অর্থ আত্মসাতের অভিযোগে নাঈমা গ্রুপের ভাইস চেয়ারম্যান আটক

0
123
Print Friendly, PDF & Email

‍রুপসীবাংলা, সিলেট ২০ অক্টোবর :
বিদেশে পাঠানোর নামে অর্থ আত্মসাতের অভিযোগে সিলেটে নাঈমা গ্রুপের ভাইস চেয়ারম্যান আবুল কালাম আজাদকে আটক করেছে পুলিশ। গত শুক্রবার দিনগত রাতে তাকে আটক করা হয়। আটকের ছবি তোলায় এক সাংবাদিককে অপহরণ চেষ্টার মামলায় শনিবার তাকে আদালতে হাজির করে রিমান্ড আবেদন করে পুলিশ।তবে রিমান্ড আবেদনের ব্যাপারে পরবর্তীতে আদেশ দেওয়া হবে বলে আদালত সূত্রে জানা গেছে।
আদালত সূত্র জানায়, শনিবার সিলেটের চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই জাকির হোসেন রিমান্ডের আবেদন জানান। পুলিশ সূত্র জানায়, বিদেশে পাঠানোর নামে অর্ধকোটি টাকা আত্মসাত ও প্রতারণার অভিযোগে নাঈমা গ্রুপের ভাইস চেয়ারম্যান আবুল কালাম আজাদকে শুক্রবার দিনগত রাতে আটক করে পুলিশ।
পুলিশ আরো জানায়, আটক আবুল কালাম আজাদের ছবি তুলে রাত সাড়ে ১১টায় ফেরার পথে নগরীর ক্বিন ব্রিজ এলাকায় দৈনিক সবুজ সিলেট’র সিনিয়র ফটোসাংবাদিক কয়েস আহমদকে অপহরণের চেষ্টা করা হয়। তিন যুবক গাড়ি থেকে নেমে তাকে জোর করে গাড়িতে তোলার চেষ্টা করে। তবে তিনি আত্মরক্ষা করতে সক্ষম হন। এ ঘটনায় ফটোসাংবাদিক কয়েস বাদী হয়ে নাঈমা গ্রুপের ভাইস চেয়ারম্যান আবুল কালাম আজাদ, সিলেটের ডিজিএম সলিম আহমদ সলু, কুমিল্লার ডিজিএম লিটু মজুমদারসহ আরো তিনজনের নাম উল্লেখ করে এসএমপির কোতোয়ালী থানায় মামলা দায়ের করেন।
এ ব্যাপারে সিলেট কোতোয়ালি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আতাউর রহমান জানান, মামলা রেকর্ড করা হয়েছে। অন্য আসামিদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে। মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা বন্দর পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ জাকির হোসেন জানান, আটক আবুল কালাম আজাদকে সাংবাদিক অপহরণ চেষ্টার মামলায় গ্রেফতার দেখিয়ে আদালতে সাত দিনের রিমান্ড আবেদন জানানো হয়েছে।
উল্লেখ্য, সিলেটে সেভেন স্টার হোটেল নির্মাণের নামে প্রতারণার অভিনব কৌশলে মাঠে নামেন নাঈমা গ্রুপের ওই কর্মকর্তারা। প্রতারণার কৌশল হিসেবে দুবাইয়ে নিজস্ব হোটেলে নিয়োগের নামে বিভিন্ন মানুষের কাছ থেকে অর্ধশত কোটি টাকা আত্মসাতের অভিযোগ রয়েছে তাদের বিরুদ্ধে।

নিউজরুম

শেয়ার করুন