যুদ্ধাপরাধীদের ফাঁসির দাবীতে বিকেল ৩টায় মহাসমাবেশ, থাকছে না প্রধান অতিথি

0
44
Print Friendly, PDF & Email

শাহবাগ,(৮ফেব্রুয়ারী):  জামায়াত নেতা আব্দুল কাদের মোল্লার যাবজ্জীবন নয়, চাই মৃত্যুদণ্ড এমন দাবিতে শাহবাগে চলমান আন্দোলনের ৪র্থ দিনে অনুষ্ঠিত হবে মহাসমাবেশ। শুক্রবার বিকেল ৩টায় অনুষ্ঠিতব্য এ মহাসমাবেশে থাকবেনা কোনো প্রধান অতিথি।

 

আন্দোলনকারীরা জানান, অন্যান্য রাজনৈতিক দলের মতো মহাসমাবেশে থাকবে না কোনা প্রধান বা বিশেষ অতিথি। সারাদেশ থেকে আগত আন্দোলনকারীরা একই দাবিতে একত্রিত হয়েছে সকল ভেদাভেদ ভুলে। রাজনৈতিক মঞ্চ নয় বলে রাজনৈতিক কোন বক্তব্যও থাকবে না।

মহাসমাবেশে প্রস্তুতি বিষয়ে জানতে চাইলে ব্লগার অ্যান্ড অনলাইন অ্যাক্টিভিস্ট নেটওয়ার্কের সক্রিয় সদস্য রওশন ঝুনু বাংলানিউজকে বলেন, ‘আমরা কারো কাছে থেকে কোন ধরনের সহায়তা চেয়ে নিচ্ছি না। মহা-সমাবেশে উপলক্ষে পাঁচটির পাশাপাশি আরো তিন চারটি অতিরিক্ত মাইক আমাদের নিজস্ব খরচে সংযোজন করা হবে। তবে ভালবেসে এবং আমাদের আন্দোলনে একাত্মতা প্রকাশ করে যদি কেউ সহযোগিতা করতে চান সেক্ষেত্রে আমরা সাদরে গ্রহণ করব।’

 

তিনি আরও বলেন, এরইমধ্যেই ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশন ভ্রাম্যমাণ সৌচাগার, ওয়াসা বিশুদ্ধ খাবার পানি সরবরাহ করে সহায়তা করছে। এছাড়াও ঢাকা মেডিকেল কলেজের একটি টিম সমাবেশের সময় চিকিৎসা সেবা দেওয়ার কথা আমাদের জানিয়েছে। একই সঙ্গে অনেকেই বিভিন্ন সহায়তা দেওয়ার প্রস্তাব জানাচ্ছে।’

উল্লেখ্য, গত মঙ্গলবার(৫ ফেব্রুয়ারি) যুদ্ধাপরাধী জামায়াত নেতা আব্দুল কাদের মোল্লার যাবজ্জীবন রায় ঘোষিত হওয়ার পর উত্তাল হয়ে ওঠে রাজধানীর শাহবাগ এলাকা। যাবজ্জীবন নয়, মৃত্যুদণ্ড দিতে হবে এমন দাবিতে অবস্থান নেয় হাজারো জনতা।

 

সেই বিক্ষোভ এখন শুধু শাহবাগ নয়, মহান মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় স্বপ্রণোদিত হয়ে জেগে উঠেছে ৫৬ হাজার বর্গমাইলের সব শ্রেণী-পেশার মানুষ। অসীম সাহসিকতায় দৃঢ় প্রত্যয়ে যুদ্ধাপরাধীদের ফাঁসির দাবি উঠছে স্লোগানে, বক্তব্যে, মশাল মিছিল, প্রদীপ প্রজ্বলন ও বিক্ষোভে। চলছে বিভিন্ন সংগঠনের ব্যানারে গণস্বাক্ষর সংগ্রহ।

কেউই তাদের ডাকেননি। কেউ বলেননি সব প্রতিবন্ধকতা মাড়িয়ে যুদ্ধাপরাধীদের বিচারের দাবিতে গণআওয়াজ তুলতে। প্রত্যেকে ছুটে এসেছেন চেতনার টানে। আজ অনুষ্ঠিত হবে মহাসমাবেশ।

নিউজরুম

শেয়ার করুন