, তাহলে খুব শিগগিরই হৎপিণ্ডের রক্তসঞ্চালন প্রক্রিয়া দুর্বল হয়ে পড়ে এবং এক সময় হৎক্রিয়া বন্ধ হয়ে মানুষ মারা যায়।

তা কত পড়বে এই ইনজেকশনের দাম?

খুব বেশি হবে না বলেই আশ্বস্ত করছেন গবেষকরা। কয়েকশ’ থেকে কয়েক হাজার পাউন্ড হতে পারে খুব বেশি হলে। প্রতিটি হার্ট ট্রান্সপ্ল্যান্টের খরচ যেখানে ২ লাখ পাউন্ড, সেখানে এ খরচ তার সামান্যই।

শেয়ার করুন