চাকরিতে প্রবেশের সময় বৃদ্ধি ও শূন্যপদ পূরণ

0
175
Print Friendly, PDF & Email

সরকার বড় কর্তাদের মন রাখতে অবসরের বয়স দুই বছর এবং বীর মুক্তিযোদ্ধাদের সম্মানার্থে তা আরো এক বছর বৃদ্ধি করেছে। ‘বড় কর্তাদের মন রাখতে’ কথাটি ব্যবহার করলাম এ জন্য যে, যারা ছোট পদে চাকরি করে (৩য়, ৪র্থ শ্রেণী) তাদের ৫৮ বছর বয়স পর্যন্ত চাকরি করে আবারো চাকরিতে থাকবে এমন চাকুরে ৫% খুঁজে পাওয়া যাবে কি-না সন্দেহ আছে। কিন্তু কর্মকর্তাদের মৃত্যুর আগ পর্যন্ত থাকতে পারলে যেন ভালো হয়। সরকারি চাকরিতে প্রবেশের সময় ৩০ ও ৩২ (মুক্তিযোদ্ধা কোটা) এতদিন ঠিকই ছিল। কিন্তু বেসরকারি প্রতিষ্ঠানগুলোর কি হলো যে ৩০, ৩২ বেঁধে দিচ্ছে? অনেক ছাত্র-ছাত্রী নামী দামি বিশ্ববিদ্যালয় থেকে অনার্স-মাস্টার্স করে সরকারি কর্মকর্তা হওয়ার নেশায় এতই বুঁদ হয়ে থাকে যে, তাদের কখন যে বয়স চলে যায় চিন্তাই করতে পারে না। সরকারি কর্মকর্তা হতে না পেরে বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে ঢোকে। কিন্তু সেখানেও এই অবস্থা। অর্থাৎ বয়স শেষ। এখন তারা যাবে কোথায়? এ অবস্থা থেকে মুক্তির জন্য শূন্যপদগুলো দ্রুত পূরণ ও সব পর্যায়ে চাকরিতে প্রবেশের বয়সসীমা ৩৫ বছর করা উচিত। এ বিষয়ে সরকারের আশুদৃষ্টি কামনা করছি।

মো: জাকির হোসেন

শেয়ার করুন