কাশিমপুর কারাগারে কয়েদির পোশাকে বিমর্ষ কাদের মোল্লা

0
58
Print Friendly, PDF & Email

 

কাশিমপুর,(৮ফেব্রুয়ারী): আব্দুল কাদের মোল্লা যাবজ্জীবন সাজার রায় হওয়ার পর কারাগারে এতদিন পাওয়া সুযোগ-সুবিধা হারিয়েছেন। আর সাধারণ কয়েদির পোশাক পরানোর পর জামায়াতে ইসলামীর এই নেতাকে বিমর্ষ দেখাচ্ছিল বলে জানিয়েছেন কাশিমপুরের কারাধ্যক্ষ সুভাষ চন্দ্র ঘোষ। যুদ্ধাপরাধ ট্রাইব্যুনালের রায়ে গত মঙ্গলবার কাদের মোল্লাকে যাবজ্জীবন সাজা দেয়া হয়, যদিও এই সাজা লঘু দাবি করে ফাঁসির রায়ের দাবিতে সারাদেশে বিক্ষোভ চলছে।
গত মঙ্গলবার রায়ের পর কাদের মোল্লাকে ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারে নেয়া হয়। সেখান থেকে বৃহস্পতিবার দুপুরে তাকে আনা হয় গাজীপুরের কাশিমপুরে ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারের পার্ট-২তে। একাত্তরে ‘মিরপুরের কসাই’ নামে পরিচিত কাদের মোল্লা বিচার চলাকালে কাশিমপুর কারাগারেই ছিলেন। রায়ের আগের দিন সোমবার তাকে ঢাকায় নেয়া হয়। ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারের পার্ট-২ এর কারাধ্যক্ষ সুভাষ চন্দ্র ঘোষ সাংবাদিকদের বলেন, কারাবিধি অনুযায়ী ডিভিশনের অযোগ্য অপরাধে সাজা হওয়ায় কারা হাজতি কাদের মোল্লার  আগের ডিভিশন বন্দির সব সুযোগ রহিত করা হয়েছে।

দুপুর দেড়টার দিকে তাকে সাধারণ কয়েদির মর্যাদা ও পোশাকে কারাগারের সাধারণ সেলে পাঠানো হয়েছে। এখান তিনি সাধারণ কয়েদির মতো সুযোগ-সুবিধা পাবেন। সাধারণ কয়েদির সেলে জামায়াতের এই সহকারী সেক্রেটারি জেনারেলকে ‘বেশ বিমর্ষ’ দেখা গেছে বলে কারা কর্মকর্তা জানান। কাদের মোল্লা গ্রেপ্তার হওয়ার পর ২০১০ সালের ১৯ জুলাই তাকে ঢাকার কেন্দ্রীয় কারাগার পাঠানো হয়। ২০১১ সালের ২৪ জুন তাকে কাশিমপুর কারাগারের পার্ট-২তে স্থানান্তর করা হয়। কাদের মোল্লার ফাঁসির রায় চেয়ে ঢাকার শাহবাগে টানা বিক্ষোভ ও অবস্থান কর্মসূচি চলছে।

শুক্রবার সেখানে মহাসমাবেশের কর্মসূচিও রয়েছে। বিক্ষোভ হচ্ছে জেলায় জেলায়। অন্যদিকে দলীয় নেতার বিরুদ্ধে রায়ের প্রতিবাদেগত বুধবার সারাদেশে হরতাল ডাকে জামায়াতে ইসলামী।
নিউজরুম

 

 

শেয়ার করুন