লাশ উদ্ধার ৩০৪, হস্তান্তর ২৮৬, জীবিত ২৩৫৩

0
67
Print Friendly, PDF & Email

সাভার বাসস্ট্যান্ডের কাছে রানা প্লাজার ধ্বংস্তূপের নিচ থেকে শুক্রবার বিকেল ৫টা পর্যন্ত ৩০৪টি লাশ উদ্ধার করা হয়েছেএর মধ্যে ২৮৬টি লাশ স্বজনের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছেঅন্য লাশগুলো হস্তান্তরের অপেক্ষায় রয়েছেএছাড়া ২হাজার ৩৫৩ জনকে জীবিত উদ্ধার করা হয়েছেহস্তান্তরের অপেক্ষায় থাকা লাশগুলো সাভার অধর চন্দ্র উচ্চ বিদ্যালয় রাখা হয়েছেআহতদের নেওয়া হচ্ছে এনাম মেডিকেলে কলেজ ও হাসপাতালে আন্ত:বাহিনী জনসংযোগ পরিদপ্তরের (আইএসপিআর) ব্রিফিংয়ে এ তথ্য জানানো হয়দুর্ঘটনার ৩য় দিন শুক্রবার ২০জনের লাশ ও ৭২জনকে জীবিত উদ্ধার করা হয়েছে বলে আইএসপিআরের পরিচালক শাহীনুল ইসলাম জানিয়েছেনএর আগে লাশ হস্তান্তর গণনার কাজে নিয়োজিত সাভার থানার সিনিয়র এএসপি মো. মশিউল্লাহ রেজা বাংলানিউজকে বলেন, “উদ্ধারকৃত লাশ থেকে বেশি দুর্গন্ধ বের হচ্ছে, সে রকম ২৬টি লাশ আঞ্জুমান মুফিদুলে পাঠানো হয়েছেতবে অপেক্ষমান স্বজনের চেয়ে লাশের সংখ্যা অপ্রতুল

তিনি জানান, অনেক স্বজন তাদের হারানো স্বজন ফিরে পেতে স্বপ্রণোদিতভাবে অধর চন্দ্র উচ্চ বিদ্যালয় ও এনাম মেডিকেল কলেজের দেওয়ালে নাম-ঠিকানা লিখে টানিয়ে রেখেছেনস্বজনের আহাজারিতে শোকাহত সবাইঅনেক স্বজন স্বজনের সন্ধান না পেয়ে বার বার মূর্ছা যাচ্ছেনএদিকে, ঘটনাস্থলে উপস্থিত নবম পদাতিক ডিভিশনের জিওসি চৌধুরী হাসান সোহরাওয়ার্দী বাংলানিউজকে জানান, শুক্রবার পর্যন্ত জীবতদের উদ্ধারে অভিযান চলবেতার পর জীবিত আর কারো আটকে থাকার সম্ভাবনা কমে যাবেতাই শুক্রবারের পর থেকে কেবল লাশ উদ্ধার অভিযান চলবেএ পরিস্থিতিতে হাসপাতাল ও অধর চন্দ্র বিদ্যালয়ে দেখা গেছে, আপনজনের মরদেহ নিতে অপেক্ষায় আছেন উকণ্ঠিত স্বজনরাপরিচয় শনাক্ত করার পর স্বজনদের কাছে মরদেহ হস্তান্তর করা হচ্ছেএখনও ধসে যাওয়া ভবনের নিচে অসংখ্য মানুষ আটকা পড়ে আছেনতাদের উদ্ধারে তপর রয়েছে সেনাবাহিনী, নৌবাহিনী, ফায়ার সার্ভিস, আনসার, র‌্যাব, পুলিশ ও স্থানীয় লোকজনএর আগে দুর্ঘটনার দ্বিতীয় দিন সকাল ১০টার দিকে সেনা, নৌ ও বিমানবাহিনীপ্রধান ঘটনাস্থল পরিদর্শনে আসেনঘটনাস্থলে আসেন মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী ক্যাপ্টেন (অব.) এবি তাজুল ইসলাম, স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শামসুল হক টুকু, জাতীয় সংসদের সরকার দলীয় চিফ হুইপ উপাধ্যক্ষ আব্দুস শহীদ, স্থানীয় সাংসদ তৌহিদ জং মুরাদবিকেলে বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াও সাভারের দুর্ঘটনাস্থল পরিদর্শনে আসেনশুক্রবার সকালে অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিতও ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন

উল্লেখ্য, বুধবার (২৪ এপ্রিল) সকাল পৌনে ৯টার দিকে সাভার বাজার বাসস্ট্যান্ডের পাশে রানা প্লাজা নামে বহুতল ভবনটি ধসে পড়ে

আহতদের এনাম মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালসহ আশপাশের অন্য হাসপাতাল, পঙ্গু হাসপাতাল, সিএমএইচ, ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালসহ বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে

সাভার পৌর যুবলীগের জ্যেষ্ঠ যুগ্ম আহ্বায়ক সোহেল রানার মালিকানার এই ভবনের প্রথম ও দ্বিতীয় তলায় ইলেকট্রনিক্স, কম্পিউটার, প্রসাধন সামগ্রী ও পোশাকের দোকান ছিলভবনটির তৃতীয় তলা থেকে ওপর পর্যন্ত কয়েকটি গার্মেন্ট কারখানা ছিলএগুলো হলো-নিউ ওয়েভ বটমস লিমিটেড, নিউ ওয়েভ স্টাইল, নিউ ওয়েভ অ্যাপারেলস, ফ্যান্টম অ্যাপারেলস লিমিটেড, ফ্যান্টম ট্যাক লিমিটেড ও ইথার টেক্সটাইল লিমিটেডছয় তলা ভবন নির্মাণের অনুমতি নিয়ে নয় তলা ভবন তৈরি করা হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছেদুর্ঘটনার পর হাজার হাজার মানুষ ছুটে যান সাভারেসাভারে ঢাকা-আরিচা মহা্সড়কে যানবাহন চলাচল বন্ধ হয়ে যায়এর আগে গত নভেম্বর মাসে সাভারের আশুলিয়ায় তাজরিন ফ্যাশন্সে অগ্নিকাণ্ডে শতাধিক পোশাক শ্রমিকের প্রাণহানি হয়

 

 (রুপশী বাংলা নিউজ)২৬ এপ্রিল /২০১৩.

 

শেয়ার করুন