‘দাবির মোড়কে সাগর-রুনি হত্যার তদন্ত বাধাগ্রস্ত করবেন না’

0
287
Print Friendly, PDF & Email

ঢাকা (১ জানুয়ারী) : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ড. মহীউদ্দীন খান আলমগীর বলেছেন, “সাগর-রুনির হত্যাকাণ্ডের বিষয়ে যাতে তদন্ত সুষ্ঠু ও সুচারুভাবে সম্পাদিত হয়, তার প্রতি আমরা মনোযোগ দিয়েছি। সেই মনোযোগ অনুযায়ী কাজটি সম্পাদিত করার জন্য সবার সঙ্গে আলোচনায় বসেছি।”

সাংবাদিকদের উদ্দেশ্যে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘‘আপনারা আপনাদের দাবি করে যান, আপনাদের দাবি চেতনাবোধের পরিচায়ক। তাকে আমরা স্বাগত জানাই। কিন্তু দাবির মোড়কে এমন কিছু করবেন না, যাতে তদন্ত কাজ বাধাগ্রস্ত কিংবা প্রভাবিত হয়।”

মঙ্গলবার দুপুরে রাজধানীর মিরপুরে মণিপুর স্কুল অ্যান্ড কলেজের ব্রাঞ্চ-৩ এ পাঠ্যপুস্তক বিতরণ উৎসবে যোগ দিয়ে উৎসব শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি একথা বলেন।

সাংবাদিক দম্পতি সাগর-রুনি হত্যার দ্রুত বিচার কাজ শেষ করা নিয়ে সাংবাদিকদের তার কার্যালয় ঘেরাও কর্মসূচি প্রসঙ্গে মন্ত্রী বলেন, ‘‘এ ধরনের কোনো কর্মসূচির কথা আমার জানা নেই।”

আইন ও সালিশ কেন্দ্রের তথ্যমতে, আগের বছরের তুলনায় মানবাধিকার পরিস্থিতি উদ্বেগজনক- এ প্রসঙ্গে সাংবাদিকদের তিনি বলেন, “মানবাধিকার লঙ্ঘন সম্পর্কিত যেসব প্রতিবেদন উপস্থাপিত হয়, তা আগের তুলনায় সুচারু ও বিস্তৃতভাবে সকলের দৃষ্টিগোচর হয়। যখন বাংলাদেশে স্বৈরতান্ত্রিক শাসন ছিল, বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করে স্বৈরশাসকরা রাষ্ট্রীয় শাসন ব্যবস্থা অধিকার করেছিলেন, তখন মানবাধিকার লঙ্ঘন সম্পর্কিত তেমন কোনো প্রতিবেদন সবার নজরে আসেনি। এখন আসছে, তাকে স্বাগত জানাই।’’

এছাড়া সকল ক্ষেত্রে মানবাধিকার লঙ্ঘনের ঘটনাগুলো জনসাধারণ ও সরকারের গোচরীভূত হওয়া প্রয়োজন এবং মানবাধিকার লঙ্ঘনের ঘটনা যাতে কোনো ক্রমে না ঘটে সেদিকে নজর দেওয়া প্রয়োজন বলে মত প্রকাশ করেন মন্ত্রী।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, “১৯৭২ সালে দেশে জনসংখ্যা ছিল সাড়ে সাত কোটি। সে সংখ্যার ক্ষেত্রে যেসব অপরাধমূলক ঘটনা ঘটেছে এবং তার আপেক্ষিকতায় ১৬ কোটি লোকের ক্ষেত্রে যে অপরাধ ঘটছে তা কেবল সংখ্যার নিরিখে বিবেচনা করলে সঠিক তথ্য প্রকাশিত হবে না। সাড়ে সাত কোটি মানুষের সময় যেসব অপরাধ ঘটেছে, সে তুলনায় বর্তমান ১৬ কোটি অধ্যুষিত মানুষের গণতান্ত্রিক শাসনামলে তা অনেক কমে গেছে।”

উৎসবের প্রধান অতিথি স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী মণিপুর স্কুল অ্যান্ড কলেজের মেধাবী শিক্ষার্থীদের হাতে পুরস্কার তুলে দেন। পরে নতুন বছরের পাঠ্যপুস্তক বিতরণ করা হয়। এ সময় স্কুলের গভর্নিং বডির সভাপতি স্থানীয় সংসদ সদস্য কামাল আহমেদ মজুমদার, স্কুলের অধ্যক্ষ ফরহাদ হোসেন, সাবেক সংসদ সদস্য আসলাম উদ্দিনসহ গভর্নিং বডির সদস্য ও স্কুলের শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা উপস্থিত ছিলেন।

বই বিতরণের সময় মন্ত্রী বলেন, ‘‘এ বছর প্রাথমিক ও মাধ্যমিক শ্রেণীতে ২৭ কোটিরও বেশি বই বিতরণ করা হচ্ছে, যা অতীতে কোনো সময়ে হয়নি।”

তিনি সমাজের বিত্তশালী ও সৃজনশীলদের আরও বেশি করে স্কুল-কলেজ প্রতিষ্ঠার আহ্বান জানান। এর মাধ্যমে দেশ ও জাতি উপকৃত হবে বলে মনে করেন তিনি।

নিউজরুম

শেয়ার করুন