রোববার জ্বালানি মন্ত্রণালয় ঘেরাও করবে সিপিবি-বাসদ

0
396
Print Friendly, PDF & Email

ঢাকা (২৯ ডিসেম্বর) : জ্বালানি তেল ও বিদ্যুতের মূল্যবৃদ্ধির পরিকল্পনার প্রতিবাদে রোববার জ্বালানি মন্ত্রণালয় ঘেরাও কর্মসূচি দিয়েছে বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি (সিপিবি) ও বাংলাদেশের সমাজতান্ত্রিক দল (বাসদ)।

শুক্রবার বিকেল ৪টায় জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে অনুষ্ঠিত এক সমাবেশ থেকে সিপিবি সভাপতি মুজাহিদুল ইসলাম সেলিম এ কর্মসূচি ঘোষণা করেন।

তিনি বলেন, “আইএমএফের শর্ত অনুযায়ী, সরকার যদি জনস্বার্থকে উপেক্ষা করে আবারও বিদ্যুৎ, জ্বালানি তেলের মূল্যবৃদ্ধির পরিকল্পনা করে তবে এর বিরুদ্ধে সিপিবি-বাসদসহ অপরাপর বামপন্থিরা রাজপথে থেকে তা প্রতিহত করবে।”

সরকার এর মধ্যে দাম বাড়ানোর পরিকল্পনা থেকে সরে না আসলে আগামীতে হরতালসহ কঠোর কর্মসূচি দেওয়া হবে বলেও ঘোষণা দেন তিনি।

মুজাহিদুল ইসলাম সেলিমের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সমাবেশে অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন- বাংলাদেশ সমাজতান্ত্রিক দল-বাসদের কেন্দ্রীয় নেতা শ্রভ্রাংশু চক্রবর্তী, সিপিবি সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ আবু জাফর আহমেদ, বাসদের কেন্দ্রীয় নেতা রাজেকুজ্জামান রতন।

যুদ্ধাপরাধীদের বিচার দ্রুত সম্পন্ন করা, জামায়াত-শিবিরসহ সব সাম্প্রদায়িক দল নিষিদ্ধসহ বিদ্যুৎ ও জ্বালানি তেলের মূল্য বৃদ্ধির পাঁয়তারার প্রতিবাদে পূর্ব ঘোষিত কর্মসূচির অংশ হিসেবে এ সমাবেশ করে সিপিবি-বাসদ।

১৮ ডিসেম্বর দেশব্যাপী সকাল-সন্ধ্যা হরতাল পালনকালে সিপিবি-বাসদের নেতারা এ কর্মসূচি ঘোষণা করেন।   

সমাবেশে সভাপতির বক্তব্যে সেলিম বলেন, “এরই মধ্যে অর্ধশত মানুষ শীতে প্রাণ হারিয়েছেন। শীতার্ত মানুষদের কথা চিন্তা না করে- দেশের দুই রাজনৈতিক দলের প্রধান (শেখ হাসিনা, খালেদা জিয়া) ‘সাপ’ নিয়ে খেলায় মেতেছেন। কে কোন, সাপ নিয়ে খেলছেন তাই তারা বলাবলি করছেন। মানুষ মরলো কী বাঁচলো সেদিকে তাদের খেয়াল নেই!”

যার যতটুকু সামর্থ্য আছে, তাই নিয়েই শীতার্ত মানুষের পাশে দাঁড়ানো আহ্বান জানান তিনি।

মুজাহিদুল ইসলাম সেলিম বলেন, “বাড়িভাড়া, গাড়িভাড়া নিত্যপণ্যের দাম বেড়েই চলেছে। এই লাগামছাড়া মূল্যবৃদ্ধিতে দেশের মানুষ দিশেহারা। তার ওপর যদি আবারও জ্বালানি তেল এবং বিদ্যুতের দাম বাড়ানো হয়, তাহলে তা হবে ‘মরার ওপর খাঁড়ার ঘা’য়ের মতো।”

তিনি জনবিরোধী পরিকল্পনা থেকে সরে আসার জন্য সরকারের প্রতি আহ্বান জানান।

শেখ হাসিনা ও খালেদা জিয়াকে ‘আইএমএফ, ওয়ার্ল্ডব্যাংকের দালাল’ আখ্যা দিয়ে সমাবেশে মুজাহিদুল ইসলাম সেলিম বলেন, “এদের দিকে তাকিয়ে থেকে দেশের মানুষের কোনো লাভ হবে না। সন্ত্রাস, লুটপাট, কেলেঙ্কারির মাধ্যমে এরা দেশের বারোটা বাজিয়ে দিয়েছেন। এর বিরুদ্ধে দাঁড়াতে হলে সিপিবি-বাসদের নেতৃত্বে বাম বিকল্প গড়ার আন্দোলনে শামিল হতে হবে।”

তিনি অপরাপর বাম দলগুলোকে ‘বাম বিকল্প’ গড়ার আন্দোলনে যুক্ত হওয়ার আহ্বান জানান। সমাবেশটি পরিচালনা করেন সিপিবির সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য কাজী সাজ্জাদ জহির চন্দন। সমাবেশ শেষে সিপিবি-বাসদের একটি মিছিল মহানগরীর বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে।

নিউজরুম

শেয়ার করুন