সমাপনী পরীক্ষার নম্বর

0
134
Print Friendly, PDF & Email

বাংলাদেশ সরকারের কোমলমতি শিশুদের ভবিষ্যতে যোগ্য নাগরিক হিসেবে গড়ে তুলতে গৃহীত পদক্ষেপগুলোর মধ্যে প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষা অন্যতমএতে পরীক্ষার প্রতি শিক্ষার্থীদের আগ্রহ সৃষ্টির মাধ্যমে তাদের পরীক্ষাভীতি দূর হবেগ্রেডিং পদ্ধতিতে ফল প্রকাশে তাদের হূদয় আরও বেশি আন্দোলিত হয়েছেআমি প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষার ফল প্রকাশের দিন দেখেছি, তারা মুক্তবিহঙ্গের মতো আনন্দের জোয়ারে ভেসে বেরিয়েছেতাদের এই বাঁধভাঙা হাসি আমাদের হূদয়কেও আনন্দের বন্যায় ভাসিয়েছেকিন্তু এত আনন্দ, এত উসাহ ও উদ্দীপনা বিষাদে পরিণত হতে বেশি সময় লাগেনি২০১২ সালে অনুষ্ঠিত প্রাথমিক বৃত্তি পরীক্ষার ফল গত ২৪ ফেব্রুয়ারি প্রকাশের পর মেধাবৃত্তি তালিকায় নাম না থাকায় এসব মেধাবী শিক্ষার্থীর অধিকাংশ কান্নায় ভেঙে পড়েছেনা পাওয়ার বেদনায় ক্ষতবিক্ষত হয়েছে তাদের হূদয়এ+ পেয়েও তারা বৃত্তি পায়নি কেন? এ প্রশ্ন তাদের মনেতারা জানতে চায়, পরীক্ষায় তারা কত নম্বর পেয়েছে? ১০ বছর বয়সের এই মেধাবী শিশুগুলো তাদের প্রথম পরীক্ষায় হোঁচট খেয়ে ছিটকে পড়েছে লেখাপড়া থেকেব্যর্থতার গ্লানিতে তারা উসাহ-উদ্দীপনা হারিয়ে হতাশ হয়েছেতাদের স্বপ্ন ভেঙে অন্ধকারে নিমজ্জিত হয়েছেকিন্তু এ থেকে উত্তরণের উপায় আছে কি? গ্রেডিং পদ্ধতিতে ফল প্রকাশের ফলে যারা এ+ পায়নি তাদের খাতা পুনর্মূল্যায়নের সুযোগ থাকেকিন্তু এ+ পাওয়ার পর তো আর সে সুযোগ থাকে নাআবার তাদের নম্বরও প্রকাশ করা হয় না, যা দেখে তারা খাতা পুনর্মূল্যায়নের আবেদন করতে পারবেতাহলে আমরা কীভাবে বুঝতে পারব যে সে ৮০ নম্বর পেয়েছে, নাকি ১০০ নম্বর পেয়ে এ+ পেলগত পরীক্ষায় আমাদের স্কুল থেকে ৫৭ জনের মধ্যে ৪২ জন এ+ পেয়েছেপ্রাথমিক ফলে এ+ পায়নি এমন আটজন শিক্ষার্থীর খাতা পুনর্মূল্যায়নের আবেদন করায় আরও চারজন এ+ পেয়েছেতাহলে বোঝা যায়, খাতাগুলো যাঁরা মূল্যায়ন করেন, তাঁদের অজান্তেই হোক কিংবা অবহেলার কারণেই হোক, কিছু কিছু শিক্ষার্থী তাদের প্রাপ্ত নম্বর থেকে বঞ্চিত হচ্ছেইফলে আশানুরূপ ফল না পেয়ে তারা মানসিকভাবে বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছেযদি ফল প্রকাশের সঙ্গে সঙ্গে নম্বর প্রকাশ করা হতো, তাহলে তারা এই ক্ষতির হাত থেকে রক্ষা পেতে পারততারা খাতা পুনর্মূল্যায়নের আবেদন করতে পারত, কারণ খাতা মূল্যায়নে ত্রুটি থাকাটা স্বাভাবিক
শিক্ষামন্ত্রীর প্রতি অনুরোধ, যারা এ+ পাবে, তাদের সবাইকে বৃত্তি দেওয়া সম্ভব না হলেও ফল প্রকাশের সঙ্গে সঙ্গে প্রাপ্ত নম্বর প্রকাশ করে আমাদের এই কোমলমতি শিশুদের আত্মবিশ্বাস বাঁচিয়ে রাখবেন
এম এ আলীম
অভিভাবক, ইমেপা অ্যাঞ্জেলস স্কুল

২৪ মার্চ/২০১৩/নিউজরুম.

শেয়ার করুন