“জামায়াতের ‘বি’ টিম হেফাজতে ইসলাম”

0
100
Print Friendly, PDF & Email

 

ঢাকা: বাংলাদেশ ইমাম-ওলামা সমন্বয় ঐক্য পরিষদের এক সংবাদ সম্মেলনে অভিযোগ করে বলা হয়েছে, ‘‘হেফাজতে ইসলামের গত কয়েকদিনের কর্মকাণ্ডে প্রমাণিত হয়েছে, হেফাজতে ইসলাম জামায়াতের উল্টো পিঠ।”

তারা জামায়াতের ‘বি’ টিম হিসেবে দেশে নৈরাজ্য সৃষ্টির জন্য পরিকল্পিতভাবে মাঠে নেমেছে বলেও এতে অভিযোগ করা হয়েছে।

বুধবার সকালে জাতীয় প্রেসক্লাব মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত সংবাদ সম্মেলনে সংগঠনের চেয়ারম্যান হযরত মাওলানা মো. ইসমাইল হোসেন লিখিত বক্তব্য পাঠকালে এ অভিযোগ করেন।

লিখিত বক্তব্যে বলা হয়, “যুদ্ধাপরাধীদের বিচার নস্যাৎ করতে হঠাৎ করে হেফাজতে ইসলাম নামের একটি ভূঁইফোড় সংগঠন ইসলামের নামে দেশে নতুন প্রজন্মের সন্তানদের মুরতাদ নাস্তিক বলছে। তারা আসলে ইসলাম নয়, জামায়াতকে হেফাজত করার কাজে লিপ্ত রয়েছে।”

এতে আরও বলা হয়, “হেফাজতে ইসলামের আমির হযরত মাওলানা শাহ আহমদ শফি (দা.রা.) হলেও তিনি যাদের কথায় চলেন, তারা সবাই জামায়াতে ইসলামের লোক।”

হেফাজতে ইসলামের চট্টগ্রাম সভাপতি আবদুর রহমান সাকা চৌধুরীর আত্মীয়, সাবেক শিবির নেতা ও সাকা মুক্তি পরিষদের নেতা মিজানুর রহমান, জঙ্গি সম্পৃক্ততায় আটক নেজামে ইসলামীর সভাপতি মুফতি এজাহারের ছেলে ও মাহমুদুল হাসান নিজামীকে গ্রেফতার করার দাবি জানানো।

এছাড়া মক্কা শরীফের গিলাফ পরিবর্তনের ছবি সাঈদীর মুক্তির মোনাজাত হিসেবে উল্লেখ করে যেসব পত্রিকায় মিথ্যা সংবাদ ছাপা হয়েছে, সেসব পত্রিকার প্রতি ধিক্কার জানানো হয় এতে।

ধর্মের নামে অপকর্ম সৃষ্টিকারীদের সম্মিলিতভাবে মোকাবেলার আহ্বান জানান হয় এ সংবাদ সম্মেলন থেকে।

সংগঠনের সহ-সভাপতি মাওলানা এস এইচ এম আরিফ বিল্লাল বুখারী ও মুসলিম শরীফের হাদিস উল্লেখ করে বলেন, “এক মুসলিম অন্যকে মুরতাদ, নাস্তিক বলতে পারেন না। যারা ইসলাম ও কোরআন হেফাজতের নামে ধ্বংসযজ্ঞ চালাচ্ছেন, তাদের মনে রাখা উচিত, পবিত্র কুরআনের হেফাজতকারী আল্লাহ নিজে।”
 

মার্চ ২০, ২০১৩

 

শেয়ার করুন