ভোজ্যতেলের অযৌক্তিক দাম

0
69
Print Friendly, PDF & Email

বিশ্ববাজারে অপরিশোধিত ভোজ্যতেলের দাম কয়েক মাস ধরেই কমছেকিন্তু দেশে প্রতি লিটার পরিশোধিত সয়াবিন তেল বিক্রি হচ্ছে যৌক্তিক দামের চেয়ে পাঁচ টাকা বেশি দরেবোতলজাত তেলের দাম আরও বেশি
বাণিজ্য মন্ত্রণালয়কে ৮ এপ্রিল দেওয়া এক প্রতিবেদনে এমন পর্যবেক্ষণ তুলে ধরেছে বাংলাদেশ ট্যারিফ কমিশনের অত্যাবশ্যকীয় পণ্য তদারক সেলস্থানীয় বাজারে সয়াবিন তেলের দাম না কমায় প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়ারও সুপারিশ করা হয়েছে ওই প্রতিবেদনে
একই সঙ্গে প্রতি লিটার সয়াবিন তেলের মিল গেটে দাম ১০৯ টাকা এবং পাম তেলের দাম ৭৬ টাকা নির্ধারণের পক্ষে সুপারিশ করেছে তদারক সেল
তদারক সেলের সদস্য মাহমুদ হাসান প্রথম আলোকে বলেন, যেহেতু এখন আন্তর্জাতিক বাজারে পণ্যের দাম কম, তাই পবিত্র রমজান মাস সামনে রেখে এখনই বর্তমান দামে ভোজ্যতেল ও চিনি আমদানি করে মজুত বাড়ানোর জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া যেতে পারে
ট্যারিফ কমিশন এক মাসের ইন বন্ডের (কাস্টমসে কী পরিমাণ ভোজ্যতেল ঢুকেছে) গড় মূল্য, এক মাসের ঋণপত্র (এলসি) খোলার গড়, সর্বশেষ সাত দিনের আউট বন্ডের (যা খালাস হয়ে কারখানায় চলে গেছে) গড় মূল্য যোগ করে পুনরায় গড় করে যে মূল্য পাওয়া যায়, সেই মূল্যকে অপরিশোধিত সয়াবিন তেলের মূল্য ধরেএর সঙ্গে পরিশোধন ও অন্যান্য খরচ যোগ করে পরিশোধিত সয়াবিন তেলের দাম নির্ধারণ করে
সংস্থাটি হিসাব করে দেখেছে, মার্চ মাসের (১ থেকে ২৮) অপরিশোধিত সয়াবিন তেলের ইন বন্ডের গড় দাম ৯৮ হাজার ৩৪১ টাকা, এলসি খোলার (১ থেকে ২৬ মার্চ) গড় দাম ৮৮ হাজার ২৭৫ টাকা এবং সাত দিনের আউট বন্ডের গড় দাম ৯৯ হাজার ৪০ টাকাএই তিনটির গড় দাম দাঁড়ায় ৯৫ হাজার ২১৮ টাকাএই টাকাকে অপরিশোধিত সয়াবিনের দাম ধরে প্রতি লিটার পরিশোধিত সয়াবিন তেলের মিলগেট দর দাঁড়ায় ১০৮ টাকা ৮৩ পয়সাসে কারণেই তদারক সেল প্রতি লিটার সয়াবিন তেলের মিলগেট দাম ১০৯ টাকা নির্ধারণের সুপারিশ করেছে
একইভাবে ট্যারিফ কমিশন এক মাসের ইন বন্ড ও ঋণপত্র খোলা এবং সাত দিনের আউট বন্ডের গড় দাম হিসাব করে দেখেছে, প্রতি লিটার পাম তেলের মিলগেট দাম হওয়া উচিত ৭৬ টাকা ৭৮ পয়সা
তবে তদারক সেলের কাছে জমা দেওয়া তিনটি তেল পরিশোধনকারী প্রতিষ্ঠানের তথ্য অনুযায়ী, সয়াবিন তেলের মিলগেট দর এখনো ১১৪ টাকা লিটারঅর্থা লিটারে পাঁচ টাকা বেশি দামে বিক্রি হচ্ছে
তদারক সেলের অভিযোগ, সিটি ও টিকে গ্রুপ এবং বাংলাদেশ এডিবল অয়েল ছাড়া অন্য কোনো পরিশোধনকারী প্রতিষ্ঠান তেলের দাম ও সরবরাহের পরিমাণের তথ্য এই সেলকে দিচ্ছে না
প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, আন্তর্জাতিক বাজারে ভোজ্যতেলের দাম এ বছর সর্বোচ্চ পর্যায়ে ওঠার পর স্থানীয় বাজারে বোতলজাত তেলের দামও সে হারে নির্ধারণ করা হয়েছিলকিন্তু বর্তমানে আন্তর্জাতিক বাজারে তেলের দাম অনেক কমলেও দেশে বোতলজাত তেলের দাম কমানো হয়নি
ট্যারিফ কমিশন বলছে, বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান পাঁচ লিটার বোতলজাত তেলের বোতল ও মোড়কের খরচ ৫০ টাকা করে রাখছেকিন্তু এই ব্যয় ২৪ টাকা ৮৬ পয়সার বেশি হয় না বলে মনে করছে সংস্থাটিসে হিসাবে পাঁচ লিটার বোতলজাত তেলের দাম হওয়া উচিত ৫৯০ টাকাআবার পরিশোধনকারী প্রতিষ্ঠানগুলোর হিসাব অনুযায়ী, বোতলের খরচ ৫০ টাকা ধরলেও পাঁচ লিটার তেলের দাম হয় ৬১৫ টাকা
অথচ, বাজারে বিভিন্ন ব্র্যান্ডের পাঁচ লিটারের বোতলজাত সয়াবিন তেল বিক্রি হচ্ছে ৬৬০ থেকে ৬৭৫ টাকায়এ অবস্থায় তদারক সেল বোতলজাত সয়াবিন তেলের দাম যৌক্তিক পর্যায়ে আনতে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়কে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়ার সুপারিশ করেছে

২২ এপ্রিল /২০১৩.

শেয়ার করুন