হাতিরঝিল প্রকল্প নববর্ষের উপহার-প্রধানমন্ত্রী

0
47
Print Friendly, PDF & Email

ঢাকা (২ জানুয়ারী) : রাজধানীর হাতিরঝিল-বেগুনবাড়ি সমন্বিত উন্নয়ন প্রকল্প উদ্বোধন করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, নতুন বছরের শুরুতে ঢাকাবাসীর জন্য উপহার এই প্রকল্প।
সম্পূর্ণ নিজস্ব তত্ত্বাবধানে পাঁচ বছর ধরে কাজ চালিয়ে এই প্রকল্প বাস্তবায়নের জন্য বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের বিশেষজ্ঞ, সেনাবাহিনী, বিভিন্ন মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তা- কর্মচারী ও শ্রমিকদের ধন্যবাদ জানিয়েছেন তিনি।
প্রধানমন্ত্রী বুধবার সকালে এ প্রকল্পের ফলক উন্মোচন করে প্রকল্প এলাকা সবার জন্য খুলে দেয়ার ঘোষণা দেন।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী বলেন, প্রকল্প সংশ্লিষ্টরা আন্তরিকতা ও দায়িত্বশীলতার সঙ্গে কাজ না করলে নির্ধারিত সময়ের মধ্যে এ প্রকল্পের কাজ শেষ হতো না।
বিদেশি পরামর্শক ও সহযোগিতা ছাড়া এই প্রকল্প বাস্তবায়ন শুধু ঢাকা নয়, বিশ্বের জন্য একটি দৃষ্টান্ত হয়ে থাকবে বলেও মন্তব্য করেন তিনি।
বেগুনবাড়ি- হাতিরঝিল প্রকল্পের গুরুত্ব তুলে ধরে প্রধানমন্ত্রী বলেন, এর আগে ১৯৯৬ সালে আওয়ামী লীগ সরকার গঠন করার পর এই ঝিল বন্ধ করে এখানে স্কুল, প্লট ও ঘর-বাড়ি করার অনেক প্রস্তাব আসে। “কিন্তু আমি সেগুলো বাতিল করে দিই।”
বন্যাসহ বিভিন্ন প্রাকৃতিক দুর্যোগের কারণে রাজধানীতে পানি নিষ্কাশনের সুযোগ রাখার জন্য জলাধার ও খাল-ঝিল সংরক্ষণের প্রয়োজনীয়তা থেকে সেসব প্রস্তাব নাকচ করা হয় বলে প্রধানমন্ত্রী জানান।প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সকাল সাড়ে ১০টার দিকে প্রকল্প এলাকায় পৌঁছে প্রথমে প্রকল্প সংশ্লিষ্টদের সঙ্গে কথা বলেন। তারপর তিনি গাড়িতে করে খালের ওপর নির্মিত সেতু ও সড়ক দিয়ে ঘুরে ঘুরে অনুষ্ঠান মঞ্চে পৌঁছান। এ সময় দুই তরুণী ফুলের তোড়া দিয়ে তাকে স্বাগত জানায়।
অনুষ্ঠানস্থলে পৌঁছে প্রধানমন্ত্রী শুরুতেই হাতিরঝিল প্রকল্পের ফলক উন্মোচন করেন এবং মোনাজাতে অংশ নেন। এরপর তিনি মঞ্চে আসন নিলে দর্শকসারি থেকে জয় বাংলা শ্লোগানে তাকে স্বাগত জানানো হয়।
প্রকল্প এলাকা চলাচলের জন্য খুলে দেয়া উপলক্ষে খালের দ্ইু পাড় ও সড়কগুলো সাজানো হয় ফুলের টব ও নানা রঙের পতাকা দিয়ে। একটি স্থানে ঢোল বাজাতে দেখা যায় একদল বাদককে।
প্রধানমন্ত্রীর আগমণ উপলক্ষে গুলশান লিংক রোডসহ বেশ কয়েকটি সড়কে যানবাহন চলাচল নিয়ন্ত্রণ করা হয়।

নিউজরুম

     
শেয়ার করুন