হাসপাতাল ছেড়েছে মালালা

0
56
Print Friendly, PDF & Email

আর্ন্তজাতিক ডেস্ক(৫ জানুয়ারী): তালেবানের গুলিতে আহত পাকিস্তানের নারী শিক্ষা আন্দোলনের নেত্রী মালালা ইউসুফজাই গত বৃহস্পতিবার হাসপাতাল ছেড়েছে। তবে কয়েক সপ্তাহের মধ্যে তার শরীরে আবারও অস্ত্রোপচার করা হবে। যুক্তরাজ্যের বার্মিংহামের কুইন এলিজাবেথ হসপিটালের এক বিবৃতিতে কথা জানানো হয়।
গত ১৫ অক্টোবর উন্নত চিকিৎসার জন্য মালালাকে যুক্তরাজ্যে নেওয়া হয়। গত অক্টোবর পাকিস্তানের সোয়াত উপত্যকায় বিদ্যালয়ের গাড়িতে করে বাড়ি ফেরার সময় তালেবান জঙ্গিরা তার মাথায় গুলি করে। তালেবানের বিপক্ষে কথা বলা সোয়াতে নারী শিক্ষার পক্ষে কাজ করায় মালালার ওপর ক্ষুব্ধ ছিল তালেবান।
কুইন এলিজাবেথ হাসপাতালের বিবৃতিতে বলা হয়, গত বৃহস্পতিবার মালালাকে হাসপাতাল থেকে সাময়িকভাবে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে। আপাতত সে তার পরিবারের সঙ্গে ওয়েস্ট মিডল্যান্ডস এলাকার একটি বাড়িতে থাকবে। আগামী কয়েক সপ্তাহ সে হাসাপাতালের বহির্বিভাগ থেকে চিকিৎসা নেবে।
বিবৃতিতে আরও জানানো হয়, মামালার শরীরে আবারও অস্ত্রোপচার করা হবে। জন্য জানুয়ারির শেষ বা ফেব্রুয়ারির প্রথম দিকে তাকে আবার হাসপাতালে ভর্তি করা হবে। দীর্ঘ মেয়াদে সুস্থ থাকার জন্য এই অস্ত্রোপচার জরুরি।
মালালাহেরাল্ড পারসন অব দ্য ইয়ার ২০১২নির্বাচিত: হেরাল্ড পারসন অব দ্য ইয়ার ২০১২নির্বাচিত হয়েছে মালালা। পাকিস্তানের গণমাধ্যমে গুরুত্বপূর্ণ আলোচিত সংবাদ হওয়ার ভিত্তিতে পাকিস্তানি এই নাগরিককে হেরাল্ড পারসন অব দ্য ইয়ার নির্বাচিত করা হয়।
এই নির্বাচন প্রক্রিয়ায় অনলাইনে এবং ডাকযোগে ভোট দেওয়া হয়। ছাড়া ১০ জন স্বনামধন্য পাকিস্তানি নাগরিককে নিয়ে একটি প্যানেলে করা হয়। সেই প্যানেলর সদস্যরাও নির্বাচন প্রক্রিয়ায় ভোট দেন। এতে মালালা ৩০ দশমিক শতাংশ ভোট পেয়ে হেরাল্ড পারসন অব দ্য ইয়ার নির্বাচিত হন। মালালার পরে আছেন পাকিস্তানের প্রধান বিচারপতি ইফতেখার মোহাম্মদ

 

নিউজরুম

 

শেয়ার করুন