জ্বালানি তেলের দাম বাড়লে হরতাল দেবে বিএনপি

0
53
Print Friendly, PDF & Email

ঢাকা (৩০ ডিসেম্বর) : জ্বালানি তেলের দাম বাড়ানো হলে হরতালের মতো কঠিন কর্মসূচি দেবে বিএনপির নেতৃত্বাধীন ১৮ দলীয় জোট।

শনিবার রাতে বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার সভাপতিত্বে দলটির স্থায়ী কমিটির বৈঠক শেষে এমনই ইঙ্গিত দেয়া হয়।

বৈঠক সূত্র জানায়, সম্প্রতি জ্বালানি উপদেষ্টা তৌফিক-ই-এলাহী চৌধুরী জ্বালানি তেলের দাম বাড়ানো হতে পারে বলে ঘোষণা দেন। তার এ ঘোষণা যদি কার্যকর করা হয় তবে হরতালের মতো কঠিন কর্মসূচি দিতে দ্বিধা করবে না বিএনপি জোট।

কারণ, জ্বালানি তেলের দাম বাড়লে নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্যের দামও বাড়বে। এতে জনদুর্ভোগ বেড়ে যাবে।

স্থায়ী কমিটির বৈঠক সূত্র আরও জানায়, ১৯ জানুয়ারি বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা ও সাবেক রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের জন্মবার্ষিকী, ১১ জানুয়ারি বিশ্ব ইজতেমা, ১ ফেব্রুয়ারি ডিগ্রী পরীক্ষাসহ বছরের শুরুর মাসটিতে অনেক গণঅনুষ্ঠান রয়েছে।

তাছাড়া, বিএনপির জাতীয় কাউন্সিল ৮ ডিসেম্বর হওয়ার কথা থাকলেও অনিবার্য কারণে হয়নি। সে কাউন্সিল অনুষ্ঠানও এ মাসে হতে পারে।
এতসব জন-অংশগ্রহণমূলক অনুষ্ঠান থাকায় মাসটিতে কোনো ধরনের কঠোর কর্মসূচির কথা ভাবছে না বিএনপি।

তবে, যদি জ্বালানি তেলের দাম বাড়ানোর ব্যাপারে উপদেষ্টার ঘোষণা কার্যকর হয় তাহলে যেকোনো ধরনের কঠোর কর্মসূচি দিতে দ্বিধা করবে না বিএনপি।

স্থায়ী কমিটির বেঠক সূত্রে জানা গেছে, কাউন্সিলকে ঘিরে বিএনপির নির্বাহী কমিটি শিগগিরই বৈঠকে বসবে, তবে এখনো তারিখ নির্ধারিত হয়নি।

বৈঠক শেষে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায় বলেন, জ্বালানি উপদেষ্টার ঘোষণা ছাড়াও দেশের বর্তমান রাজনৈতিক পরিস্থিতি নিয়ে বৈঠকে আলোচনা হয়েছে। এ ব্যাপারে কর্মসূচি দেয়ার কথা ভাবছে বিএনপি।

গয়েশ্বর চন্দ্র রায় জানান, এখন পর্যন্ত কোনো কর্মসূচি চূড়ান্ত হয়নি, তবে রোববার জোটের নেতাদের সঙ্গে আলোচনা করে নেত্রী কর্মসূচি দেবেন।

স্থায়ী কমিটির বৈঠক সূত্র জানায়, জ্বালানি তেলের দাম না বাড়ানো হলে কঠোর কর্মসূচি দেয়া থেকে বিরত থাকবে বিএনপি জোট।
তবে, নির্দলীয় তত্ত্ববাধায়ক সরকার পুনর্বহালের দাবি, ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরসহ আটক নেতাকর্মীদের মুক্তি, মিথ্যা মামলা প্রত্যাহার ও সরকারি নির্যাতন-নিপীড়নের প্রতিবাদে জোটের চলমান কর্মসূচি পালন অব্যাহত থাকবে।

দলের চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার গুলশানের রাজনৈতিক কার্যালয়ে রাত সাড়ে আটটা থেকে সাড়ে দশটা পর্যন্ত এ বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়।
বৈঠকে স্থায়ী কমিটির সদস্যদের মধ্যে ড. আর এ গণি, তরিকুল ইসলাম, লে. জেনারেল (অব.) মাহবুবুর রহমান, এম কে আনোয়ার, ব্যারিস্টার জমির উদ্দিন সরকার, ড. আবদুল মঈন খান, নজরুল ইসলাম খান, ব্যারিস্টার রফিকুল ইসলাম মিয়া, ব্রিগেডিয়ার (অব.) আসম হান্নান শাহ, গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, সারোয়ারি রহমান প্রমুখ উপস্থিতি ছিলেন।

নিউজরুম

শেয়ার করুন