আমি রাষ্টীয় অতিথি,আসামী নয়: এরশাদ

0
188
Print Friendly, PDF & Email

রূপসীবাংলা ডেস্ক ০৫ অক্টোবর:
সাবেক রাষ্ট্রপতি হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ বলেছেন, ‘আমি সৌদি আরবের আসামি নই৷ আমি সেখানকার রাষ্ট্রীয় অতিথি৷ সৌদি সরকার আমার ব্যক্তিগত বন্ধু৷ আর যদি আসামিই হতাম তাহলে তো তারা আগেই বিষয়টি গণমাধ্যমের কাছে প্রকাশ করতো৷ এমন কিছু ঘটলে তারা আমাকে জেলে পাঠাতো৷ সৌদি আরবে আমি প্রতারণার মাধ্যমে ব্যবসা করেছি এ ধরনের অভিযোগ ভিত্তিহীন৷ আমি বুঝতে পারছি না এ ধরনের কথা কেন আসছে৷ আমার বলার মতো এমন কোনা অর্থ নেই এবং ‘আমি কখনো বেস্নকমানি হোয়াইটও করিনি৷’ গতকাল বারিধারায় নিজ বাসভবনে সাংবাদিকদের সঙ্গে দেওয়া এক সাাত্‍কারে এরশাদ এ কথা বলেন৷ একই সঙ্গে সম্প্রতি সাতীরা-৪ আসনের সংসদ সদস্য ও জাতীয় পার্টির (জাপা) এমপি এইচএম গোলাম রেজা এরশাদের বিরুদ্ধে সৌদি আরবে ব্যবসার মাধ্যমে প্রতারণার যে অভিযোগ তুলেছেন তা জাপা চেয়ারম্যান সম্পূর্ণ মিথ্যা ও বানোয়াট বলে দাবি করেন৷
দলের সদস্যপদ থেকে অব্যাহতি পাওয়ার পর জাতীয় পার্টির এমপি এইচএম গোলাম রেজা এরশাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ করেন যে, সৌদি আরবে এরশাদের ব্যবসা রয়েছে৷ এর মাধ্যমে তিনি অনেকের সঙ্গে প্রতারণা করেছেন৷ প্রতারণার দায়ে ২০০৬ সালে সৌদি আরবে পাঁচ মামলায় এরশাদের জেল হয়েছিল এবং এরশাদ সেসময় তিন লাখ রিয়েল জরিমানা দিয়ে সাজা খাটা থেকে অব্যাহতি পান৷ এ প্রসঙ্গে জানতে চাওয়া হলে সাবেক রাষ্ট্রপতি বলেন, গোলাম রেজা আমার নাম ভাঙিয়ে চলছিল৷ সে বিভিন্ন জায়গায় আমার ব্যক্তিগত সচিব (পিএস) ও রাজনৈতিক সচিব হিসেবে নিজের পরিচয় দিয়ে আসছিল৷ এমনকি নিজের ভিজিটিং কার্ডেও সে তার ভুয়া পরিচয় ব্যবহার করে সুযোগ নিয়ে আসছিল৷ কিন্তুু আমার প্রকৃত ব্যক্তিগত সচিব হচ্ছেন সুনীল৷ আমি তাকে (গোলাম রেজাকে) এ ধরনের প্রতারণা না করার জন্য বেশ কয়েকবার বলেছি কিন্তুু সে আমার কথা রাখেনি৷’ তবে এরশাদ জানান, তার সম্পর্কে ভিত্তীহীন গুজব রটালেও তিনি গোলাম রেজার বিরুদ্ধে কোনো শক্ত পদপে নেবেন না৷ এরশাদ বলেন, ‘সাংবিধানিক কাঠামোর পরিপন্থী কোনো কাজ আমি করব না৷ আমি চাই না রেজার কোন তি হোক৷’ তিনি আরও বলেন, ‘আমি জানি গোলাম রেজার দুবাই, সৌদি আরবেও বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে সংশিষ্টতা রয়েছে৷ গোলাম রেজার ইতিহাস সম্পর্কেও আমি জানি৷ সে সেনাবাহিনীর একজন সেপাই ছিল৷ তার বিরুদ্ধে হত্যা মামলাও আছে৷ এদিকে জাপা মহাসচিব এবিএম রুহুল আমিন হাওলাদার জানিয়েছেন, বর্তমানে প্রেসিডিয়াম সদস্য কাজী ফিরোজ রশীদকে এরশাদ তার মুখপাত্র নিয়োগ দিয়েছেন৷ অন্যদিকে একইদিন গঠনতনত্মের ৩৯ ধারা মোতাবেক এরশাদ তার যুব বিষয়ক উপদেষ্টা মীর আবদুস সবুর আসুদকে দলের প্রেসিডিয়াম মযর্াদা দিয়েছেন৷
রূূপসীবাংলা নিউজ ডেস্ক

শেয়ার করুন