এ আন্দোলনের চার পয়সার দামও নেই – কাদের সিদ্দিকী

0
117
Print Friendly, PDF & Email

রুপশী বাংলা ডেস্ক(১০ ফেব্রুয়ারি, ২০১৩): সরকারের ইশারায় শাহবাগের আন্দোলন হয়ে থাকলে এ আন্দোলনের চার পয়সার দামও নেই বলে মন্তব্য করেছেন কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের সভাপতি বঙ্গবীর কাদের সিদ্দিকীতিনি ৭১ এর চিহ্নিত রাজাকার স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী মহীউদ্দীন খান আলমগীরকে মন্ত্রিসভা থেকে বহিষ্কারের দাবি জানিয়ে বলেন, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী পদে একজন রাজাকারকে বসিয়ে রেখে রাজাকারের বিচার করা যায় নাতাকে মন্ত্রিসভা থেকে বরখাস্ত করে ৭১ এর অপরাধের দায়ে গ্রেফতার করে বিচারের মুখোমুখি করা হোকতার বিচার করুন-কেউ সাক্ষ্য না দিলে আমি আদালতে গিয়ে সাক্ষ্য দেবআওয়ামী লীগের কোষাধ্যক্ষ বলে রাজাকার আশিকুর রহমানের বিচার করবেন না তা হবে নাতারা ৭১ এ পাকিস্তান সরকারের ডিসি ছিলেনএকজন রাজাকার কি অপরাধ করেছে, তারা কয়েক হাজার রাজাকারের চেয়ে বেশি অপরাধ করেছেআমরা সব রাজাকারের বিচার চাইসরকার প্রধান শেখ হাসিনাকে ইঙ্গিত করে তিনি বলেন, আওয়ামী লীগ করলে রাজাকার মুক্তিযোদ্ধা হয়ে যাবে আর আওয়ামী লীগ না করলে মুক্তিযোদ্ধা রাজাকার হয়ে যাবে-এ ধারণা থেকে সরে আসেনএ চিন্তা বড় বিপজ্জনকআপনি আমাকে হত্যা করতে চানআইয়ুব-ইয়াহইয়ার মতো সামরিক শাসকরা আমাকে হত্যা করতে চেয়েছিল পারেনিআর আপনিতো শাড়ি পরা, চুরি পরা এক মহিলাআপনি আমার কি করবেনতিনি যুদ্ধাপরাধের বিচারের নামে আওয়ামী লীগ পাতানো খেলা খেলছে বলেও মন্তব্য করেন
রাজধানীর ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউটে কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের চতুর্থ জাতীয় কাউন্সিলের উদ্বোধনী ভাষণে গতকাল তিনি এসব কথা বলেনকাউন্সিলে সংহতি প্রকাশ করে বিকল্পধারার প্রেসিডেন্ট ডা. একিউএম বদরুদ্দোজা চৌধুরী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ইঙ্গিত করে বলেন, দীর্ঘদিন পর দেশে দলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচনের চেষ্টা চলছেএসব করে কেন খামোখা গৃহযুদ্ধের দিকে দেশকে নিয়ে যাচ্ছেনদলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচন করা যাবে না, এ দাবিতে আমরা অটলদেশের মানুষও এ দাবির সঙ্গে একমততাই সংঘাত এড়াতে এ পথ থেকে ফিরে আসুন
অনুষ্ঠানের শুরুতে জাতীয় পতাকা উত্তোলন করা হয়এরপর পবিত্র কোরআন ও গীতা থেকে পাঠের মধ্য দিয়ে কার্যক্রম শুরু হয়এতে সভাপত্বি করেন বঙ্গবীর কাদের সিদ্দিকী
উদ্বোধনী বক্তৃতায় বঙ্গবীর কাদের সিদ্দিকী বলেন, আমি সকালে শাহবাগ থেকে এসেছিআজ শাহবাগে যে আন্দোলন হচ্ছে আমি সে আন্দোলনকে সমর্থন জানাইতবে আওয়ামী লীগের ইশারায় এ আন্দোলন হলে এর চার পয়সারও দাম নেইতিনি বলেন, শাহবাগে তরুণদের আন্দোলন স্বতঃস্ফূর্ত হলে এতে সমর্থন জানাবসাজানো হলে আর কেউ না দাঁড়াক আমি রুখে দাঁড়াব
তিনি বলেন, আওয়ামী লীগ সরকার আন্তর্জাতিক অপরাধ আদালত গঠন করেছেএ আদালতের বিচারক তাদের, তদন্ত কর্মকর্তা তাদের, উকিল তাদের, আদালত তাদেরসব কিছুই তাদেরতারপরও একজন (মাওলানা আজাদ) কম অপরাধ করলেন-তাকে দেয়া হলো ফাঁসিআরেকজন (কাদের মোল্লা) বেশি অপরাধী-তাকে দেয়া হলো যাবজ্জীবনআমি বলছি না, মানুষ বলছে সরকার এখানে আঁতাত করেছেআঁতাতের রায় তরুণ প্রজন্ম মেনে নেবে না বলেই তারা শাহবাগে প্রতিবাদ জানাতে এসেছেকাদের মোল্লার সঙ্গে কারা কারাগারে বৈঠক করেছে মানুষ তা জানতে চায়
তিনি বলেন, মুক্তিযুদ্ধের আগে আওয়ামী লীগের বহু বড় বড় নেতা, বড় বড় কথা বলেছেকিন্তু যুদ্ধ শুরু হলে তারা ভারতে পালিয়ে গিয়েছিলযুদ্ধের ময়দানে বড় নেতাদের পাওয়া যায়নিআমরা ছোট ছিলাম বলে যুদ্ধ করে দেশ স্বাধীন করেছিআজ যারা শাহবাগে জমায়েত হয়েছে, তারা ছোট বলেই তা করতে পেরেছেআমি তাদের সমর্থন করছিতাই বলে সাজেদা চৌধুরীর মতো একজন প্রবীণ রাজনীতিককে পানির বোতল ছুড়ে মারতে হবে তা মেনে নেব না
বঙ্গবীর বলেন, যারা রাজাকার আমরা তাদের বিচার চাইযারা রাজাকারদের রক্ষাকারী আমরা তাদের বিচার চাইযারা কাদের মোল্লার সঙ্গে কারাগারে বসে বৈঠক করেছে কারা সবচেয়ে বড় রাজাকার, আমরা তাদেরও বিচার চাইএদের সবার বিচার হতে হবে
ট্রাইব্যুনাল ভেঙে দেয়ার দাবিতে জামায়াত যে আন্দোলন করছে, তা গ্রহণযোগ্য নয় মন্তব্য করে তিনি বলেন, আমি জামায়াত নিষিদ্ধ হোক চাইসেটা পাকিস্তানি জামায়াতযারা বাংলাদেশে জন্ম নিয়ে জামায়াত নামে রাজনীতি করতে চান তাদের জনসম্মুখে বলতে হবে ৭১ এর গণহত্যার সঙ্গে তাদের কোনো সম্পর্ক নেইএটা না বলা পর্যন্ত তারা এ দেশে রাজনীতি করতে পারে নাতিনি বলেন, জামায়াতে ইসলামী যদি মনে করে তারা পাকিস্তানের জামায়াতে ইসলাম, তাহলে বাংলাদেশে তাদের ঠাঁই নাই, ঠাঁই নাইআর যদি দলটি বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামী হয় তাহলে তাদের ব্যাপারটি জাতির সামনে খোলাসা করতে হবেতাদেরও যুদ্ধাপরাধীদের বিচার চাইতে হবে
শাহবাগ থেকে একদল উগ্র বাম ইসলামী রাজনীতি বন্ধের যে দাবি তুলেছেন তার বিরুদ্ধে হুশিয়ারি উচ্চারণ করে তিনি বলেন, যতকাল পৃথিবীতে মুসলমান থাকবে ততকাল ইসলামী রাজনীতি থাকবেআইন করে ইসলামী আন্দোলনকে বন্ধ করা যাবে নাওলি আউলিয়াদের এ পুণ্যভূমিতে ইসলামী তরিকা থাকবেইসলামী আন্দোলন বন্ধ করতে বললে একজন মুসলমান হিসেবে আমি তা মেনে নেব না
তিনি বলেন, আওয়ামী লীগ সব সময় অযথাই জিয়াউর রহমানকে আক্রমণ করেএতে আমার রাগ ওঠে৭৫ সালে মেজর শফিউল্লাহ ছিল সেনা বাহিনীর প্রধানঅথচ তাকে আওয়ামী লীগের লোকজন গাল দেয় না
আজকের ইনুর (তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু) মতো মানুষকে মন্ত্রী বানানো হয়েছেএই ইনু ১৯৭৫ সালের ৭ নভেম্বর সিপাহী জনতার বিপ্লবের পর ট্যাঙ্কের ওপরে উঠে লাফ দিয়েছিলরাজনীতি লুটেরাদের হাতে চলে গেছে বলে-ইনুরা মন্ত্রী হতে পেরেছে
তিনি বলেন, দেশ আজ এক কঠিন পরিস্থিতির মুখোমুখিসময় নাই, আর সময় নাইমাননীয় প্রধানমন্ত্রী তাড়াতাড়ি ওই জায়গা থেকে নামেনজাতীয় নেতাদের সঙ্গে সংলাপে বসুননইলে আমার ভগ্নির কি যে দুর্দশা হবে তা আল্লাহ রাব্বুল আলামিনই জানেন
সাবেক প্রেসিডেন্ট একিউএম বদরুদ্দোজা চৌধুরী বলেন, একদল আছে, যারা বলে সব ধর্মীয় দল নিষিদ্ধ করতে হবেএটা বলার আগে একটু চিন্তা করতে হবেএ দেশে বহু ইসলামী দল আছে যারা জামায়াতবিরোধী
তিনি বলেন, দলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচন এ দেশে হবে নাহতে দেয়া যাবে নাআমার দল এ ব্যাপারে একাট্টাঅন্যান্য দলও নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে নির্বাচনের দাবিতে অনঢ়সরকারকে তাই এ পথ থেকে সরে আসতে হবে
অনুষ্ঠানে বিএনপি চেয়ারপার্সনের প্রতিনিধি হিসেবে যোগ দেন দলটির ভাইস প্রেসিডেন্ট আবদুল্লাহ আল নোমানঅন্যদের মধ্যে শুভেচ্ছা জানান, জাতীয় পার্টির (জেপি) চেয়ারম্যান আনোয়ার হোসেন মঞ্জু, জাতীয় পার্টির (এরশাদ) মহাসচিব রুহুল আমিন হাওলাদার, কাজী ফিরোজ রশিদ, নাগরিক ঐক্যের নেতা মাহমুদুর রহমান মান্না, কাদের সিদ্দিকীর স্ত্রী বেগম নাসরিন সিদ্দিকী প্রমুখ
কাউন্সিলকে কেন্দ্র করে সকাল থেকেই কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের নেতাকর্মীরা ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশনের সামনে জড়ো হতে থাকেন
সোয়া বারটার দিকে জাতীয় পতাকা উত্তোলনের মধ্য দিয়ে সম্মেলনের প্রথম অধিবেশনের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন ঘোষণা করা হয়এর আগে শিল্পীরা মঞ্চে গান পরিবেশন করেনমঞ্চে ওঠার পর অতিথিদের গামছা দিয়ে বরণ করে নেন দলের কয়েকজন কর্মীঅনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন দলটির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ইকবাল সিদ্দিকীএ সময় সাধারণ সম্পাদক হাবিবুর রহমান তালুকদারসহ দলের কেন্দ্রীয় ও ঢাকা মহানগরীর বিভিন্ন পর্যায়ের নেতারা উপস্থিত ছিলেনবিকালে দ্বিতীয় অধিবেশনে বিভিন্ন পর্যায়ের কমিটি নির্বাচন করা হয়
কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের পরিচয়পত্রে বলা হয়, ১৯৯৯ সালের ২৪ ডিসম্বর তত্কালীন শাসক দলের অগণতান্ত্রিক আচরণ ও নির্বাচনী প্রতিশ্রুতি ভঙ্গের প্রতিবাদে জাতীয় সংসদ থেকে পদত্যাগ করে এ দলটি গঠন করেন বঙ্গবীর কাদের সিদ্দিকী নিয়ে চতুর্থবারের মতো দলের জাতীয় কাউন্সিল অনুষ্ঠিত হলো

 

নিউজরুম

 

শেয়ার করুন