ঐতিহ্যের কথা মনে করিয়ে দেয়’

0
102
Print Friendly, PDF & Email

খায়রুল আনাম শাকিলবিশিষ্ট সংগীতশিল্পী, ছায়ানটের সাধারণ সম্পাদক ও শিক্ষকপয়লা বৈশাখের ভোরে রাজধানীর রমনা বটমূলে হবে ছায়ানটের বর্ষবরণ অনুষ্ঠানবললেন এই আয়োজন নিয়ে বিস্তারিতছায়ানটের এবারের প্রস্তুতি যেমন…
প্রতিবছরের মতো এবারও ছায়ানটের প্রস্তুতি বেশ ভালোপ্রথমেই আমরা আলাপ-আলোচনা করে ঠিক করে নিয়েছি, অনুষ্ঠানে কী কী থাকবে, শুরুটা কেমন হবে না-হবেএরপর শুরু হয়েছে মহড়াবর্ষবরণের এবারের ভাবনা…
অনুষ্ঠানের প্রথম পর্যায়ে থাকবে যন্ত্রসংগীতবাঁশি, এসরাজ ও বেহালার সুর বাজবে ভোরের রাগের ওপরেসেই সুরের মাধ্যমে আহ্বান করা হবে সবাইকে অনুষ্ঠানে আসার ব্যাপারেমূল সংগীত আয়োজন শুরু হবে তার পরইসকালের স্নিগ্ধতার সঙ্গে সংগতি রেখে পাঁচ-ছয়টি গান করা হবেবাংলাদেশের ঐতিহ্য, মুক্তিসংগ্রাম ও দেশপ্রেম নিয়ে কথা বলা হবেপাশাপাশি থাকবে কবিতা আবৃত্তিএবার গাইবেন…
শতাধিক শিল্পী গাইবেনতাঁদের মধ্যে শিশুরা থাকবেছায়ানটের জ্যেষ্ঠ শিক্ষক ও নবীন শিক্ষকেরাও গাইবেন
পয়লা বৈশাখ মানেই যেন রমনা বটমূলে ছায়ানটের বর্ষবরণ…
ছায়ানটের বর্ষবরণ একটি অনুষ্ঠান, যেখানে বাঙালিরা এক হনধর্মীয় পরিচয় ভুলে এক জাতি, এক বাঙালি, এক মানুষ হয়ে রমনার বটমূলে মিলিত হন সবাইএদিন আমরা জাতীয়তার অঙ্গীকার করিচিনে নিই আমার আপনকেগ্রামগঞ্জে বহুকাল ধরেই মানুষ এই দিনটি উদ্যাপন করেকিন্তু আমরা শহুরে মানুষেরা আমাদের ঐতিহ্য ভুলে যাইবর্ষবরণ সেই ঐতিহ্যের কথা মনে করিয়ে দেয়আমরা আমাদের নিজস্বতাকে চিনে নিই
ফিরে দেখা…
১৯৬৭ সাল থেকে ছায়ানট বর্ষবরণের অনুষ্ঠানের আয়োজন করছেসেই সময় পাকিস্তান সরকার আমাদের সংস্কৃতিতে আঘাত হেনেছিলছায়ানটের উদ্যোগটি ছিল সাংস্কৃতিক আন্দোলনের মতোএই অনুষ্ঠানটির মাধ্যমে আমরা দেশপ্রেম ও জাতীয়তার প্রকাশ করিগর্ব করি বাঙালি হিসেবে নিজেদের পরিচয় বিশ্বের সামনে তুলে ধরেআমরা বিশ্বাস করি, দেশপ্রেম পোক্ত করার পেছনে ছায়ানটের এ উদ্যোগ অগ্রণী ভূমিকা রেখেছে
মুক্তিযুদ্ধ ও ছায়ানট…
মুক্তিযুদ্ধের সময় ছায়ানট অনুষ্ঠানটির আয়োজন করতে পারেনিতবে ছায়ানটের শিল্পীরা একটি দল গঠন করে মুক্তিযোদ্ধাদের উদ্বুদ্ধ করেছিলেন সাংস্কৃতিক নানা কর্মকাণ্ডের মাধ্যমেদেশ স্বাধীন হওয়ার পরও দেশপ্রেম সামনে রেখে প্রতিষ্ঠানটি কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছেছায়ানটের অর্জন অনেকতবে অর্জন পূর্ণাঙ্গ হবে সেদিন, যেদিন আমরা সবাই মনেপ্রাণে বাঙালি হতে পারবছায়ানট নিশ্চিত, সব দেশপ্রেমিকের সহযোগিতায় সেই লক্ষ্যে পৌঁছানো যাবে

 

(১২ এপ্রিল/২০১৩) নিউজরুম।

 

শেয়ার করুন