উচ্চ আদালতের রায়ের পর তত্ত্বাবধায়কে ফিরে যাওয়া সম্ভব নয়

0
116
Print Friendly, PDF & Email

ঢাকা: বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার বক্তব্যের জবাবে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম বলেছেন, নিশ্চয়ই খালেদা জিয়ার পরিকল্পনা আছে কোনো মসজিদে আগুন দেওয়ার বা হামলা করার।

শনিবার বিকেল সাড়ে ৩টার দিকে আওয়ামী লীগ সভাপতির ধানমন্ডির রাজনৈতিক কার্যালয়ে আওয়ামী লীগ আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে দলের সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম এ কথা বলেন।

মুন্সীগঞ্জে বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার বক্তব্যের সূত্র ধরে তিনি বলেন, “তার (খালেদা জিয়া) পরিকল্পনার ক্ষেত্র প্রস্ত্তত করার জন্যই তিনি মসজিদে হামলা হতে পারে বলে জানিয়েছেন।”

তিনি আরও বলেন, “আমি আতঙ্কিত তার (খালেদা জিয়া) বক্তব্যে। আল্লাহই জানেন, তিনি (খালেদা) কোন মসজিদে আগুন দেবেন! হামলা করবেন, কত লোকের ক্ষতি করবেন!”

সৈয়দ আশরাফ বলেন, “বাংলাদেশে কে নাস্তিক, কে আস্তিক, তার বিচার হবে হাশরের দিনে।”

তিনি বলেন, “কে ধর্ম পালন করেন, কে ধর্ম পালন করেন না, তার বিচার হবে হাশরের দিন। উনাকে (খালেদা জিয়া) কি আল্লাহ থেকে  দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে, কে ধর্ম পালন করে, কে ধর্ম পালন করে না, কে আস্তিক, কে নাস্তিক তা দেখার!”

তিনি এসময় খালেদা জিয়ার সমালোচনা করে বলেন, “খালেদা জিয়া শেষ বিচারের দায়িত্ব নিয়েছেন!”

বিরোধী দলের সঙ্গে সংলাপ প্রসঙ্গে আওয়ামী লীগ সম্পাদক বলেন, “সংলাপ হতে হবে শর্তহীন। উনারা (বিএনপি) প্রস্তুত থাকলে সরকারও আলোচনার জন্য প্রস্তুত।”

তত্ত্ববধায়ক সরকারের প্রসঙ্গে তিনি বলেন, “উচ্চ আদালতের রায়ের পর পুরনো তত্ত্বাবধায়ক ব্যবস্থায় ফিরে যাওয়া সম্ভব নয়। নির্বাচিত প্রতিনিধিদের নিয়ে নতুন অ্যারেঞ্জমেন্ট হতে পারে। কিন্তু অনির্বাচিতদের দ্বারা সম্ভব নয়!”

সরকারবিরোধী আন্দোলনের সমালোচনা করে তিনি বলেন, “বর্তমান সরকার নির্বাচিত সরকার। ফু দিয়ে এ সরকারকে উড়িয়ে দেওয়া যাবে না। মেয়াদ শেষ হওয়ার এক মিনিট আগেও সরকার ক্ষমতা ছাড়বে না।”

উল্লেখ্য, শুক্রবার মুন্সীগঞ্জের লৌহজং গোয়ালীমান্দ্রা বাজারে সন্ত্রাসী হামলায় ক্ষতিগ্রস্ত মন্দির দেখার পর এক সমাবেশে সরকারের সমালোচনা করে বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া বলেন, “আমাদের দেশের সবচেয়ে বড় মসজিদ বায়তুল মোকাররম। সরকার সেখানে তালা দিয়ে রেখেছে। মসজিদে ঢুকতে দেয় না। অন্যদিকে, নাস্তিকদের পাহারা দিয়ে রেখেছে। সরকার একদিকে মসজিদে তালা দিয়ে রেখেছে। আর অন্যদিকে নাস্তিক-নষ্ট প্রকৃতির লোকদের পাহারা দিচ্ছে।”

এসময় তিনি আরও বলেন, “সরকারের পায়ের নিচে মাটি নেই। সে জন্য ইস্যু খোঁজে। এখন মন্দির ভাঙা শুরু করেছে। এরপর মসজিদও ভাঙতে পারে। সবাইকে সজাগ থাকতে হবে।”

মার্চ ১৬, ২০১৩

শেয়ার করুন