শীতকালীন শাকসবজির পুষ্টিগুণ

0
125
Print Friendly, PDF & Email

কৃষি ডেস্ক(২৯ডিসেম্বর): শীতকালে আমাদের দেশে নানা প্রকার শাকসবজি ৎপন্ন হয়। শীতকালীন শাকসবজি পুষ্টিকর সুস্বাদু খাদ্য। এতে মানব দেহের জন্য পর্যাপ্ত পরিমাণে ভিটামিন এবং ক্যালসিয়াম, লৌহ, আয়োডিন প্রভৃতি অতি প্রয়োজনীয় খনিজ লবণ রয়েছে। শাকসবজি থেকে কিছু পরিমাণে স্নেহপদার্থ এবং যথেষ্ট পরিমাণে শর্করাজাতীয় পুষ্টি উপাদান পাওয়া যায়। শিমজাতীয় সবজিতে পর্যাপ্ত পরিমাণে প্রোটিন রয়েছে এবং অন্যান্য শাকসবজিতে প্রোটিনের পরিমাণ কম থাকলেও লাইসিন ট্রিফটোফেন নামের অপরিহার্য অ্যামাইনো অ্যাসিড বেশি আছে

 

পুষ্টি উপাদান সরবরাহ করার পাশাপাশি শাকসবজি দেহের রোগ প্রতিরোধ নিরাময়ে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। তাই শরীরের চাহিদা মতো শাকসবজি খেলে নানা রকম রোগব্যাধি থেকে রা পাওয়া যায়। গবেষণায় দেখা গেছে, শাকসবজি খাওয়ার ফলে ক্যান্সার, কিডনি রোগ, উচ্চ রক্তচাপ, বহুমূত্র হৃদরোগে আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকি অনেক কম। গবেষকেরা আরো জানিয়েছেন, যারা পর্যাপ্ত পরিমাণে শাকসবজি খেয়ে থাকে তাদের হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুর আশঙ্কাও কমে যায়। শীতকালীন শাকসবজিতে প্রচুর পরিমাণে আঁশ থাকে। এই আঁশ খাদ্যদ্রব্য হজম, পরিপাক বিপাক প্রক্রিয়ায় সহায়তা করে

 

পুষ্টি বিজ্ঞানীদের মতে, একজন শিশুর প্রতিদিন কমপে ১০০ গ্রাম একজন পূর্ণবয়স্ক লোকের জন্য দৈনিক ২০০ গ্রাম শাকসবজি খাওয়া প্রয়োজন। কিন্তু আমাদের দেশে একজন পূর্ণবয়স্ক লোক গড়ে ৩০ গ্রাম সবজি খায়। এর সাথে আলু মিষ্টি আলু যোগ করলেও প্রতিদিন গড় পরিমাণ ৭০ গ্রামের বেশি হয় না। অর্থা প্রয়োজনের তুলনায় আমরা খুব অল্প পরিমাণ শাকসবজি খাই। পৃথিবীর আর কোনো দেশের মানুষ সম্ভবত এত কম পরিমাণ শাকসবজি খায় না। বস্তুত আমাদের খাদ্য তালিকায় ভাত জনপ্রিয়তার শীর্ষে। সে তুলনায় শাকসবজির কদর একেবারেই কম। শীতকালীন শাকসবজি, বিশেষ করে পাতাজাতীয় সবজি ভিটামিনসিতে ভরপুর। ক্যারোটিন, ক্যালসিয়াম, লৌহ ভিটামিনসিসমৃদ্ধ লালশাক, পালংশাক, মুলাশাক কিংবা দেশীয় যেকোনো শাকের মাত্র ৫০ গ্রাম আমাদের দৈনন্দিন পুষ্টিচাহিদা মেটানোর জন্য যথেষ্ট

 

বাংলাদেশের মাটি জলবায়ু শাকসবজি চাষের জন্য অত্যন্ত উপযোগী। শাকসবজি আবাদের সুবিধা হলেÑ ফসলি মাঠে যেমন শাকসবজি চাষ করা যায়, তেমনি জমির আইল বা রাস্তার ধারে, পুকুরপাড়ে এক টুকরো জায়গায়, বসতবাড়ির আঙিনায়, ঘরের চালে, দালানের ছাদে, বারান্দার টবে, টিন বা মাটির পাত্রেও অনেক শাকসবজি আবাদ করা যায়

 

বাংলাদেশের মানুষের জন্য অপুষ্টি একটি মারাত্মক জাতীয় সমস্যা। দেশের নারীপুরুষ, শিশু, কিশোরকিশোরীর বেশির ভাগই অপুষ্টির শিকার। তবে শিশু, কিশোরকিশোরী মহিলারাই বেশি অপুষ্টিতে ভুগছে। কাজেই আসুন, সময় অধিক পরিমাণে পুষ্টিসমৃদ্ধ শীতকালীন শাকসবজির চাষ করে তা পরিমাণমতো খাওয়ার মাধ্যমে ব্যক্তিগত, পারিবারিক, সামাজিক তথা জাতীয় পুুষ্টি সমস্যা দূরীকরণে সচেষ্ট হই।

 

নিউজরুম

 

শেয়ার করুন