স্যামসাং বাংলাদেশে স্মার্ট ফোন তৈরিতে আগ্রহী

0
212
Print Friendly, PDF & Email

রুপসীবাংলা, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি ডেস্ক: দক্ষিণ কোরিয়ার তথ্য প্রযুক্তি খাতের (টেলিকমিউনিকেশন) বিশ্বখ্যাত প্রতিষ্ঠান স্যামসাং বাংলাদেশে স্মার্ট ফোনতৈরিতে আগ্রহীতাই এখাতে তারা চায় বিনিয়োগ করতেবাংলাদেশে নিযুক্ত দক্ষিণকোরিয়ার রাষ্ট্রদূত লি ইয়ুন ইয়ং শিল্পমন্ত্রী দিলীপ বড়ুয়ার সঙ্গেআয়োজিত বৈঠকে একথা জানান

দক্ষিণ কোরিয়ার রাষ্ট্রদূত জানান, স্মার্টফোন খাতে বিনিয়োগ হলে বাংলাদেশে প্রায় ৫০ হাজার লোকের কর্মসংস্থানসৃষ্টির পাশাপাশি কমপক্ষে ১০ লাখ মার্কিন ডলার মূল্যের মোবাইল ফোন সেট ওএক্সেসরিজ রপ্তানি সম্ভব হবেসেইসাথে বাংলাদেশে আরও কমদামে স্মার্টফোনপাওয়া যাবে

আন্তর্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন প্রতিষ্ঠানটির স্মার্ট ফোনেরমধ্যে রয়েছে সামসাং গ্যালাক্সি, স্যামসাং ওয়েভ, স্যামসাং স্টার ডুয়াস, স্যামসাং ওমনিয়া, স্যামসাং এম পাওয়ার টেক্সট, স্যামসাং কোরবি, স্যামসাংস্টার, স্যামসাং প্রাইমোসহ আরও কয়েকটি ব্র্যান্ড

শিল্প মন্ত্রণালয়েআয়োজিত বুধবারের ওই বৈঠকে বাংলাদেশে কোরিয়ার দূতাবাসের বাণিজ্যিক শাখারমহাপরিচালক সাম সিক কিম সহ শিল্প মন্ত্রণালয়ের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারাউপস্থিত ছিলেনএসময় চট্টগ্রামের কোরিয়ান ইপিজেডে স্থাপিত জুতা কারখানারসম্প্রসারণ, তথ্য-প্রযুক্তিখাতে কোরিয়ার সহায়তা এবং শিল্পখাতে উন্নতপ্রযুক্তি হস্তান্তরের উপায় নিয়ে আলোচনা হয়

বৈঠকে কোরিয়াররাষ্ট্রদূত বাংলাদেশের তৈরি পোশাক শিল্পখাতের প্রশংসা করে বলেন, গতশতাব্দীর ৭০ এর দশকে কোরিয়ার দাইয়ু কোম্পানির সহায়তায় বাংলাদেশে যে তৈরিপোশাক কারখানা স্থাপিত হয়েছিল, আজ তা বাংলাদেশের রপ্তানি বাণিজ্যের প্রধানখাত হিসেবে আবির্ভূত হয়েছেতিনি বাংলাদেশে দক্ষিণ কোরিয়ার বিনিয়োগ বাড়াতেনিয়ামকের ভূমিকা পালন করবেন বলে শিল্পমন্ত্রীকে অবহিত করেন

এটি ডিজিটাল বাংলাদেশ বিনির্মাণের লক্ষ্য অর্জনে যুগান্তকারী অবদান রাখবে বলেও এসময় অভিমত দেন।  

শিল্পমন্ত্রীদিলীপ বড়ুয়া এসময় বলেন, প্রায় ১৬ কোটি জনসংখ্যার বাংলাদেশ বিদেশিবিনিয়োগকারিদের জন্য লোভনীয় বাজারবর্তমানে বাংলাদেশের জনসংখ্যার বিরাটঅংশ মোবাইল ফোন ব্যবহার করছেথ্রিজি প্রযুক্তি চালুর ফলে দেশে স্মার্টফোনব্যবহারকারির সংখ্যা দ্রুত বাড়ছেবিশ্বখ্যাত স্যামসাং কোম্পানি বাংলাদেশেরটেলিকমিউনিকেশন শিল্পে বিনিয়োগ করলে লাভবান হবেএদেশের সস্তা শ্রমশক্তি ওঅভ্যন্তরীণ বাজারের সুযোগ কাজে লাগিয়ে যে কোনো বিদেশি উদ্যোক্তা লাভবানহতে পারে, বলেও মত দেন দিলীপ বড়ুয়া

মন্ত্রী পরিবেশবান্ধব সবুজপ্রযুক্তির শিল্পায়নে দক্ষিণ কোরিয়ার সহায়তা কামনা করেনশিল্পমন্ত্রী আরওবলেন, দক্ষিণ কোরিয়াসহ উন্নয়ন সহযোগী বিভিন্ন দেশের কারিগরি ও প্রযুক্তিগতসহায়তায় বাংলাদেশের শিল্পখাত দ্রুত এগিয়ে যাচ্ছেজ্বালানি খাতে দক্ষিণকোরিয়ার প্রযুক্তি সহায়তা আমাদের আরও এগিয়ে নিতে পারে

বাংলাদেশেরসম্ভাবনাময় জাহাজ নির্মাণশিল্প, চামড়া, ইলেকট্রনিক সামগ্রী ও জুতা তৈরিখাতেকোরিয়ার উদ্যোক্তারা যৌথ বিনিয়োগে এগিয়ে আসতে পারেএতে আমরা দুই দেশইলাভবান হবো

 

 

 

 

 

নিউজরুম

 

 

 

 

 

 

 

শেয়ার করুন