ইলিয়াস আলী ও চৌধুরী আলমসহ ১৫৬ নেতাকর্মীকে গুম করেছে সরকার: তরিকুল

0
91
Print Friendly, PDF & Email

ঢাকা ( ২৭ ডিসেম্বর) : ঢাকা সহ দেশব্যাপী বিএনপির গণসংযোগ কর্মসূচিতে স্বতঃস্ফূর্তভাবে অংশ নিয়ে মানুষ সরকারের বিরুদ্ধে গণ অনাস্থা জ্ঞাপন করেছে বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির জাতীয় স্থায়ী কমিটির অন্যতম সদস্য তরিকুল ইসলাম।

বৃহস্পতিবার বেলা ১২টায় ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটিতে স্থানীয় সরকার ফোরাম আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

স্থানীয় সরকার ফোরামের যুগ্ন সম্পাদক অধ্যাপক শামীম আল রাজির সভাপতিত্বে তরিকুল ইসলাম বলেন, “সরকারের অন্যায়, অত্যাচার, জুলুম ও ভোটের অধিকার হরণের প্রতিবাদে বুধবার হাজার-হাজার, লাখ-লাখ মানুষ রাজপথে নেমে এসেছিলো। গণসংযোগ রুপান্তরিত হয়েছিলো মহাসমাবেশে।”তিনি বলেন, “এই সরকার জনগণকে ভয় পায়, এ কারণেই দলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচন দিয়ে তারা ক্ষমতা চিরস্থায়ী করতে চায়, কিন্তু জনগন তাদের সে সুযোগ দেবে না।”
 
সরকারের ক্ষমতায় থাকার আশা পূর্ণ হবে না উল্লেখ করে তরিকুল ইসলাম বলেন তাদের সেই আশা পুরণ হবে না। জনগণ সরকারের বিরুদ্ধে যেভাবে রাজপথে নেমে এসেছে তাতে তাদের আর ক্ষমতায় থাকার নৈতিক অধিকার নেই।”

তিনি বলেন, “স্বাধীনতার পর এই প্রথম বিএনপির মত একটি প্রধান দলের মহাসচিবকে গ্রেফতার করে সরকার এক অনন্য নজির সৃষ্টি করেছে।”

বিরোধী দলকে দমনের জন্য সরকার ইতিমধ্যেই ২৫ হাজার নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা দায়ের করেছে বলে উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘সরকারের মিথ্যা মামলায় গ্রেফতারি পরোয়ানা নিয়ে বর্তমানে ৪ হাজার নেতাকর্মী পালিয়ে বেড়াচ্ছে।’
 
তিনি বলেন, “সরকার বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব রিজভী আহমেদ ও আমার দেশ পত্রিকার সম্পাদক মাহমুদুর রহমানকে অবরুদ্ধ করে রেখেছে। ইলিয়াস আলী ও চৌধুরী আলমসহ ১৫৬ নেতাকর্মীকে গুম করেছে। এই মানুষগুলোর আত্মীয় স্বজনরা তাদের লাশটাও দেখতে পারেননি। এমনকি তারা বেঁচে আছে না মারা গেছে সেটাও জানা সম্ভব হয়নি।”

সরকার গুম, হত্যা ও মিথ্যা মামলা দিয়ে দেশকে আজ মৃত্যু উপত্যকায় পরিণত করেছে বলে এ সময় উল্লেখ করেন তরিকুল ইসলাম।

তিনি দেশকে এই অবস্থা থেকে রক্ষা করার জন্য নতুন কর্মসূচি বাস্তবায়নের লক্ষ্যে দেশবাসী ও ১৮ দলীয় জোটের নেতাকর্মীদের প্রস্তুতি নিতে বলেন। তরিকুল ইসলাম এ সময় কারাগারে আটক বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব ফখরুল ইসলাম আলমগীর ও স্বনির্ভর বিষয়ক সম্পাদক রুহুল কুদ্দুস তালুকদার দুলুর মুক্তি ও মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারের দাবি জানান। অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন জুলফিকার হোসেন, সরওয়ার হোসেন, মনজুর হোসেন ইসাসহ অন্যান্যরা।

সম্পাদনা,নিউজরুম 

 

শেয়ার করুন