শ্যামলী ও ফকিরাপুলে শিবির-পুলিশ সংঘর্ষ, আহত ১৫

0
70
Print Friendly, PDF & Email

ঢাকা (২৪জানুয়ারী) : রাজধানীর শ্যামলী ও ফকিরাপুলে ইসলামী ছাত্রশিবির নেতাকর্মীদের সঙ্গে পুলিশের সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এ সময় আহত হয়েছেন পুলিশসহ প্রায় ১৫ জন শিবির নেতাকর্মী।বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে এ ঘটনা ঘটে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, সকাল সাড়ে ১০টার দিকে শ্যামলী বাসস্ট্যান্ডের একটি গলি থেকে শিবিরের কয়েকজন কেন্দ্রীয় নেতাসহ কয়েকশ’ নেতাকর্মী একটি মিছিল বের করেন। ব্যানারে লেখা ছিল ‘সারাদেশে ছাত্রলীগের সন্ত্রাস, নৈরাজ্য, টেন্ডারবাজি, বরিশালে শেরে বাংলা কলেজের সাধারণ ছাত্রীদের ওপর ছাত্রলীগের হুমকির প্রতিবাদ এবং ছাত্রলীগকে নিষিদ্ধ করা হোক’।

একই দাবিতে একই সময় রাজধানীর ফকিরাপুল পুলিশ বক্সের সামনে পুলিশের সঙ্গে শিবির নেতাকর্মীদের সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এসময় সেখানে উপস্থিত ছিলেন শিবিরের সাহিত্য সম্পাদক ইয়াসিন আরাফাত, ছাত্র কল্যাণ সম্পাদক দেলোয়ার হোসেন, বির্তক সম্পাদক মাসুদুর রহমান, মহানগর পূর্বের সভাপতি রাশেদুল হাসান রানাসহ কয়েকশ’ শিবির নেতাকর্মী।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, শ্যামলীর মিছিলটি শ্যামলী বাসস্ট্যান্ড মোড়ের কাছাকাছি এলে পেছন থেকে পুলিশ এসে মিছিলকারীদের ছত্রভঙ্গ করতে লাঠিচার্জ শুরু করে। এ সময় পুলিশের সঙ্গে শিবির কর্মীদের শুরু হয় সংঘর্ষ। এক পর্যায়ে পুলিশ কয়েক রাউন্ড টিয়ারশেলও নিক্ষেপ করে।

ঢাকা মহানগর উত্তর শিবিরের একজন নেতা ফোনে বলেন, ‘‘সারাদেশে ছাত্রলীগের সন্ত্রাসী ও যৌন হয়রানির প্রতিবাদে বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে দশটার দিকে শিবিরের কেন্দ্রীয় দফতর সম্পাদক আতিকুর রহমানের নেতৃত্বে একটি প্রতিবাদ মিছিল বের করি।’’

‘‘মিছিলে উপস্থিত ছিলেন, শিবিরের কেন্দ্রীয় অর্থ সম্পাদক রফিকুল ইসলাম, সাংস্কৃতিক সম্পাদক আলমগীর হোসেন, মহানগর উত্তরের সভাপতি রাফিক মাহমুদ, ঢাকা কলেজের সভাপতি সালাউদ্দিন আইয়ূবী, প্রাইভেট বিশ্ববিদ্যালয় শাখার সভাপতি রবিউল ইলসামসহ দলের অনেকে।’’

শেরেবাংলা নগর থানার ডিউটি অফিসার সহকারী উপ-পরিদর্শক (এএসআই) বজলার রহমান জানান, সকালে সাড়ে ১০টার দিকে কিছু শিবির কর্মী আকস্মিক একটি মিছিল বের করেন। তবে তারা কোনো ধ্বংসাত্মক কর্মকাণ্ড করতে পারেননি। বর্তমানে পরিস্থিতি পুলিশের নিয়ন্ত্রণে রয়েছে।

তিনি আরও জানান, ‘‘ঘটনাস্থল থেকে কাউকে আটক বা আহতের খবর এখন পর্যন্ত আমরা পাইনি। তবে টিয়ারশেল নিক্ষেপের খবর পেয়েছি।’’

ঘটনার পর থেকেই শেরেবাংলা নগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ও তেজগাঁও জোনের ডিসি হাসান ইমাম ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়েছেন।

কিন্তু, তাদের একাধিক বার ফোন দিলেও তারা ফোন ধরেননি।

মতিঝিল থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) কামাল হোসেন বাংলানিউজকে টেলিফোনে জানান, সকাল সাড়ে ১০টার দিকে কয়েকশ’ শিবির নেতাকর্মী ফফিরাপুল পুলিশ বক্সের কাছে হঠাৎ একটি ঝটিকা মিছিল বের করেন।

মিছিলের খবর পেয়ে পুলিশ সেখানে উপস্থিত হলে তারা পুলিশের ওপর হামলা চালান। এতে কয়েকজন পুলিশ সদস্য আহত হন। এখন পরিস্থিতি পুলিশের নিয়ন্ত্রণে রয়েছে বলে জানান তিনি। তবে ঘটনাস্থল থেকে কাউকে আটকের কথা বলতে পারেননি তিনি।

নিউজরুম

শেয়ার করুন