বিক্ষোভের নামে পুলিশের উপর হামলার ঘটনায় জামায়াত শিবিরের ১৮ নেতাকে খোঁজছে গোয়েন্দা

0
217
Print Friendly, PDF & Email

রুপসীবাংলা (ঢাকা, ১০ নভেম্বর): জামায়াত-শিবিরের শীর্ষ ১৮ নেতার খোঁজ করছেগোয়েন্দারাসম্প্রতি সারাদেশে জামায়াত শিবিরের তাণ্ডবে নেতৃত্ব দেওয়াজামায়াত শিবিরের এই ১৮ নেতা এখন প্রকাশ্যে নেই বলে গোয়েন্দা সদস্যরাজানিয়েছেনশীর্ষ এসব নেতাকে গ্রেফতারের জন্য বিভিন্ন জায়গায় অভিযানওপরিচালনা করা হচ্ছেবিক্ষোভের নামে পুলিশের উপর হামলার ঘটনায় তারাএজাহারভুক্ত আসামি।<br>

পলাতক জামায়াত শিবিরের শীর্ষ নেতারা হলেন-জামায়াতের ভারপ্রাপ্ত সেক্রেটারি ডা: শফিকুর রহমান, জামায়াতের নির্বাহীকমিটির সদস্য হামিদুর রহমান আজাদ এমপি, সহকারী সেক্রেটারি মিয়া গোলামপরোয়ার, মজিবুর রহমান, প্রচার সম্পাদক তাসনিম আলম, ঢাকা মহানগরেরসেক্রেটারি নূরুল ইসলাম বুলবুল, ঢাকা মহানগরের নেতা ও শিবিরের সাবেক সভাপতিসেলিম উদ্দিন ও শফিকুল ইসলাম মাসুদ, কেন্দ্রীয় নেতা মাওলানা আব্দুলহালিমসহ মাওলানা ফয়েজ, রেজাউল করিম ও সাইফুল ইসলামশিবিরের নেতারা হলেন-আলমগীর হোসেন, জোহা, ইমন, তুহিন, ইয়াহিয়া ও আজিজুর রহমানমহানগরগোয়েন্দা পুলিশের ডিসি দক্ষিণ মনিরুল ইসলাম বলেন, “জামায়াতশিবিরের বিরুদ্ধে দায়ের করা মামলার আসামিদের গ্রেফতারের জন্য অভিযানচালাচ্ছি<br>

যারা এই মামলার আসামি তাদেরকে গ্রেফতার করার চেষ্টা চলছে গোয়েন্দাকর্মকর্তারা বলছেন, শীর্ষ এই জামায়াত ও শিবিরের নেতারা আত্নগোপনে যাওয়ারপরপর তাদের পূর্বের ব্যবহৃত সকল মোবাইল নম্বর বন্ধ পাওয়া যাচ্ছেতাদেরখোঁজ খবর পাওয়া যাচ্ছেনাতাদের নিকট সর্বশেষ তথ্য অনুযায়ী এই সকল নেতারাএখন সিটিসেল নম্বর ব্যবহার করছেতারা এই সিটিসেল নম্বরের খোঁজে রয়েছেন<br>

সংশ্লিষ্টসূত্রে জানা যায়, গত ৬ ও ৭ নভেম্বর রাজধানীসহ সারাদেশে জামায়াত শিবিরযুদ্ধাপরাধীদের বিচার থেকে সরকারের সরে আসা, শীর্ষ নেতাকর্মীদের মুক্তিরদাবিসহ কয়েক ইস্যু নিয়ে বিক্ষোভ মিছিলের নামে পুলিশের অতর্কিত হামলা করেভাংচুর করে প্রায় যানবাহনসারাদেশে নৈরাজ্যকর এক পরিস্থিতির সৃষ্টি করেবিশেষকরে রাজশাহীতে পুলিশের রাইফেল কেড়ে নিয়ে মেটানোয় তোলপাড় সৃষ্টি হয়এইঘটনায় রাজধানীসহ সারাদেশে জামায়াত শিবিরের এই শীর্ষ নেতারাসহ অন্তত কয়েকহাজার নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে অর্ধশতাধিক মামলা দায়ের করে পুলিশগ্রেফতারহয় প্রায় ৪ শতাধিক নেতাকর্মীপরে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ও পুলিশের উর্ধতনকর্মকর্তাদের নির্দেশে সারাদেশে পুলিশ শিবিরের বিরুদ্ধে কঠোর অবস্থান নেয়এদিকেকর্মী গ্রেফতার হলেও শিবিরের এই শীর্ষ নেতারা এখনও ধরাছোঁয়ার বাইরে রয়েগেছেএদের কে গ্রেফতার করতে হন্য হয়ে খুঁজে বেড়াচ্ছে আইন শৃঙ্খলা বাহিনীরসদস্যরা<br>

গোয়েন্দা কর্মকর্তারা বলেন, এই সকল নেতারা আত্মগোপন হওয়ারসঙ্গে সঙ্গে তাদের ব্যবহৃত মোবাইল ফোন নম্বর বন্ধ পাওয়া যাচ্ছেতবেযতটুকু জানতে পেরেছন, তারা এখন সিটিসেল মোবাইল ফোন ব্যবহার করছেনসিটিসেলমোবাইল ব্যবহারের কারণ কি জানতে চাইলে গোয়েন্দা সংস্থার এক কর্মকর্তাবলেন, পূর্বের গ্রামীণ, বাংলালিংক অথবা অন্য কোন অপারেটরেরমোবাইল নম্বর ওই সেটে ব্যবহার করলে প্রযুক্তির মাধ্যমে তা বোঝা যেতোএকইসঙ্গে তাদের অবস্থান সম্পর্কেও জানা যেতোকিন্তু নতুন সিটিসেল নম্বরব্যবহারের ফলে তাদের অবস্থান জানা যাচ্ছে নাতিনি অবশ্য বলেন, গোয়েন্দা কর্মকর্তারা তাদের ব্যবহৃত মোবাইল ফোন নম্বরের সূত্র ধরেই তাদের অবস্থান বের করার চেষ্টা করছেন তারা<br>

 

নিউজরুম

শেয়ার করুন