মানব উন্নয়ন সূচক

0
100
Print Friendly, PDF & Email

জাতিসংঘ উন্নয়ন কর্মসূচির (ইউএনডিপি) মানব উন্নয়ন প্রতিবেদন ২০০৩প্রকাশিত হলোবৈশ্বিক মানব উন্নয়ন সূচকে এক ধাপ এগোল বাংলাদেশ২০১২ সালে বিশ্বের ১৭টি দেশের মধ্যে বাংলাদেশের অবস্থান ১৪৬তমআগের বছর অবস্থান ছিল ১৪৭তমদ্রুততম সময়ে উন্নতি করা বিশ্বের ১৮টি দেশের মধ্যে বাংলাদেশও রয়েছেনিঃসন্দেহে দারুণ স্বস্তিকর ও গর্বেরইউএনডিপির কান্ট্রি ডিরেক্টর পলিন ট্যামেসিস জানান, এইচডিআইয়ের ক্রমবৃদ্ধি দিয়ে মাপলে বাংলাদেশের সার্বিক অগ্রগতি সত্যিই ব্যতিক্রমী১৯৮০ সালের ভিত্তিমানে ৬৫ শতাংশ বেড়েছে
মানব উন্নয়ন নির্ধারণ সূচির তিন উপাদানআয়ুষ্কাল, শিক্ষা ও অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধিবর্তমানে স্বাস্থ্য খাতে নানা উন্নয়ন প্রযুক্তির ব্যবহার হচ্ছেবাড়ছে স্বাস্থ্যসচেতনতাকমছে শিশুমৃত্যুর হারশিক্ষার ব্যাপক উন্নয়ন হচ্ছে, প্রসার বাড়ছেউচ্চশিক্ষার প্রতি আগ্রহ বাড়ছে এবং সুযোগ সৃষ্টি হচ্ছে নানা কল্যাণমূলক পদক্ষেপপাসের হার বাড়ছেপাশাপাশি প্রয়োজন মেধার মানটা ধরে রাখা
দক্ষিণ এশিয়ার মানব উন্নয়নে সবচেয়ে এগিয়ে শ্রীলঙ্কাদেশটির বৈশ্বিক অবস্থান ৯২তম এবং উচ্চপর্যায়ভুক্তঅপরদিকে মানব উন্নয়ন সূচকে বাংলাদেশ এখনো নিম্নপর্যায়ভুক্ত হলেও দেশটির অগ্রগতি নিম্নপর্যায়ের গড় প্রবণতার চেয়ে বেশিআমাদের দেশে প্রতিটি উপাদনশীল খাতে ব্যাপক উন্নয়নের যথেষ্ট সম্ভাবনা আছেপ্রয়োজন শুধু মেধা ও সৃজনশীলতার একত্রীকরণ এবং তার বহিঃপ্রকাশ
এ দেশে এখনো অনেক মানুষ দারিদ্র্যসীমার নিচে বাস করেযার কারণে নিম্নশ্রেণীর মানুষেরা মানবেতর জীবনযাপন করেআর দারিদ্র্যমুক্ত দেশ গড়তে প্রয়োজন অর্থনৈতিক দ্রুত অগ্রগতিবাংলাদেশে বিভিন্ন শিল্পগুলো অর্থনীতিতে বিরাট ইতিবাচক ভূমিকা রেখে চলেছেকিন্তু রাজনৈতিক অস্থিরতায় ব্যাহত হচ্ছে অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি, যা কখনোই কাম্য নয়প্রয়োজন সর্বক্ষেত্রে স্থিতিশীলতা এবং অর্থনীতির চাকা সচল রাখার অনুকূল পথ
সঞ্জয় কুমার ভৌমিক
বসুন্ধরা আ/এ, শ্রীমঙ্গল

নিয়োগ
আমি একজন শিক্ষিত বেকার যুবকশিক্ষাজীবন শেষ করে বেকার জীবন কাটাচ্ছি২০১০ সালের রেজিস্টার্ড প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রকাশিত এক বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে আমি আমার প্রয়োজনীয় কাগজপত্র প্রদান করার মাধ্যমে আবেদন করিপরবর্তী সময়ে লিখিত ও মৌখিক পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হইউত্তীর্ণ প্রার্থীদের মধ্য থেকে কিছুসংখ্যক প্রার্থী নিয়োগ লাভ করেকিন্তু পদ খালি নেই এই অজুহাতে সারা দেশে আমরা কিছুসংখ্যক প্রার্থী উত্তীর্ণ হওয়ার এক বছর পরও নিয়োগ পাইনি
মাননীয় প্রধানমন্ত্রী গত ৯ জানুয়ারি ২৬ হাজার ২০০ রেজিস্টার্ড প্রাথমিক বিদ্যালয়কে জাতীয়করণ করেনএতে রেজিস্টার্ড স্কুলে অধিকসংখ্যক শূন্য পদের সৃষ্টি হয়জাতীয়করণ করার প্রায় দুই মাস অতিবাহিত হওয়ার পরও নিয়োগ না পেয়ে হতাশ জীবন কাটাচ্ছিএ ব্যাপারে আমি শিক্ষামন্ত্রী, সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষসহ মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর সুদৃষ্টি কামনা করছি
মোহাম্মদ আইউব আলী, ফেনী

 

২০ মার্চ/২০১৩/নিউজরুম.

শেয়ার করুন