যৌতুকের বলি গৃহবধু নাজমা

0
94
Print Friendly, PDF & Email

২০ হাজার টাকা যৌতুক দিয়ে স্বামীর সংসারে এসেছিল অভাগী নাজমা (২৪)সেটা পাঁচ বছর আগেকিন্তু সুখ ছিল না স্বামীর ঘরেসংসারে অশাšির আগুন লেগেই ছিলবিয়ের তিন বছরের মাথায় নাজমার কোল জুড়ে জন্মনেয় অনিক(৩) নামে এক সন্তাননাজমার বাবার বিশ্বাস ছিল,- এবার বুঝি মেয়ের কপালে সুখ(!) সইবেকিন্তু যৌতুকের কারনে প্রাণটাই গেল

নাটোরের গুরদাসপুর উপজেলার নাজিরপুর ইউনিয়নের তুলাধুনা গ্রামে স্বামী-শ্বাশুরীর নির্যাতনে সোমবার রাতে খুন হয় নাজমাওই ঘটনায় নাজমার স্বামী আব্দুলাহ (৩০) শ্বাশুরী জীবনতারা(৪৫)সহ ছয়জনকে অভিযুক্ত করে গতকাল মঙ্গলবার দুপুরে থানায় একটি হত্যা মামলা হয়েছেনাজমার বাবা ওমর আলী বাদি হয়ে মামলা দায়ের করেনতবে কেউ গ্রেফতার হয়নিসিংড়া উপজেলার গুটিমহিষমারী গ্রামের ওমরআলীর মেয়ে নাজমাপাঁচ বছর আগে তাদের বিয়ে হয়েছিল

নাজমার ভাই মজিদ জানায়,- তাদের পারিবারিক অবস্থা স্বচ্ছল নয়তার পরও বোনের সুখের কথা ভেবে সাধ্যমত সহায়তা দেওয়া হয়েছেসর্বশেষ আবারও ৩০ হাজার টাকা যৌতুক দাবি করে নাজমার ওপর নির্যাতন চালায়  তার স্বামী আব্দুল­াহ ও শ্বাশুরী জীবনতারাএক পর্যায়ে সোমবার তারা নাজমাকে পিটিয়ে হত্যা করেমারা যাওয়ার পর তাদের ফোন করে জানানো হয়- নাজমা গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছেতারা রাতেই সেখানে ছুটে আসেমৃত্যুর কারন জানতে চাইলে-আব্দুল­াহ ও তার ¯^জনরা তাদের মারপিট ও ভয়ভীতি দেখিয়ে তাড়িয়ে দেয়পরে থানায় অভিযোগ দেওয়ার পর পুলিশ নাজমার লাশ উদ্ধার করে

 এব্যাপারে নাজমার শ্বাশুরী জীবনতারার দাবি- নাজমাকে বাবার বাড়িতে যেতে দেওয়া হয়নি-তাই অভিমানে গলায় পাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছেতবে যৌতুকের কারনে তাকে মারপিট করা হয়নিযৌতুকের কোন কারন নেই

গুরদাসপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. শফিকুল ইসলাম সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, হত্যা মামলা হওয়ার পর অভিযুক্তরা এলাকা ছাড়া হয়ে পড়েছেতার পরও অভিযোগটি খতিয়ে দেখা হচ্ছ্

২৬ মার্চ/২০১৩/নিউজরুম.

শেয়ার করুন