নাগরিক সেবা হতে বঞ্চিত সিংড়া পৌরবাসী

0
126
Print Friendly, PDF & Email

রুপসীবাংলা, সিংড়া, ২০ অক্টোবর :
নামে মাত্র প্রথম শ্রেণীর পৌরসভা। বাস্তবে কোন কাজে নেই। প্রতি বছর করের বোঝা বাড়লেও নাগরিক সেবা বাড়েনি। ফলে ১ম শ্রেণীর পৌরসভা হলেও নাগরিক সেবা থেকে বঞ্চিত সিংড়া পৌরবাসী। পৌর এলাকার ১২টি ওয়ার্ডের বিভিন্ন রাস্তা ঘাট ভেঙ্গে পড়েছে । জলাবদ্ধতা,মশার কামড়,অপরিকল্পিত ড্রেনেজ ব্যবস্থা, অপ্রতুল লাইটিং ব্যবস্থা, নেশাখোর ও কুকুরের উপদ্রব্য বৃদ্ধিসহ নানা সমস্যায় জর্জরিত পৌরবাসি। পৌরবাসীর অভিযোগ, কোন নিয়মনীতি না মেনেই অপরিকল্পিত ভাবে ঘরবাড়ি নির্মান করা হচ্ছে তাছাড়া চলাচলের রাস্তা ও দখল করা হচ্ছে অথচ পৌর কর্তৃপক্ষের কোন ভ্রক্ষেপ নাই । যেন অসহায় তারা। বালুয়া বাসুয়া, চাঁদপুর, মাদারীপুরসহ কয়েকটি মহল্লায় একটু বৃষ্টি হলেই জলাবদ্ধতা দেখা যায়। জলাবদ্ধতার কারনে স্কুলে যাতায়াতে ছেলে মেয়েদের সমস্যা পোহাতে হয়। মাদ্রাসা মোড় হতে বাসষ্ট্যান্ড রোডে কলেজের পাশে রাস্তা ভেঙ্গে পড়েছে। যত্রতত্র ভাবে ফুটপাত দখল করে মার্কেট করায় পথচারীদের দুর্ভোগ পোহাতে হয় । প্রায় ৩ কোটি টাকা ব্যয়ে ড্রেনেজ ব্যবস্থা গড়ে তোলা হলেও বিভিন্ন স্থানে ফাটল ধরেছে । ম্যানহলের ঢাকনা ভেঙ্গে পড়লেও কর্তৃপক্ষের নজর নেই। এতে দূঘটনার শিকার হতে হয় পথচারীদের । মশার জ্বালায় অতিষ্ঠ পৌরবাসী অথচ মশা মারার কোন ব্যবস্থা নেই। বেড়েছে কুকুরের উপদ্রব। যেখানে সেখানে ময়লা আবর্জনা ফেলে রাখায় পরিবেশ দৃষিত হচ্ছে । ময়লা আবর্জনা ফেলে পরিবেশ নোংরা করা হলেও ময়লা আর্বজনা ফেলার নিদিষ্ট জায়গা নেই । অপরিকল্পিত ভাবে বিভিন্ন রাস্তায় ড্রেন নির্মাণ করা হয়েছে কিন্তু তা কোন কাজে আসছে না ।
অসাধু ব্যক্তিরা দখল করে নেওয়ায় সিংড়া বাজারের একমাত্র খালটি সৌন্দর্য হারিয়ে ফেলেছে।। এতে করে আগামীতে জলাবদ্ধতা ব্যাপক আকার ধারন করতে পারে বলে মনে করছেন সচেতন পৌরবাসী । সন্ধ্যার পর বিভিন্ন মহল্লা অন্ধকারে নিমজ্জিত হয়ে পড়ে। মাদক সেবীদের আড্ডায় পরিনত হয়। নেশা খোরদের উপদ্রব বাড়ছে। জ্বানালা খুলে ঘুমোতে পারে না পৌরবাসী ।
প্রায়ই মোবাইলসহ অন্যান্য জিনিসপত্র চুরির ঘটনা ঘটছে নিত্যদিনই। জানা যায়, ১৯৯৯ সালের ১০ জানুয়ারী পৌরসভা গঠন হয় এরপর থেকে মেয়র পদে অধিষ্ঠিত রয়েছেন শামিম আল রাজি তিনি দীর্ঘদিন থেকে মেয়র থাকলেও কাঙ্খিত উন্নয়ন হয়নি । উন্নয়নে কিছু মহল্লায় বৈষম্যের শিকার । কসাইখানা নির্মান করা হলেও তা ব্যবহার করা হয় না এসব নিয়ে ও মাথাব্যথা নেই পৌর কর্তৃপক্ষের । সিংড়া পৌরসভার মেয়র শামিম আল রাজির সঙ্গে একাধিকবার যোগাযোগ করে ও তাকে পাওয়া যায়নি ।
প্যানেল মেয়র আদনান মাহমুদ বলেন, বর্তমানে উন্নয়ন কার্যক্রম বিভিন্ন কারনে ব্যহত হচ্ছে ,তবে আগামী অর্থ বছরের জন্য নতুন পরিকল্পনা সংশ্লিষ্ঠ দপ্তরে প্রেরন করা হয়েছে।

প্রতিবেদক, এসএম রাজু আহমেদ, সম্পাদনা আলীরাজ/ আরিফ, নিউজরুম

শেয়ার করুন