‘জামায়াতের রাজনীতি বন্ধের চিন্তা করছে সরকার’

0
84
Print Friendly, PDF & Email

 

  ঢাকা: সরকার জামায়াত-শিবিরের রাজনীতি বন্ধ করার চিন্তা করছে বলে মন্তব্য করেছেন আইনমন্ত্রী ব্যারিস্টার শফিক আহমেদ। রোববার হোটেল রূপসী বাংলায় আরবিট্রেশন ট্রেনিং প্রোগ্রামে তিনি এ কথা বলেন।

বাংলাদেশ ইন্টারন্যাশনাল ‌আরবিট্রেশন সেন্টার (বিআইএসি) ও  ইন্টারন্যাশনাল ল ইনস্টিটিউট, ওয়াশিংটন ডিসি এ প্রোগ্রাম আয়োজন করে।

আইনমন্ত্রী বলেন, “যে সংগঠন দেশে জঙ্গিবাদ কার্যক্রম পরিচালনা করে, যারা দেশের নিরীহ মানুষকে হত্যা করে, পুলিশকে হত্যা করে, দেশের সম্পদ নষ্ট করে। তাদের এ দেশের রাজনীতি করার কোনো অধিকার নেই।”

তিনি আরও বলেন, “কোনো গণতান্ত্রিক দেশে একটি রাজনৈতিক দল এ ধরনের ধ্বংসাত্মক কাজ করতে পারে না।”

নির্বাচন কমিশন জামায়াত-শিবিরের রাজনীতি বন্ধ করতে পারে কি না এমন এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, “যদি কোনো নিবন্ধিত রাজনৈতিক দলের আদর্শ, উদ্দেশ্য আমাদের দেশের সংবিধানের সঙ্গে সাংঘর্ষিক হয় তবে নির্বাচন কমিশন তাদের নিবন্ধন বাতিল করতে পারে।”

সম্প্রতি প্রধান নির্বাচন কমিশন‍ার বলেছেন, সরকার জামায়াতকে নিষিদ্ধ করলে নির্বাচন কমিশন তাদের নিবন্ধন বাতিল করতে পারে। এটা কি সম্ভব? -এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, “আমরা বিভিন্ন আইন পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে দেখছি। তাদের নিষিদ্ধ করার জন্য আমরা আইন খুঁজছি।”

এছাড়া প্রধানমন্ত্রী জামায়াত-শিবিরের রাজনীতি বন্ধ করার কথা বলেছেন বলেও জানান তিনি।

আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল আইন সংসদের চলতি অধিবেশনে সংশোধন করা সম্ভব কি না জানতে চাইলে তিনি বলেন, “প্রয়োজন হলে চলতি অধিবেশনেই আইসিটি আইন সংশোধন করে জামায়াত-শিবিরের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।”

এ সময় শফিক আহমেদ বলেন, “বাংলাদেশের জনসংখ্যা বাড়ছে। কিন্তু সেই তুলনায় জুডিশিয়াল সিস্টেম বাড়ছে না। এছাড়া জনসংখ্যার তুলনায় দেশের বিচার ব্যবস্থা এখনও নাজুক।”

বিচার বিভাগকে আরও গতিশীল করতে এরই মধ্যে বিচারকদের প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করেছেন বলেও জানান তিনি।

ফেব্রুয়ারি ১৭, ২০১৩

 

শেয়ার করুন