প্রিয়জনের চোখ দেখে আপনি কিছু না বুঝলেও তিনি কিন্তু ঠিকই আপনার মনের কথা বলে দিতে পারবেন চোখ দেখেই!

0
157
Print Friendly, PDF & Email

ঢাকা: “চোখ যে মনের কথা বলে…!” এই গানটি গেয়ে আগে প্রিয়জনের মন ভোলানোর চেষ্টা করলেও এবার কিন্তু এ গানটি ভুলে যেতে চাইবেন!

কারণ?
প্রিয়জনের চোখ দেখে আপনি কিছু না বুঝলেও তিনি কিন্তু ঠিকই আপনার মনের কথা বলে দিতে পারবেন চোখ দেখেই!

হাঁ, সত্যি সত্যিই পুরুষের চোখ দেখে মনের কথাটি বলে দিতে পারেন একজন নারী!

সম্প্রতি অস্ট্রেলিয়া থেকে প্রকাশিত এক গবেষণায় প্রমাণসহ এ তথ্য দিয়েছেন বিশেষজ্ঞরা!

অস্ট্রেলিয়ার সমুদ্র তীরবর্তী শহর পার্থে অবস্থিত ইউনিভার্সিটি অব ওয়েস্টার্ন অস্ট্রেলিয়ার মনোবিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক গিলান রোডসের নেতৃত্বে পরিচালিত ঐ গবেষণায় আরও আবিষ্কার করে,
কোনো ধরনের অঙ্গভঙ্গি, মৌনতা বা চোখ দেখে পেটের কথা বলতে পারেন না এমন নারীদের সংখ্যা সীমিত। অর্থাৎ কূট-কৌশল, প্রতারণা কিংবা ছল ধরতে পারা যেন নারীদের স্বাভাবিক ব্যাপার।

গবেষণাটির প্রতিবেদনে আরও বলা হয়, পুরুষটি স্বাভাবিক চেহারা ধরে রাখার চেষ্টা করলেও সেই অপরিচিত পুরুষের চেহারায় খানিকক্ষণ তাকিয়েই তার মনের কথা বলতে পারেন নারী, অন্তত বর্তমানে পুরুষটি কী বলতে চাইছেন অথবা কী করতে চাইছেন!

একটি জীব ও মনোবিজ্ঞান সম্বন্ধীয় ম্যাগাজিনে প্রকাশিত ঐ গবেষণায় আরও বলা হয়, একজন পুরুষ দেখতে কেমন, তার ভেতর-বাহির জানার প্রতি নারীদের বাড়তি আগ্রহ থেকেই তাদের এ সক্ষমতা! আর এটা বের করতে নারীকে কোনো ধরণের ছল বা আকর্ষণ করার পথও বেছে নিতে হয় না!

যৌন সম্বন্ধীয় ইতিহাসকেই সাধারণত যে কোনো অঞ্চলে বিশ্বাস-অবিশ্বাসের পরিমাপক হিসেবে ধরা হয়।
প্রতিবেদনটি উল্লেখ করে, গবেষণার অংশ হিসেবে ককেশাস অঞ্চলের ১৮৯ জন প্রাপ্তবয়স্ক মানুষের রঙিন ছবি তুলে ধরা হয় পৃথকভাবে ৩৪ জন পুরুষ ও ৩৪ জন নারীর কাছে। জানতে চাওয়া হয় তাদের ইতিহাস, বর্তমান অবস্থা সর্বোপরি মনের কথা।

আশ্চর্যনকভাবে ১৮৯ জনের প্রত্যেকের নিজ থেকে দেয়া ইতিহাসের সাথে মিলিয়ে দেখা যায় যে, নারীদের দেয়া উত্তরের সাথে মোটামুটি মিলে যাচ্ছে প্রদত্ত ইতিহাস।

অন্যদিকে, পুরুষরা উল্লেখজনকভাবে কিছুই বলতে পারেনি।

প্রতিবেদনটি আরও লিখেছে যে, মুখাবয়বে তাকিয়ে একজন ব্যক্তির আচরণ বলতে পারা সত্যিই আশ্চর্যের বিষয়! এই আশ্চর্যজনক বিষয়টিই শেষ পর্যন্ত বেরিয়ে এল!

অন্য দিকে, ঐ গবেষণায় টিপ্পনী কাটা হয়েছে পুরুষদের!

বলা হয়েছে, আকর্ষণীয় নারীকেই বেশি অবিশ্বাস করে পুরুষরা। ৩৪ জন পুরুষের অধিকাংশ ব্যক্তিই তেমন প্রমাণ দিলেন।

গবেষণায় যা হোক বা না হোক!

নারীর হাসিমুখ ধরে রাখার চেষ্টা একজন পুরুষের দশ জনমের সাধনা নিশ্চয়!

তাই, মিথ্যা-অপছন্দ নিয়ে প্রিয়জনের সামনে উপস্থিত হয়ে ধরা খাওয়ার চেয়ে সেসবে না জড়ানো উচিত নয় কি!
সেটা করা গেলে হয়তো গুন গুন করে কিংবা গলা খুলে ইচ্ছে মত গাওয়ার সুযোগ থাকবে, “চোখ যে মনের কথা বলে…!”

শেয়ার করুন