ঢাকা বিভাগ হারালো রাজশাহীকে

0
97
Print Friendly, PDF & Email

রুপসীবাংলা স্পোর্টস ডেস্ক :
মুশফিকুর রহিম এবং সাকলাইন সজিব চোট পাওয়ায় প্রথম দিন থেকে ব্যাকফুটে ছিলো রাজশাহী। প্রথম ইনিংসে ব্যাট করেছে আট উইকেটে। পরের ইনিংসে মুশফিক ব্যাট করলেও প্রত্যাশিত খেলাটা খেলতে পারেননি শারীরিক ফিটনেসের জন্যই। আর সাকলাইন তো প্রথম দিন থেকেই নেই। এই প্রতিকূলতা জয় করে ম্যাচ জেতা রাজশাহীর জন্য সত্যিই কঠিন ছিলো।
রাজশাহীর দুই ক্রিকেটার না থাকার সুযোগটি দারুণ ভাবে লুফে নেয় ঢাকা বিভাগ। প্রথম ইনিংসে ১১৬ রানে অল-আউট হওয়ার পরও দ্বিতীয় ইনিংসে ভালো খেলে ম্যাচ জিতে ১২৭ রানে। অলআউট হওয়ার আগে ঢাকা তাদের দ্বিতীয় ইনিংসে করে ৩২২ রান। এখান থেকে প্রথম ইনিংসে রাজশাহীর ৬২ রানের লিড বিয়োগ করেও ২৬১ রানের টার্গেট দেয়। তৃতীয় দিনের উইকেট স্পিন উপযোগী হয়ে ওঠায় রাজশাহী ব্যাট করতে গিয়ে পড়ে বিপদে। একটি ভালো জুটি পর্যন্ত করতে পারেনি। শেষপর্যন্ত টেনেটুনে নয় উইকেটে করে ১৩৩ রান। রাজশাহী তাদের প্রথম ইনিংস ঘোষণা করেছিলো আট উইকেটে ১৭৮ রান তুলে। রাজশাহীর অধিনায়ক পরাজয়ের কারণ ব্যাখ্যা দিয়েছেন এভাবে,‘প্রথম ইনিংসে আমরা দু’জন ব্যাটসম্যান খেলতে পারিনি। ওখানে যদি আরও ৫০ রান করতে পারতাম তখন দ্বিতীয় ইনিংসে টার্গেট এত হতো না। দেখা যেতো আমরা ১০০’র মতো লিড পেয়ে যেতাম।
এটা অনেক বড় প্লাস পয়েন্ট হতো। আর দ্বিতীয় ইনিংসে আমাদের সেরা বোলার সাকলাইন বল করতে পারেনি। এটাও আমাদের জন্য অনেক বড় ‘মাইনাস’ পয়েন্ট ছিলো। উইকেটে যেহেতু স্পিন বলে টার্ন এবং বাউন্স করছিলো, সাকলাইন বল করতে পারলে ভিন্ন পরিস্থিতি হতে পারতো। যদিও তাদের নিচের দিকের কয়েকজন ব্যাটসম্যান ভালো খেলেছে। কিন্তু রান হয়তো এত হতো না। ২০০ রানে আটকে দিলে আমাদেরকে হয়তো দেড়‘শ রান চেজ করতে হতো।’ঢাকা দ্বিতীয় দিন শেষে সাত উইকেটে ২৯৫ রান করেছিলো। বাকি তিন উইকেটে তৃতীয় দিন সকালে তুলেছে ২৭ রান। অথচ এই ঢাকা ৫১ রানে চার ব্যাটসম্যানকে হারিয়ে বিপর্যয়ে পড়েছিলো।
কিন্তু মিডলঅর্ডার ব্যাটসম্যান মোশারফ হোসেন রুবেল ৬৯, আব্দুল মাজিদ ৬৪, নুরুল হাসান ৬২ এবং মোহাম্মদ শরিফ ২৪ রান করলে চ্যালেঞ্জিং সংগ্রহ পায় ঢাকা। জবাবে শফিউল ইসলাম ৪৪ ও মুশফিকের ২৬ রান ছাড়া রাজশাহীর কোন ব্যাটসম্যান বলার মতো স্কোর পায়নি। জুনায়েদ সিদ্দিকী, জহুরুল ইসলাম, ফরহাদ রেজা, ফরহাদ হোসেন, সাব্বির রহমান পুরোপুরি ব্যর্থ হয়েছেন। হারের ম্যাচেও রাজশাহী একটি পয়েন্ট আছে। প্রথম ইনিংসে ঢাকাকে ১১৬ রানে অলআউট করে বোলিং বোনাস পয়েন্ট পেয়েছে। আর ম্যাচ জিতে পূর্ণ ছয় পয়েন্ট পেয়েছে ঢাকা।

নিউজরুম

শেয়ার করুন