ভূমিকম্পের প্রভাবে সোনা!

0
101
Print Friendly, PDF & Email

গ্রিক পুরাণের সেই কাহিনি মনে আছে? রাজা মিদাস যা কিছু স্পর্শ করেন, ‘দৈব ক্ষমতাবলে তা-ই সোনায় রূপান্তরিত হয়বাস্তবেও এবার এ রকম কাহিনি শোনালেন অস্ট্রেলিয়ার একদল বিজ্ঞানীতাঁদের দাবি, ভূমিকম্পের প্রভাবে সোনা তৈরি হতে পারে
তাঁরা এ-সংক্রান্ত একটি নমুনাচিত্র (মডেল) তৈরি করেছেন
নেচার জিওসায়েন্স সাময়িকীতে গত রোববার প্রকাশিত প্রতিবেদনে গবেষকেরা জানান, ভূমিকম্পের আঘাত ভূ-অভ্যন্তরের ফাটল বরাবর এগিয়ে চলেএই প্রক্রিয়ায় শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত ছোট ছোট অনেক ফাটল থাকতে পারেভূমিকম্পের সময় ফাটলগুলো হঠা করেই প্রসারিত হয়তখন এসব ফাটলের মধ্যে পানি প্রবেশ করেভূপৃষ্ঠ থেকে প্রায় ছয় মাইল গভীরের ওই স্থানটিতে রয়েছে অবিশ্বাস্য রকমের উচ্চ তাপমাত্রা ও চাপসেখানে পানির সঙ্গে কার্বন ডাই-অক্সাইডের পাশাপাশি সোনা ও স্ফটিকজাতীয় খনিজ পদার্থও (যেমন: বালু-পাথর) থাকেউচ্চ তাপমাত্রা ও চাপের প্রভাবে পানি তাক্ষণিকভাবেই বাষ্পে পরিণত হয়আর সেই বাষ্প তীব্র চাপ সৃষ্টি করেফলে সোনা ও স্ফটিকজাতীয় খনিজ পদার্থ আশপাশের ভূপৃষ্ঠ ভাগের দিকে স্থানান্তরিত হয়এই প্রক্রিয়াকে বিজ্ঞানীরা প্রেশারকুকারের ঢাকনা খুলে দিলে যে রকমটি ঘটে, তার সঙ্গে তুলনা করেছেন
এই প্রক্রিয়ায় যে একবারেই বিপুল পরিমাণ সোনা সঞ্চিত হয়, তা নয়তবে সময়ের ব্যবধানে সেটা ঘটেতীব্র মাত্রার ভূমিকম্পের পাশাপাশি একেবারে স্বল্প মাত্রার ভূমিকম্পের (চার মাত্রা) প্রভাবেও এটি হতে পারেলাইভসায়েন্স ও ইউএস টুডে

২০ মার্চ/২০১৩/নিউজরুম.

শেয়ার করুন