আপন মনে চলছেন সুজানা

0
95
Print Friendly, PDF & Email

রুপসীবাংলা বিনোদন ডেস্ক :
সুমাইয়া জাফর সুজানা, এ সময়ের আলোচিত মুখ। সেই ২০০১ সালে মিডিয়ায় পদার্পণ। ক্যারিয়ারের শুরু থেকে বেশ কিছু বিজ্ঞাপনে মডেল হিসেবে কাজ করেছেন। সামনে ঈদের নাটকেও অভিনয় করতে দেখা যাবে তাকে। কে-ক্রাফট আর নিপুনের মতো কিছু দেশীয় ফ্যাশন হাউজের ফটোসেশনের মাধ্যমে সুজানার মিডিয়ায় অভিষেক হয়েছিল। শুরুতে শখে বশেই ফটোসেশন করেছিলেন।
সেই ছবিগুলো পাঠিয়ে দেন অভিনেতা-নির্মাতা আফজাল হোসেনের বিজ্ঞাপনী প্রতিষ্ঠানে। সপ্তাহখানেক পরই ডাক পড়ে। প্রথমে কোমলপানীয় সানক্রেস্টের একটি বিজ্ঞাপনে মডেল হন। বিজ্ঞাপনটি অনএয়ারে যাওয়ার পরই দর্শক ও নির্মাতাদের দৃষ্টি কাড়েন সুজানা। সেই ধারাবাহিকতায় সানক্রেস্ট-২, হাইসেন্স টিভি, কনকা ফ্রিজের বিজ্ঞাপনে মডেল হন। ২০০৪ সালের লাক্স সুন্দরী প্রতিযোগিতার অংশ নিয়ে চতুর্থ হন সুজানা। এরপর ২০০৬ সালে ফয়সাল নামের এক ব্যবসায়ীকে
বিয়ে করেন। অনেকটা ব্যক্তিগত কারণে দীর্ঘ তিন বছর সরে দাঁড়ান মিডিয়া থেকে। ভালোবেসে বিয়ে করার কারণে পরিবারের সাথে নানা ঝামেলা হওয়ায় নিজেদের সিদ্ধান্তে দুজনে আলাদা হয়ে যান।
এ বিষয়ে সুজানা বলেন, আফজাল ভাইয়ের পর মিডিয়ায় আমার ক্যারিয়ারের দ্বিতীয় অধ্যায় শুরু করি নির্মাতা অমিতাভ রেজার গ্রামীণ ফোনের বিজ্ঞাপনের মাধ্যমে। এরপর হুইল, ম্যাটাডোর কলম, লাক্স বডি ওয়াশ প্রভৃতি পণ্যের মডেল হওয়ার সুযোগ হয়। কিন্তু ফয়সালের সাথে বিয়ে হবার পর অনেকদিনই মিডিয়া থেকে দূরে থাকি। কিন্তু পরিবারের নানা সমস্যার কারণে আমাদের সম্পর্কটা ছিন্ন হয়। ’মোস্তফা সরয়ার ফারুকীর ‘৫১বর্তী’ ধারাবাহিকের মাধ্যমে টিভি নাটকে অভিনয়ের খাতা খুলেন সুজানা। নজর কাড়েন জাহিদ হাসানের বিপরীতে ‘ছন্নছাড়া’ ধারাবাহিকে অভিনয়ের মাধ্যমে। একে একে অভিনয় করেন ‘ফিফটি ফিফটি’, ‘হাইওয়ে টু হ্যাভেন’, ‘দ্বিতীয় জীবন’, ‘টার্মিনাল’ প্রভৃতি নাটকে। মিউজিশিয়ান হৃদয় খানের সঙ্গে মুঠোফোনে তার প্রথম কথা হয়। ‘আমার একটা গানের মডেল হবেন?’ হৃদয় খানের এই প্রস্তাবে সঙ্গে সঙ্গে রাজি হয়ে যান সুজানা। হৃদয় খানের সর্বশেষ অ্যালবাম ছোঁয়ার ‘আড়াল’ শিরোনামের গানের মডেল হলেন সুজানা।এরপর তাদের প্রায়ই কথা হতে থাকে। গড়ে ওঠে ভালো একটা বন্ধুত্ব। কিন্তু বেশ কিছু সংবাদমাধ্যমে উঠে আসে তাদের রোমান্টিক সম্পর্কের কথা। কিন্তু এটা কতটা সত্যি? সুজানার সঙ্গে এ বিষয়ে কথা হয় । তিনি সরাসরি বলেন, হৃদয় খান আমার খুবই ভালো একজন বন্ধু। শুধু বন্ধু নয়, বন্ধুর চেয়েও অনেক বেশি কিছু।
ও আমাকে অনেক পছন্দ করে। কিন্তু কিছু সংবাদমাধ্যমে আমাদের নিয়ে রংচং মাখিয়ে নান‍া কথা ছাপানো হয়। শুধু তাই না, আমাদের সাথে কথা না বলেও অনেকে নিজের মতো করে নানা কথা বলেছেন। আর মজার ব্যাপার হলো এক সংবাদ মাধ্যম তো ২৭ জানুয়ারি আমাদের বিয়ে করার ঘটনাও জানিয়ে দিয়েছিল।
কই সেরকম কিছু তো ঘটলো না!’ সুজানা আরো বললেন, সবার উদ্দেশ্যে জানাতে চাই, আমার একজন বয়ফ্রেন্ড আছে। সে দেশের বাইরে থাকে, বিয়ে যদি করি পরিবারের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী তাকেই করব এবং সবাইকে জানিয়ে করতে চাই।
এবারের ঈদেও সুজানা অভিনীত দু’টি নাটক প্রচার হবে। এর মধ্যে বাংলাভিশনে মোহন খানের ‘তুমি কি উড়বে আমার আকাশে’ এবং ইফতেখার আহমেদ ফাহমীর ‘লাইভ শো’। এছাড়া জিটিভি, এটিএন বাংলা এবং এনটিভির ঈদ আনন্দ আড্ডা অনুষ্ঠানগুলোতে দেখা যাবে তাকে। ‘চ্যানেল অ‍াইয়ে প্রচারিত তাহের শিপনের ‘ইলিটস ইন ওয়ান্ডারল্যান্ড’ এবং আরটিভিতে নোমানের ‘ক্যাপসুল ৫০০এমজি’ নামক দু’টি ধারাবাহিকে অভিনয় করেছেন তিনি। সুজানার বাবা আবু জাফর গত ৩ জুলাই মারা যান। জমজ দুই বোন সুজানা আর রোকইয়া জাফর শুপ্রা, ছোট ভাই শিপু এবং মা আনোয়ারা বেগম- এই নিয়ে তাদের পরিবার। নতুন করে আবারও নাটকে ব্যস্ত হওয়া প্রসঙ্গে সুজানা বলেন, নাটকে কাজ করতে ভালোই লাগছে। প্রতিটি নাটকেই আমার চরিত্র ভিন্ন রকম। আমাকে নিয়ে নির্মাতারা আলাদা করে ভাবছেন, এটা আমার জন্য আনন্দের বিষয়। আমি চেষ্টা করছি আমার চরিত্রগুলো ফুটিয়ে তুলতে। তবে এটা খুব সত্যি যে, নাটকের চেয়ে বিজ্ঞাপনেই কাজ করতে আমার বেশি ভাল লাগে। আর কাজের পরিবেশটাও আম‍ার কাছে অনেক গুরুত্বপূর্ণ।’

নিউজরুম

শেয়ার করুন