এমকে আনোয়ারের শো’কজ নোটিশের শুনানি ২৬ ফেব্রুয়ারি

0
99
Print Friendly, PDF & Email

ঢাকা,(৩ফেব্রুয়ারী) : আদালত অবমাননার অভিযোগে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য এমকে আনোয়ারকে দেওয়া কারণ দর্শাও (শো’কজ) নোটিশের বিষয়ে শুনানি অনুষ্ঠিত হবে আগামী ২৬ ফেব্রুয়ারি। এমকে আনোয়ারের আইনজীবীর সময় আবেদনের প্রেক্ষিতে এ দিন ধার্য করেছেন আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল-২।

রোববার এমকে আনোয়ারের পক্ষে তার আইনজীবী ব্যারিস্টার মুন্সী আহসান কবির শো’কজ নোটিশের ব্যাখ্যা দানের জন্য দু’মাসের সময় প্রার্থনা করেন। তার বক্তব্য শুনে ২৬ ফেব্রুয়ারি লিখিত জবাব দান ও শুনানির দিন ধার্য করেন চেয়ারম্যান বিচারপতি ওবায়দুল হাসানের নেতৃত্বে দুই সদস্যের ট্রাইব্যুনাল।    

ট্রাইব্যুনালে চলমান বিচার নিয়ে মন্তব্য করায় এমকে আনোয়ারকে গত ২৪ জানুয়ারি সাত দিনের মধ্যে আইনজীবীর মাধ্যমে ব্যাখ্যা দেওয়ার নির্দেশ দেন ট্রাইব্যুনাল-২। রাষ্ট্রপক্ষের প্রসিকিউটর অ্যাডভোকেট রানা দাশগুপ্ত এমকে আনোয়ারের বিরুদ্ধে আদালত অবমাননার অভিযোগ এনে ব্যবস্থা নেওয়ার আবেদনটি করেন।

রানা দাশগুপ্ত বলেন, বিএনপি নেতা এমকে আনোয়ার সম্প্রতি এক সভায় ট্রাইব্যুনালের বিচারকে ‘প্রহসনের বিচার’ হিসেবে উল্লেখ করে বক্তব্য দিয়েছেন।

বক্তব্যে এমকে আনোয়ার বলেন যে, ‘বিচারের নামে রাজনৈতিক প্রতিপক্ষকে ঘায়েল করতে প্রহসনের বিচার করা হচ্ছে।’

২৩ জানুয়ারি প্রসিকিউটর রানা বিষয়টি মৌখিকভাবে ট্রাইব্যুনালের নজরে এনে এ ব্যাপারে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়ার আবেদন জানিয়ে বলেন, ‘‘এমকে আনোয়ার জেনে-শুনে ট্রাইব্যুনালের ভাবমূর্তি ক্ষুন্ন করতে এবং জনগণকে বিভ্রান্ত করতেই এ কথা বলেছেন। তার এ বক্তব্য আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল আইন-১৯৭৩ এর ১১ (৪) অনুযায়ী অপরাধ। এ ব্যাপারে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া প্রয়োজন।’’

এ সময় ট্রাইব্যুনাল বলেন, ‘‘রাজনৈতিক সিদ্ধান্তের মাধ্যমে ট্রাইব্যুনাল গঠিত হয়েছে, সত্য। তবে বিচারিক কার্যক্রম কিভাবে পরিচালনা করা হবে তা আমরাই সিদ্ধান্ত নেবো। আমরা আশা করবো, দায়িত্বশীল ব্যক্তিরা এ ধরনের মন্তব্য করবেন না। কথা বলার সময় তারা আরো দায়িত্বশীল হবেন।’’

২৪ জানুয়ারি এ আবেদনের প্রেক্ষিতে এমকে আনোয়ারের বিরুদ্ধে আদালত অবমাননার অভিযোগ এনে শো’কজ (কারণ দর্শাও) নোটিশটি জারি করেন।  

উল্লেখ্য, গত ২০ জানুয়ারি রাজধানীর মহানগর নাট্যমঞ্চে বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা প্রয়াত রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের ৭৭তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে আয়োজিত এক সভায় এমকে আনোয়ার ট্রাইব্যুনাল সম্পর্কে ওই মন্তব্য করেন। পর দিন ২১ জানুয়ারি বিভিন্ন পত্রিকায় সংবাদটি প্রকাশিত হয়।

নিউজরুম

শেয়ার করুন