নয়াদিল্লির নারীদের জীবনযাত্রায় পরিবর্তন

0
87
Print Friendly, PDF & Email

আর্ন্তজাতিক ডেস্ক(২ জানুয়ারী): চলন্ত বাসে মেডিকেলের ছাত্রীকে গণধর্ষণের পর ভারতের রাজধানী নয়াদিল্লিরনারীদের জীবনযাত্রায় অনেক পরিবর্তন এসেছেনিজেদের রক্ষায় নানা কৌশল নিতেশুরু করেছেন তাঁরা
অনেক নারী মরিচের গুঁড়া সঙ্গে নিয়ে রাস্তায়বেরোচ্ছেনকেউবা আগেভাগে কর্মস্থল ত্যাগ করছেনট্যাক্সিক্যাবে ওঠারক্ষেত্রে মানছেন সর্বোচ্চ সতর্কতানারী চালক দেখে ক্যাবে উঠছেন
দিল্লিতেগত ১৬ ডিসেম্বর রাতে চলন্ত বাসে মেডিকেলের ছাত্রীর গণধর্ষণের পর ভারতজুড়েব্যাপক জনরোষের সৃষ্টি হয়নারীদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করার দাবি ওঠে সমাজেরপ্রতিটি স্তরেদক্ষিণ দিল্লির ছাত্রী সুনন্দ জালোত (১৮) বলেন, ‘দিল্লিনারীদের জন্য নিরাপদ নয়আমারা দীর্ঘদিন ধরে এটা জানিকিন্তু ১৬ ডিসেম্বরেরঘটনা সবাইকে সজাগ করেছেআমরা যখন-তখন যেখানে ইচ্ছে, সেখানে যেতে চাইনিজেদের নিরাপদ ভাবতে চাইতাই নিজেদের রক্ষার কৌশল জানতে হবে
ভারতেরঅন্য যেকোনো শহরের চেয়ে নয়াদিল্লিতে বেশি ধর্ষণের ঘটনা ঘটে২০১২ সালে৭০৬টি ধর্ষণের ঘটনা ঘটেছে, যা আগের বছরের চেয়ে প্রায় ২৩ শতাংশ বেশিআর যৌননিপীড়ন ১১ শতাংশ বেড়ে দাঁড়িয়েছিল ৭২৭
নারীদের আত্মরক্ষার কৌশলপ্রশিক্ষণ দেয়দিল্লিতে এমন বেসরকারি প্রতিষ্ঠানগুলোয় নিবন্ধন বেড়ে গেছেইনভিকটাস নামক এমন একটি প্রতিষ্ঠানের জ্যেষ্ঠ প্রশিক্ষক অঙ্কুর শর্মাজানান, ১৬ ডিসেম্বরের ঘটনার পর তাঁদের প্রতিষ্ঠানে নিবন্ধন প্রায় ৪০ শতাংশবেড়ে গেছেতাঁদের বেশির ভাগই নারী শিক্ষার্থী বা চাকরিজীবী, যাঁদের বয়স ১৮থেকে ৩৫ বছর
চলতি মাসের গোড়ার দিকে একটি জরিপে দেখা গেছে, দিল্লিরবিপিও বা আইটি খাতে কর্মরত ৮০ শতাংশ নারী আগেভাগে কর্মস্থল ত্যাগ করছেনজরিপে অংশ নেওয়া নারীরা জানান, তাঁরা বাস, অটোরিকশা ও পাতালরেলের মতোগণপরিবহন ব্যবহারে ভয় পাচ্ছেননারী চালকদের ট্যাক্সিক্যাব ব্যবহারেরচেষ্টা করছেন তাঁরা
জরিপে বলা হয়, নারী চালকদের ট্যাক্সিক্যাব ব্যবহার৩৫ শতাংশ বেড়েছেআর যাঁদের ট্যাক্সিক্যাবে চলার কিংবা আত্মরক্ষার কৌশলশেখার মতো সামর্থ্য নেই, তাঁরা মরিচের গুঁড়া নিয়ে রাস্তায় চলাফেরা শুরুকরছেন

 

নিউজরুম

 

শেয়ার করুন