প্রজন্মের সম্মিলন নিয়ে শাহবাগে খেলাঘর

0
71
Print Friendly, PDF & Email

শাহবাগ,(৮ফেব্রুয়ারী) : তিন বছরের ফুটফুটে শিশু অবন্তিকার বুকে-পিঠে লাল-সবুজের চিহ্ন, হাতে রক্তে পাওয়া লাল সবুজের পতাকা। ষাট বছরের মুক্তিযোদ্ধা এমএ খালেক শেখের মাথায় গাঢ় রঙের লাল-সবুজের ক্যাপ।

মাঝখানে আরও বেশ কয়েকজন তরুণ-যুবক লাল-সবুজের অবয়বে। পেছনে শোভা পাচ্ছে জাতীয় পতাকা। সবাই এসেছেন শাহবাগের প্রজন্ম চত্বরে। তাদের সবারই এক দাবি, যুদ্ধাপরাধীদের ফাঁসি চাই।যুদ্ধাপরাধীদের ফাঁসির দাবিতে শাহবাগে যে গণআন্দোলন চলছে, সে আন্দোলনে অংশ নিতে খেলাঘরের পক্ষ থেকে এসেছেন সবাই।

মিছিলের অগ্রভাগে থাকা তিন বছরের শিশু অবন্তিকা ও জীবন বলে, “আমি টিভিতে দেখেছি ও (কাদের মোল্লা) মানুষ মেরেছে। ও খারাপ লোক, ওর খুনের বিচার ফাঁসিই হওয়া উচিৎ।”
খেলাঘরের কেন্দ্রীয় কমিটির চেয়ারম্যান অধ্যাপক পান্না কায়সার, ঢাকা মহানগর কমিটির সভাপতি ভোরের কাগজের সম্পাদক শ্যামল দত্ত, সাধারণ সম্পাদক আব্দুল মতিন ভূঁইয়া, সহ-সাধারণ সম্পাদক হান্নান চৌধুরী ও আবুল ফারাহ পলাশ, সম্পাদকমণ্ডলীর সদস্য অশোকেশ রায়, সিজার মল্লিক, আবু হাসান শাহীন, ঢাকা মহানগরী কমিটির সাধারণ সম্পাদক শফিকুর রহমান শহীদ, রাজন ভট্টাচার্যসহ নেতাকর্মীরা নতুন প্রজন্মের শিশু-কিশোরদের বিশাল র‌্যালি নিয়ে আসেন প্রজন্ম চত্ত্বরে। র‌্যালিতে অবন্তিকা-জীবন থেকে শুরু করে সবাই সমস্বরে স্লোগান দিয়েছেন, ‘‘ফাঁসি ফাঁসি ফাঁসি চাই, রাজাকারের ফাঁসি চাই। পাকিস্তানের প্রেতাত্নারা, পাকিস্তানে চলে যা।’’

বেলা সাড়ে ১২টার দিকে তারা তিন প্রজন্মের সম্মিলন ঘটিয়ে আসে আন্দোলনস্থলে। এর আগে যুদ্ধাপরাধীদের ফাঁসির দাবিতে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে ঘণ্টাব্যাপী মানববন্ধন করে খেলাঘর ঢাকা মহানগরী কমিটি।

ষাটোর্ধ মুক্তিযোদ্ধা এমএ খালেক শেখ বলেন, “আজ এখানে এসে একাত্তরের দুর্বিষহ দিনগুলোর কথা মনে পড়ছে। ছিয়ানব্বইয়ের পর যাদের জন্ম তারা ইতিহাস জানত না। আজ এই আন্দোলনের মাধ্যমে তারা মুক্তিযুদ্ধের চেতনা সম্পর্কে জানতে পারছে। রাজাকারদের বিচার দাবিতে নতুন প্রজন্মের জাগরণ দেখে জন্ম স্বার্থক মনে হচ্ছে।”

অবন্তিকার মা নিপা রায় বলেন, ‘‘আমিও মুক্তিযুদ্ধ দেখিনি, আমার মেয়েটাও দেখেনি। মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় দেশ গড়তে আমরা পুরো পরিবার খেলাঘর আন্দোলনের সঙ্গে জড়িত। কাঁদের মোল্লার ফাঁসি না হওয়ায় কষ্ট পেয়েছি। রায় বাতিল করে ওর ফাঁসি দিতে হবে। ফাঁসি দিতে হবে আর সব যুদ্ধাপরাধীরও। মেয়েকে নিয়ে এসেছি এখানে। ও এখন থেকেই মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস জানবে, সে চেতনায় গড়ে তুলবো মেয়ের জীবন।’’

খেলাঘরের ঢাকা মহানগর সভাপতি শ্যামল দত্ত বলেন, “খেলাঘরের স্লোগান- মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় নতুন প্রজন্ম গড়ে তোল।নতুন প্রজন্মকে মুক্তিযুদ্ধভিত্তিক চলচ্চিত্র দেখিয়ে মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস বোঝানো হয়েছে। এ কারণে তারা আজ সমবেত হয়েছে যুদ্ধাপরাধীদের বিচার দাবি করে।”

গত মঙ্গলবার থেকে চলা তরুণ প্রজন্মের গণজমায়েত শুক্রবার বিকেলে পাচ্ছে মহাসমাবেশের রুপ। আর এরই মধ্যে শাহবাগে জড়ো হয়েছেন লাখো মানুষ।

নিউজরুম

শেয়ার করুন