১৮ দলীয় জোট নেতাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠনের শুনানি ১ জানুয়ারী

0
110
Print Friendly, PDF & Email

রুপসীবাংলা, ঢাকা(১৮ নভেম্বর) :সচিবালয়ে ককটেল বিস্ফোরণ মামলায় বিএনপির ভারপ্রাপ্তমহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরসহ ১৮ দলীয় জোট নেতাদের বিরুদ্ধে অভিযোগগঠনের শুনানি পিছিয়েছেরোববার মামলার অন্যতম ৮ আসামি সাংসদ কর্নেল (অব) অলি আহমেদ, শহীদ উদ্দিন চৌধুরী এ্যানী, ব্যারিস্টার আন্দালিব রহমানপার্থ, সৈয়দা আশিফা আশরাফি পাপিয়া, রেহানা আক্তার রানু, নিলুফার চৌধুরী মনিও শাম্মি আক্তার এবং বিএনপির স্বনির্ভর বিষয়ক সম্পাদক রুহুল কুদ্দুসতালুকদার দুলুর পক্ষে চার্জ শুনানির জন্য সময়ের আবেদন করা হয়

 

আবেদনেবলা হয়, ওই আসামিরা সবাই সংসদ সদস্যবর্তমানে সংসদ অধিবেশন চলছেতাইতারা আদালতে হাজির হতে পারেননিতাই অভিযোগ গঠন বিষয়ে শুনানির জন্য সময়েরপ্রয়োজনএসময় মামলার অন্যতম আসামি মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্রিগেডিয়ার (অব.) আসম হান্নান শাহ, গয়েশ্বরচন্দ্র রায়, সাদেক হোসেন খোকাসহ অপর আসামিরা উপস্থিত ছিলেন

 

শুনানিশেষে ঢাকার জ্যেষ্ঠ বিশেষ ট্রাইব্যুনালের বিচারক মো. জহুরুল হক আগামী ১জানুয়ারি মামলার অভিযোগ গঠন বিষয়ে শুনানির জন্য দিন ধার্য করেছেনউল্লেখ্য, গত ৩১ মে মামলাটির তদন্ত কর্মকর্তা ডিবির পরিদর্শক তপন চন্দ্র সাহাহামলাকারীকে শনাক্ত না করেই বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলামআলমগীরসহ ১৮ দলীয় জোটের নেতাদের নামে আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করেন

 

বিএনপিনেতা ইলিয়াস আলীর মুক্তির দাবিতে বিএনপিসহ ১৮ দলীয় জোটের ডাকা হরতালের আগেআসামিরা পারস্পারিক সহযোগিতা, ষড়যন্ত্র, প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষ নির্দেশ, প্ররোচনা, উস্কানি, আর্থিক সহযোগিতা ও বিস্ফোরক দ্রব্যাদি সংগ্রহেসহযোগিতায় জনমনে আতঙ্ক সৃষ্টি করে বলে অভিযোগপত্রে উল্লেখ করা হয়

 

সরকারিগুরুত্বপূর্ণ স্থাপনার ক্ষতি সাধনসহ গণতান্ত্রিক সরকার ব্যবস্থা নস্যাকরার উদ্দেশ্যে বাংলাদেশ সচিবালয়ের ২নং গেটের বাইরে এবং সচিবালয়ের সীমানাপ্রাচীরের ভেতর গাড়ি পার্কিং গ্যারেজের পশ্চিম পাশে অজ্ঞাতাপরিচয় দুইজনমোটরসাইকেল আরোহী দুইটি ককটেল বিস্ফোরণ ঘটিয়ে পালিয়ে যায় বলে প্রাথমিকভাবেপ্রমাণিত হয়েছে বলে অভিযোগপত্রে উল্লেখ করা হয়
গত ২৯ এপ্রিল বিএনপিনেতৃত্বাধীন ১৮ দলীয় জোটের ডাকা হরতাল চলাকালে সচিবালয়ের ভেতর ও বাইরেদুটি ককটেল বিস্ফোরণের ঘটনায় শাহবাগ থানায় মামলা দায়ের করা হয়

 

মামলারচার্জশিটভুক্ত ২৯ আসামি হলেন, বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুলইসলাম আলমগীর, মহানগর বিএনপির আহ্বায়ক ও কেন্দ্রীয় ভাইস চেয়ারম্যান সাদেকহোসেন খোকা, যুগ্ম-মহাসচিব রুহুল কবীর রিজভী, ঢাকা মহানগর বিএনপির সদস্যসচিব আব্দুস সালাম, ছাত্রদলের সভাপতি সুলতান সালাউদ্দিন টুকু, স্বেচ্ছাসেবকদলের সভাপতি হাবিবুন-উন-নবী খান সোহেল, বিএনপির যুগ্ম-মহাসচিব আমান উল্লাহআমান, যুবদলের সাধারণ সম্পাদক সাইফুল ইসলাম নীরব, সাধারণ সম্পাদক মীরসরাফত আলী সপু, যুবদল সভাপতি মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল, স্বনির্ভরতা বিষয়কসম্পাদক রুহুল কুদ্দুস তালুকদার দুলু, স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্রিগেডিয়ারজেনারেল (অব.) আ স ম হান্নান শাহ, স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খোন্দকার মোশাররফহোসেন, সংসদ সদস্য ও ছাত্র বিষয়ক সম্পাদক শহীদ উদ্দিন চৌধুরী এ্যানী এমপি, সৈয়দা আশিফা আশরাফী পাপিয়া এমপি, শাম্মী আক্তার শিফা এমপি, বেগম রেহানাআক্তার রানু এমপি, নীলুফার চৌধুরী মনি এমপি, বিজেপির চেয়ারম্যানব্যারিস্টার আন্দালিব রহমান পার্থ, এলডিপি চেয়ারম্যান কর্নেল (অব.) অলিআহমেদ, বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, ছাত্রদলেরসাংগঠনিক সম্পাদক আনিসুর রহমান তালুকদার খোকন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ছাত্রদলের আহ্বায়ক আবদুল মতিন, ঢাকা মহানগর উত্তর যুবদলের সভাপতি এস এমজাহাঙ্গীর হোসেন সরদার, যুবদলের সহ-দফতর সম্পাদক কামরুজ্জামান দুলাল, বিএনপির সাবেক নির্বাহী কমিটির সদস্য কামরুজ্জামান রতন, মোরতাজুল করিমবাদল, রেহানা আক্তার ডলি ওরফে রেহানা ইয়াসমিন ডলি ও মোহাম্মদ তোফাজ্জলহোসেন ভূঁইয়া ওরফে বাদল

 

 

 

নিউজরুম

 

শেয়ার করুন